সুপ্রিম কোর্টে জামিন পেলেন সারদা-কাণ্ডে অভিযুক্ত মনোরঞ্জনা সিং

সুপ্রিম কোর্টে জামিন পেলেন সারদা-কাণ্ডে অভিযুক্ত মনোরঞ্জনা সিং। অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে জামিন চান মনোরঞ্জনা। আজ তাঁর জামিন মঞ্জুর করে শীর্ষ আদালত। সারদা-কাণ্ডে এই প্রথম অভিযুক্তকে জামিন দিল সুপ্রিম কোর্ট।চোরের ওপর বাটপাড়ি। সুদীপ্ত সেনকে প্রতারণার অভিযোগে মনোরঞ্জনা সিংকে গ্রেফতার করে সিবিআই। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মাতঙ্গ সিংয়ের প্রাক্তন স্ত্রী মনোরঞ্জনা, সুদীপ্ত সেনের চিটফান্ড কারবারে সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দেন বলে অভিযোগ। সিবিআইয়ের দাবি, সারদার সঙ্গে উত্তর-পূর্বাঞ্চলে একটি টিভি চ্যানেল খোলার নামে সুদীপ্ত সেনের কাছ থেকে ৩২ কোটি টাকা হাতিয়ে নেন মনোরঞ্জনা। কেন্দ্রের কোনও সংস্থা যাতে সারদার ফাইল নাড়াচাড়া না করে সে জন্য মনোরঞ্জনা নিজের প্রভাব খাটাবেন বলে সুদীপ্ত সেনকে আশ্বাস দেন। ঘটনায় নাম জড়ায় আইনজীবী নলিনী চিদম্বরমের। গ্রেফতার হলেও মনোরঞ্জনাকে সে ভাবে হাজতবাস করতে হয়নি। অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে হাসপাতালেই ছিলেন তিনি। নিম্ন আদালতে, হাইকোর্টে জামিন খারিজের পর গত অক্টোবরে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন মনোরঞ্জনা সিং। অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে জামিন চান তিনি।শীর্ষ আদালতে সিবিআইয়ের আইনজীবী দাবি করেন, মনোরঞ্জনা সিং প্রভাবশালী। তিনি জামিন পেলে সাক্ষীদের প্রভাবিত করতে পারেন। নষ্ট করতে পারেন প্রমাণ। সুপ্রিম কোর্ট সিবিআইয়ের আইনজীবীর কাছে জানতে চায়, এতদিন  হেফাজতে রাখার পরও কী এমন প্রয়োজন যে মনোরঞ্জনা সিংকে আরও আটকে রাখতে হবে?  

Updated By: Feb 6, 2017, 02:13 PM IST
সুপ্রিম কোর্টে জামিন পেলেন সারদা-কাণ্ডে অভিযুক্ত মনোরঞ্জনা সিং

ওয়েব ডেস্ক: সুপ্রিম কোর্টে জামিন পেলেন সারদা-কাণ্ডে অভিযুক্ত মনোরঞ্জনা সিং। অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে জামিন চান মনোরঞ্জনা। আজ তাঁর জামিন মঞ্জুর করে শীর্ষ আদালত। সারদা-কাণ্ডে এই প্রথম অভিযুক্তকে জামিন দিল সুপ্রিম কোর্ট।চোরের ওপর বাটপাড়ি। সুদীপ্ত সেনকে প্রতারণার অভিযোগে মনোরঞ্জনা সিংকে গ্রেফতার করে সিবিআই। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মাতঙ্গ সিংয়ের প্রাক্তন স্ত্রী মনোরঞ্জনা, সুদীপ্ত সেনের চিটফান্ড কারবারে সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দেন বলে অভিযোগ। সিবিআইয়ের দাবি, সারদার সঙ্গে উত্তর-পূর্বাঞ্চলে একটি টিভি চ্যানেল খোলার নামে সুদীপ্ত সেনের কাছ থেকে ৩২ কোটি টাকা হাতিয়ে নেন মনোরঞ্জনা। কেন্দ্রের কোনও সংস্থা যাতে সারদার ফাইল নাড়াচাড়া না করে সে জন্য মনোরঞ্জনা নিজের প্রভাব খাটাবেন বলে সুদীপ্ত সেনকে আশ্বাস দেন। ঘটনায় নাম জড়ায় আইনজীবী নলিনী চিদম্বরমের। গ্রেফতার হলেও মনোরঞ্জনাকে সে ভাবে হাজতবাস করতে হয়নি। অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে হাসপাতালেই ছিলেন তিনি। নিম্ন আদালতে, হাইকোর্টে জামিন খারিজের পর গত অক্টোবরে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন মনোরঞ্জনা সিং। অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে জামিন চান তিনি।শীর্ষ আদালতে সিবিআইয়ের আইনজীবী দাবি করেন, মনোরঞ্জনা সিং প্রভাবশালী। তিনি জামিন পেলে সাক্ষীদের প্রভাবিত করতে পারেন। নষ্ট করতে পারেন প্রমাণ। সুপ্রিম কোর্ট সিবিআইয়ের আইনজীবীর কাছে জানতে চায়, এতদিন  হেফাজতে রাখার পরও কী এমন প্রয়োজন যে মনোরঞ্জনা সিংকে আরও আটকে রাখতে হবে?  

আরও পড়ুন তামিলনাড়ুতে ব্যাটন বদল, নতুন মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন ভি কে শশীকলা

বিচারপতি অরুণ মিশ্র ও বিচারপতি অমিতাভ রায়, মনোরঞ্জনার জামিন মামলা শুনছিলেন। সোমবার বিচারপতি অমিতাভ রায় তাঁর জামিনের রায় ঘোষণা করেন। আদালত সূত্রে খবর, বিচারপতিরা মনে করেছেন, মনোরঞ্জনা অসুস্থ। সারদা-কাণ্ডে অনেকেই জামিন পেয়েছেন। এতদিন হাসপাতালে থাকার পরও মনোরঞ্জনার বিরুদ্ধে যখন প্রমাণ নষ্টের কথা শোনা যায়নি তা হলে আর তাঁকে হেফাজতে রাখার দরকার নেই।সিবিআইয়ের প্রভাবশালী তত্ত্বও মানতে চায়নি শীর্ষ আদালত। সারদা-কাণ্ডে এখনও জামিন পাননি মাতঙ্গ সিং, সদানন্দ গগৈ, নরেশ ভালোটিয়ারা। আইনজীবী মহল বলছে, অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে এবার তাঁরাও সুপ্রিম কোর্টে জামিন চাইতে পারেন। সুপ্রিম কোর্টে একবার জামিন খারিজ হয়ে গেলে পরে জামিন মঞ্জুরের রাস্তা কঠিন হয়ে যায়। তাই, অভিযুক্তরা সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার আগে দু-বার ভাবেন বলে আইনজ্ঞ মহলের ধারণা। কিন্তু, এ বার মনোরঞ্জনার জামিনের উদাহরণ দেখিয়ে মাতঙ্গ সিং, সদানন্দ গগৈরা সুপ্রিম কোর্টে যেতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন  ৫৫ লক্ষ টাকার সম্পত্তি মাত্র ৩১ লক্ষ টাকায় বিক্রি কেন করেন উদয়ন?