তুষার সাজে সেজেছে ভূস্বর্গ, তুষারে ঢেকে গিয়েছে গোটা উপত্যকা

তুষার সাজে সেজেছে ভূস্বর্গও। টাটকা তুষারে ঢেকে গিয়েছে গোটা উপত্যকা। গুলমার্গ, পহেলগাঁও, কুপওয়ারা বরফে ঢাকা। বরফের চাদরে মুখ ঢেকেছে  সিমলা । রাশি রাশি বরফের নীচে চাপা পড়েছে হিমাচলের রাজধানী।  বরফ রোম্যান্সের মজা তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করছেন পর্যটকরা।এর থেকে রোম্যান্টিক আর কী হতে পারে? চোখের বাঁধন সরাতেই আকাশো ছোঁয়া বরফের হাসি। চারদিকে শুধুই বরফ আর বরফ। ষোল আনা উশুল হনিমুন রোম্যান্স।বরফ বিছানায় ওলোটপালটের মজাই আলাদা। আর তার মধ্যে যদি একটু ক্যাম্প ফায়ার হয়ে যায়, তাহলে তো কথাই নেই। সত্যিই জমে বরফ।সত্যিই দুচোখ ভরে দেখেও যেন সাধ মেটেনা।  হাজার বছরের পাথুরে শরীর ঢেকেছে বরফ সুন্দরীর নিবিড় আলিঙ্গনে। পাথর আর বরফের এই রোম্যান্স চলতি যেকোনও সিনেমার  হিট জুটিকেও যে বলে বলে হার মানাবে, তা হলফ করে বলাই যায়।শ্রীনগরের ডাল লেক জমে বরফ।লাদাখের লে শহরের তাপমাত্রা মাইনাস ১৪ ডিগ্রি।কার্গিলের তাপমাত্রা মাইনাস ১০ ডিগ্রি।গুলমার্গে তাপমাত্রা মাইনাস ১১ ডিগ্রি।পহেলগাঁওয়ের তাপমাত্রা মাইনাস ১২ ডিগ্রি।

Updated By: Jan 16, 2017, 07:12 PM IST
 তুষার সাজে সেজেছে ভূস্বর্গ, তুষারে ঢেকে গিয়েছে গোটা উপত্যকা

ওয়েব ডেস্ক: তুষার সাজে সেজেছে ভূস্বর্গও। টাটকা তুষারে ঢেকে গিয়েছে গোটা উপত্যকা। গুলমার্গ, পহেলগাঁও, কুপওয়ারা বরফে ঢাকা। বরফের চাদরে মুখ ঢেকেছে  সিমলা । রাশি রাশি বরফের নীচে চাপা পড়েছে হিমাচলের রাজধানী।  বরফ রোম্যান্সের মজা তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করছেন পর্যটকরা।এর থেকে রোম্যান্টিক আর কী হতে পারে? চোখের বাঁধন সরাতেই আকাশো ছোঁয়া বরফের হাসি। চারদিকে শুধুই বরফ আর বরফ। ষোল আনা উশুল হনিমুন রোম্যান্স।বরফ বিছানায় ওলোটপালটের মজাই আলাদা। আর তার মধ্যে যদি একটু ক্যাম্প ফায়ার হয়ে যায়, তাহলে তো কথাই নেই। সত্যিই জমে বরফ।সত্যিই দুচোখ ভরে দেখেও যেন সাধ মেটেনা।  হাজার বছরের পাথুরে শরীর ঢেকেছে বরফ সুন্দরীর নিবিড় আলিঙ্গনে। পাথর আর বরফের এই রোম্যান্স চলতি যেকোনও সিনেমার  হিট জুটিকেও যে বলে বলে হার মানাবে, তা হলফ করে বলাই যায়।শ্রীনগরের ডাল লেক জমে বরফ।লাদাখের লে শহরের তাপমাত্রা মাইনাস ১৪ ডিগ্রি।কার্গিলের তাপমাত্রা মাইনাস ১০ ডিগ্রি।গুলমার্গে তাপমাত্রা মাইনাস ১১ ডিগ্রি।পহেলগাঁওয়ের তাপমাত্রা মাইনাস ১২ ডিগ্রি।

আরও পড়ুন জল্পনা শেষ, কংগ্রেসে যোগ দিলেন নভজ্যোত সিং সিধু

ধোঁয়া ওঠা বরফ ঠান্ডায় জমেছে সিমলা। রাশি রাশি বরফের নীচে চাপা পড়েছে হিমাচলের রাজধানী। বাড়ি, ঘর, দোকানপাট, গাছপালা সবেরই উপরেই ছয় থেকে সাত ইঞ্চি বরফের  আস্তরণ। পর্যটকদের পোয়াবারো। তবে সুন্দরী সিমলার একটা ভয়াল রূপও রয়েছে। রাস্তাঘাট প্রায় বন্ধ। গাড়ি চলছে ঢিমেতালে। বাড়ি ফেরার সময় যাঁদের হয়েছে তারা আটকে পড়েছেন। স্বর্গ বোধয় একেই বলে। তাই একবার এ স্বপ্নপুরীতে এলে মনে হয় এখানেই থেকে যাই আজীবন...

আরও পড়ুন সত্যিই কি সিবিআই খাঁচায় বন্দি তোতাপাখি?