ফের FD-তে সুদের হার কমাল স্টেট ব্যাঙ্ক, কপালে ভাঁজ প্রবীণ নাগরিকদের

চলতি বছরে ৯ মে-ও স্থায়ী আমানতে সুদের হার কমায় স্টেট ব্যাঙ্ক। বাজারে নগদ টাকার অভাব থাকার দরুন এর আগে স্থায়ী আমানতে সুদের হার কমাতে দেখা গিয়েছে বেসরকারি ব্যাঙ্কগুলিকে

Updated By: Jul 29, 2019, 02:19 PM IST
ফের FD-তে সুদের হার কমাল স্টেট ব্যাঙ্ক, কপালে ভাঁজ প্রবীণ নাগরিকদের
ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন: সব মেয়াদের স্থায়ী আমানতে সুদ কমাল স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া। আজ এসবিআই-এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে এক বিবৃতি জারি করে জানায়, ৪৫ দিন থেকে ১০ বছর মেয়াদ পর্যন্ত আমানতে সুদের হার কমানো হচ্ছে। আগামী ১ অগস্ট থেকে নয়া নিয়ম কার্যকর হবে বলে জানানো হয়েছে।

এক নজরে দেখে নেওয়া যাক কোন মেয়াদে কতটা সুদের হার কমানো হল..

** ৭ দিন থেকে ৪৫ দিন পর্যন্ত স্থায়ী আমানতে সুদের হার ৫.৭৫ শতাংশ কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে।

** ৪৬ দিন থেকে ১৭৯ দিন পর্যন্ত মেয়াদে স্থায়ী আমনতে সুদের হার কমিয়ে করা হল ৫.৭৫ শতাংশ। আগে সুদের হার ছিল ৬.২৫ শতাংশ।

** ১৮০ দিন থেকে ২১০ দিন পর্যন্ত স্থায়ী আমানতে সুদের হার ১০ বেসিস পয়েন্ট কমানো হয়েছে।

** এক বছর থেকে দু’বছর পর্যন্ত স্থায়ী আমানতে সুদের হার ২০ বেসিস পয়েন্ট কমিয়ে করা হল ৬.৮০ শতাংশ।

মেয়াদ আগে সুদের হার ১/০৮/২০১৯ থেকে সুদের হার আগে সুদের হার (প্রবীণ নাগরিক) ১/০৮/২০১৯ সুদের হার (প্রবীণ নাগরিক)
৭ দিন থেকে ৪৫ দিন ৫.৭৫ শতাংশ ৫.০০ শতাংশ ৬.২৫ শতাংশ ৫.৫০ শতাংশ
৪৬ দিন থেকে ১৭৯ দিন ৬.২৫ শতাংশ  ৫.৭৫ শতাংশ ৬.৭৫ শতাংশ ৬.২৫ শতাংশ
১৮০ দিন থেকে ২১০ দিন ৬.৩৫ শতাংশ ৬.২৫ শতাংশ ৬.৮৫ শতাংশ ৬.৭৫ শতাংশ
২১১ দিন থেকে ৩৬৫ দিনের কম ৬.৪০ শতাংশ ৬.২৫ শতাংশ ৬.৯০ শতাংশ ৬.৭৫ শতাংশ
১ বছর থেকে ২ বছরের কম ৭ .০০ শতাংশ ৬.৮০ শতাংশ ৭.৫০ শতাংশ ৭.৩০ শতাংশ
২ বছর থেকে ৩ বছরের কম ৬.৭৫ শতাংশ ৬.৭০ শতাংশ ৭.২৫ শতাংশ ৭.২০ শতাংশ
৩ বছর থেকে ৫ বছরের কম ৬.৭০ শতাংশ ৬.৬০ শতাংশ ৭.২০ শতাংশ ৭.১০ শতাংশ
৫ বছর থেকে ১০ বছরের কম ৬.৬০ শতাংশ ৬.৫০ শতাংশ ৭.১০ শতাংশ ৭.০০ শতাংশ

 

উল্লেখ্য, চলতি বছরে ৯ মে-ও স্থায়ী আমানতে সুদের হার কমায় স্টেট ব্যাঙ্ক। বাজারে নগদ টাকার অভাব থাকার দরুন এর আগে স্থায়ী আমানতে সুদের হার কমাতে দেখা গিয়েছে বেসরকারি ব্যাঙ্কগুলিকে। এবার স্টেট ব্যাঙ্কের এই সিদ্ধান্তে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির মুখে পড়লেন প্রবীণ ব্যক্তিরা। কারণ, স্থায়ী আমানতের সুদের উপর নির্ভর করে সংসার চলে অধিকাংশ প্রবীণ ব্যক্তির।