close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

কাশ্মীরে ফের জঙ্গিদের নিশানায় সিআরপিএফ, শহিদ একাধিক জওয়ান

পাকিস্তানের মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন আল-উমর মুজাহিদিন এই হামলার দায় স্বীকার করে নিয়েছে।

Updated: Jun 12, 2019, 07:15 PM IST
কাশ্মীরে ফের জঙ্গিদের নিশানায় সিআরপিএফ, শহিদ একাধিক জওয়ান

নিজস্ব প্রতিবেদন: ফের কাশ্মীরে জঙ্গিহানা। বুধবার বিকেলের ওই জঙ্গিহানায় তিনজন সিআরপিএফ জওয়ান শহিদ হয়েছেন। দক্ষিণ কাশ্মীরের অনন্তনাগের কেপি রোডে জঙ্গিরা জওয়ানদের উপর আক্রমণ করে। তাতেই পাঁচজন শহিদ হয়েছেন।

সঙ্গে সঙ্গে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে পাল্টা জবাব দেন জওয়ানরা। শুরু হয় গুলির লড়াই। তাতেই এক জঙ্গি নিহত হয়েছে। গুলির লড়াইয়ের জেরে কাশ্মীরের এক মহিলা ও জম্মু-কাশ্মীর স্টেশন হাউজ অফিসার-সহ তিনজন গুরুতর আহত হয়েছেন।

আরও পড়ুন: এসসিও সম্মেলনে যোগ দিতে পাক আকাশপথ ব্যবহার করবেন না প্রধানমন্ত্রী মোদী

ওই জম্মু-কাশ্মীর স্টেশন হাউজ অফিসার আরশাদ আহমেদকে শ্রীনগরের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পিটিআই সূত্রে এই খবর পাওয়া গিয়েছে। বাকিদের অনন্তনাগের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত নিরাপত্তা বাহিনী ও জঙ্গিদের গুলির লড়াই চলছে। পাকিস্তানের মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন আল-উমর মুজাহিদিন এই হামলার দায় স্বীকার করে নিয়েছে।

আরও পড়ুন: ফের যোগীর রাজ্যে সাংবাদিক নিগ্রহের অভিযোগ, লাথি-চড়-ঘুসির পর মুখে প্রস্রাব করে দিল পুলিস!

নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্রে জানা গিয়েছে, অনন্তনাগে বাসস্ট্যান্ডের কাছে চি গলির অক্সফোর্ড স্কুলের কাছে এই ঘটনা ঘটে। দু’টি গাড়িতে জঙ্গিরা এসেছিল। প্রত্যেকেরই মুখ ঢাকা ছিল। তারাই নিরাপত্তা বাহিনীর উপর হামলা চালায়। ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে ওই এলাকা ঘিরে ফেলা হয়েছে। এলাকার নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দক্ষিণ কাশ্মীরের অনন্তনাগ জেলারই একটি অংশ পুলওয়ামা। সেখানে গত ১৪ ফেব্রুয়ারি জঙ্গিহানা হয়েছিল। সিআরপিএফের কনভয়ে গাড়ি বোমা হামলা করেছিল এক জঙ্গি। ওই হামলায় প্রায় ৪০ জন আধাসেনা জওয়ান শহিদ হন।

আরও পড়ুন: আজ কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বের বৈঠক, আলোচনা হতে পারে রাহুলের পদ নিয়ে

ওই হামলার দায় স্বীকার করেছিল পাকিস্তানের মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন জয়েশ-ই-মহম্মদ। তার পর পাকিস্তানের বালাকোটে জয়েশের সবচেয়ে বড় জঙ্গিঘাঁটিতে হামলা চালায় ভারতীয় বায়ুসেনা। গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় ওই জঙ্গিঘাঁটি।

এবারের হামলার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তানের মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন। তবে এই হামলার সঙ্গে জয়েশ নয়, দায় নিয়েছে আল-উমর মুজাহিদিন নামে অন্য একটি জঙ্গি সংগঠন।