মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে নতুন স্পনসর পেল ইস্টবেঙ্গল, আইএসএলে খেলার সম্ভাবনা উজ্জ্বল

মোহনবাগান আইএসএল খেলবে আর শতাব্দীপ্রাচীন ইস্টবেঙ্গল খেলবে না! এই প্রশ্ন আর পাঁচজন ফুটবল সমর্থকের মতো মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও দুশ্চিন্তায় রেখেছিল।

Updated By: Sep 3, 2020, 12:26 AM IST
মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে নতুন স্পনসর পেল ইস্টবেঙ্গল, আইএসএলে খেলার সম্ভাবনা উজ্জ্বল

নিজস্ব প্রতিবেদন- মোহনবাগান খেলবে আইএসএল। কিন্তু বাংলার আরেক ঐতিহ্যশালী ক্লাব ইস্টবেঙ্গল কি খেলবে না! এমন প্রশ্নই গত কয়েক মাস ধরে দুশ্চিন্তায় রেখেছিল বাংলার ফুটবলের লাখ লাখ সমর্থকদের। বিশেষ করে হতাশা ও দুশ্চিন্তায় ডুবছিলেন লাল-হলুদের সমর্থকরা। কিন্তু শেষমেশ ফুটবলপ্রেমীদের দুশ্চিন্তা দূর করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর হস্তক্ষেপেই জট খুলল। নতুন স্পনসর পেল ইস্টবেঙ্গল। একইসঙ্গে আইএসএলে ইস্টবেঙ্গলের খেলার সম্ভাবনাও উজ্জ্বল হয়ে উঠল। হাসি ফুটল লাখ লাখ লাল-হলুদ সমর্থকের মুখে। হরিমোহন বাঙ্গুরের 'শ্রী সিমেন্ট' ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের নতুন স্পনসর। নতুন বিনিয়োগকারী আসায় এবার মোহনবাগানের মতো ইস্টবেঙ্গলেরও আইএসএল খেলার সম্ভাবনা প্রবল।

মোহনবাগান আইএসএল খেলবে আর শতাব্দীপ্রাচীন ইস্টবেঙ্গল খেলবে না! এই প্রশ্ন আর পাঁচজন ফুটবল সমর্থকের মতো মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও দুশ্চিন্তায় রেখেছিল। এটিকে-র সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে আইএসএলে খেলার রাস্তা আগেই সুগম করে রেখেছিল মোহনবাগান। তার পর থেকে ইস্টবেঙ্গলকে আইএসএলে খেলানোর জন্য মাঠে নামেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে কিছুতেই স্পনসর জট কাটছিল না। তাই মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগেই এবার সেই জট কাটল। মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেছেন, ''এই বছরই তো ইস্টবেঙ্গল একশো বছর উদযাপন করল। তবে ওরা আইএসএল খেলবে কি না তা নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল। ওরা বঞ্চিত হচ্ছিল। বাংলার ঐতিহ্যশালী ক্লাব ইস্টবেঙ্গল। ওরা বঞ্চিত হোক সেটা চাইনি। যা সমস্যা ছিল সেটা মিটে গিয়েছে। ইস্টবেঙ্গল আইএসএলে খেলবে।''

আরও পড়ুন- ক্রীড়াপ্রেমীদের জন্য সুখবর, ভারতে আনলক ফোর-এ শুরু হচ্ছে খেলা, থাকতে পারবেন দর্শকরাও

স্পনসর জট কাটিয়ে আইএসএলে খেলার রাস্তা প্রশস্ত করে দেওয়ায় মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ইস্টবেঙ্গল সচিব কল্যাণ মজুমদার। এমনকী মুথ্যমন্ত্রীর এমন মানবিক উদ্যোগ মন জয় করেছে লাখো লাল-হলুদ সমর্থকের। বাংলার ফুটবলের স্বার্থে মুখ্যমন্ত্রীর এই উদ্যোগের প্রশংসা করেছে সব মহল। কোয়েস-এর সঙ্গে ক্লাব কর্তৃপক্ষের মনোমালিন্যের পর স্পনসর জট কিছুতেই কাটছিল না। ইস্টবেঙ্গলের আইএসএল খেলার মাঝে প্রধান বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল স্পনসর সমস্যা। সেই সমস্যা শেষমেশ কাটল।