close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

ভারত সুযোগই দিল না, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অধিনায়ক হয়ে আক্ষেপ সৌরভের

অতীতে মহারাষ্ট্রের সুনীল নাদকর্নি এবং হায়দরাবাদি ক্রিকেটার ইব্রাহিম খলিলও আমেরিকা ক্রিকেট দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন। তবে সৌরভের কাছে এমন একটা সুযোগ একেবারেই অপ্রত্যাশিত ছিল।

Sourav Paul | Updated: Nov 9, 2018, 03:39 PM IST
ভারত সুযোগই দিল না, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অধিনায়ক হয়ে আক্ষেপ সৌরভের

নিজস্ব প্রতিবেদন: একেই বোধহয় বলে ভাগ্যের ফের। কয়েক বছর আগেও যে স্বপ্নকে বাক্স বন্দি করে দেশ ছাড়তে হয়েছিল, সেই স্বপ্নই বাস্তবায়িত হতে চলেছে বিদেশের মাটিতে। কয়েকবছর আগেও ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্নকে জলাঞ্জলি দিয়ে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার গল্প বুনতে শুরু করেছিলেন মুম্বইয়ের সৌরভ নেত্রাভলকর। পাড়ি দিয়েছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এখন সেই দেশের ক্রিকেট দলকে নেতৃত্ব দিতে চলেছেন সৌরভ। হ্যাঁ, মার্কিন ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হতে চলেছেন এক ভারতীয় ইঞ্জিনিয়ার। 

আরও পড়ুন- ‘অন্যায়ভাবে কোহলিকে আক্রমণ করা হচ্ছে’, ‘দেশ ত্যাগ’ মন্তব্যে বিরাটের পাশেই কাইফ

মুম্বই নিবাসী ২৭ বছরের সৌরভ ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন দেখতেন, বড় হয়ে ক্রিকেটার হবেন তিনি। সেই মতো স্বপ্নের চারাগাছে সার জলও দিতেন। গাছ বাড়ছিল বেশ তরতরিয়ে। ভারতের হয়ে অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ (২০১০) খেলা থেকে দেশের হাইপ্রোফাইল টুর্নামেন্ট রঞ্জিতে অভিষেক, সবই ঠিকঠাক চলছিল। তবে গতিটা ছিল মন্থর। আর সেকারণেই নিজের ক্রিকেট কেরিয়ার নিয়ে ভয়ও হয়েছিল সৌরভের। আদৌ পারবেন তো? ভারতের মতো দেশে যেখানে প্রতিযোগিতা এতো বেশি, সেখানে একজন ফাস্ট বোলার আর কতটা পথই বা যেতে পারবে? এই সংশয় থেকেই ৬ ফুট দীর্ঘ সৌরভ ক্রিকেট ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেন। মনস্থ করেন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হবেন তিনি। সেই ভাবনা থেকেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি দেন তিনি। সেখানে কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কম্পিউটার সায়েন্স নিয়ে পড়াশুনাও করেন। সেই সৌরভের হাতেই জাতীয় ক্রিকেট দলের ব্যাটন তুলে দিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

আরও পড়ুন- লাগান-এর গোলি-র মতো অদ্ভুত ডেলিভারি এবার বাস্তবের ক্রিকেটে

অতীতে মহারাষ্ট্রের সুনীল নাদকর্নি এবং হায়দরাবাদি ক্রিকেটার ইব্রাহিম খলিলও মার্কিন ক্রিকেট দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন। তবে সৌরভের কাছে এমন একটা সুযোগ একেবারেই অপ্রত্যাশিত। সর্দার প্যাটেল ইউনিভার্সিটি অব টেকনলজি থেকে স্নাতক হয়েছেন। পরে কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পড়াশুনা। ইঞ্জিনিয়ারিং পেশাদার হওয়ার আগেই ফের ক্রিকেট মাঠে ফিরতে হল সৌরভকে। আক্ষেপ করে তিনি বলছেন, দেশে থাকাকালীন বছরের পর বছর ক্রিকেটকে সময় দিয়ে তিনি ব্যর্থ হয়েছেন। তাই রঞ্জিতে স্রেফ এক ম্যাচ খেলেই ক্রিকেটকে গুড বাই জানিয়েছিলেন। কিন্তু ঘুরে ফিরে আবার সেই একই কথা বলতে হচ্ছে, কোনও জিনিসকে মন থেকে চাইলে সেটা এক না একদিন হয়। সৌরভের ক্ষেত্রেও সেটাই হল। ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হল তাঁর। দেশের হয়ে খেলেত পারছেন না তো কি হয়েছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশে জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দেওয়া, সেটাও বা কম কীসের?