এ যেন রিপিট টেলিকাস্ট, গতবারের কোপা ফাইনালের পুনরাবৃত্তি এবারও!

এ যেন রিপিট টেলিকাস্ট। গতবারের কোপা ফাইনালের পুনরাবৃত্তি এবারও। রুদ্ধশ্বাস পেনাল্টিতে চিলির কাছে হেরে ফের রানার্স হয়ে মাঠ ছাড়তে হল আর্জেন্টিনাকে। স্নায়ুর লড়াইয়ে ভিদাল, ভার্গাসদের কাছে হার মানতে হল মেসি, মাসচেরানোদের। কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন হল চিলি। ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা নয়, লাতিন আমেরিকায় এখন চিলি যুগ শুরু।

Updated By: Jun 27, 2016, 08:11 PM IST
 এ যেন রিপিট টেলিকাস্ট, গতবারের কোপা ফাইনালের পুনরাবৃত্তি এবারও!

ওয়েব ডেস্ক: এ যেন রিপিট টেলিকাস্ট। গতবারের কোপা ফাইনালের পুনরাবৃত্তি এবারও। রুদ্ধশ্বাস পেনাল্টিতে চিলির কাছে হেরে ফের রানার্স হয়ে মাঠ ছাড়তে হল আর্জেন্টিনাকে। স্নায়ুর লড়াইয়ে ভিদাল, ভার্গাসদের কাছে হার মানতে হল মেসি, মাসচেরানোদের। কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়ন হল চিলি। ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা নয়, লাতিন আমেরিকায় এখন চিলি যুগ শুরু।

স্যান্টিয়াগোর পুনরাবৃত্তি মার্কিন মুলুকে। ২০১৫-র অ্যাকশন রিপ্লে শতবর্ষের কোপায়। রুদ্ধশ্বাস পেনাল্টি শুট আউটে আর্জেন্টিনাকে চার-দুই গোলে হারিয়ে ফের কোপা চ্যাম্পিয়ন চিলি। টানা তৃতীয়বার রানার্স হিসেবে মাঠ ছাড়তে হল আর্জেন্টিনাকে। দীর্ঘ তেইশ বছর আন্তর্জাতিক পর্যায় কোনও ট্রফি না জেতার রেকর্ড আরও দীর্ঘ হল নীলসাদা জার্সিধারীদের।স্ট্যাটেজির লড়াইয়ে টেক্কা দিয়ে ফের লাতিন সেরা চিলি। মেগা ফাইনালের শুরুতে অবশ্য দাপট ছিল মেসিদের খেলাতেই। চিলির গোলরক্ষক ব্রাভোকে একা পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হিগুয়েন। সেই সময় মেসিকে আটকাতে হিমশিম খাচ্ছিলেন চিলির ফুটবলাররা। প্রথমার্ধের মাঝামাঝি সময়ে ম্যাচে ফেরে পিজির দল। ভিদাল, ভার্গাসদের প্রেসিং ফুটবলের সামনে বারবার আটকে যাচ্ছিল আর্জেন্টিনা। অন্যদিকে স্যাঞ্চেজদের দৌড়গুলো চাপে ফেলে দিচ্ছিল মাসচেরানোদের। ফাইনালের প্রথমার্ধের শেষে অবশ্য নায়ক ব্রাজিলের রেফারি লোপেজ। চিলির দিয়াজ ও আর্জেন্টিনার লেফট ব্যাক রোহোকে লাল কার্ড দেখিয়ে মাঠ থেকে বের করে দেন তিনি। দুটো দলই দশজনে হয়ে যাওয়ায় আরও জমে ওঠে দ্বৈরথ। চোট কাটিয়ে মাঠে নামলেও ৫৭ মিনিটে বেশি মাঠে থাকতে পারেননি দি মারিয়া। হিগুয়েনের পরিবর্তে আগুয়েরোকে নামিয়ে দেন মার্টিনো। ম্যান সিটির স্ট্রাইকার গোল করার সহজ সুযোগ নষ্ট করেন। অন্যদিকে গতি বাড়াতে স্যাঞ্চেজ,ভার্গাসদের তুলে নেন পিজি। ডেডলক না ভাঙায় ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়। কোপার ফাইনালে তখন দুদলের লড়াইয়ে ট্যাকটিকসের ঝড় উঠেছিল। তবে পরাজিত করা যায়নি দুই গোলরক্ষক ব্রাভো, রোমেরোদের। নাটকীয় পেনাল্টির শুরুতেই ভিদালের শট বাঁচান রোমেরো। মেসি বাইরে মারতেই অ্যাডভান্টেজ হারায় আর্জেন্টিনা। বাকিটা সময় স্নায়ুর চাপ ধরে রাখতে সফল চিলির। পেনাল্টি মিস করেন বিগলিয়া। পঞ্চম শটে সিলভা গোল করতেই অন্ধকার নেমে এল আর্জেন্টিনা শিবিরে। বেঞ্চে বসে চিলির কোপা জয়ের সেলিব্রেশন দেখে কান্নায় ভেঙে পড়লেন এলএম টেন। আর্জেন্টিনা, ব্রাজিলকে পিছনে ফেরে এবার লাতিন আমেরিকার মুখ চিলি।