close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

বুমরা, ভুবিরা আইপিএল থেকে না তুলুক, বিরাটের প্রস্তাবে শোরগোল

আইপিএল-এর চিফ অপারেটিং অফিসার হেমাঙ্গ আমিনের সঙ্গে ইতিমধ্যে আলোচনা সেরেছে সিওএ।

Suman Majumder | Updated: Nov 8, 2018, 03:21 PM IST
বুমরা, ভুবিরা আইপিএল থেকে না তুলুক, বিরাটের প্রস্তাবে শোরগোল

নিজস্ব প্রতিনিধি : দেশ আগে নাকি ফ্রাঞ্চাইজি? দেশের স্বার্থ জড়িয়ে থাকলে বিরাট কোহলি আর কিছু নিয়ে ভাবতে নারাজ। সামনেই ২০১৯ বিশ্বকাপ। মেগাইভেন্ট-এর কথা মাথায় রেখে ইতিমধ্যে বিভিন্ন দেশ বিভিন্ন স্ট্র্যাটেজি সাজাতে শুরু করেছে। বিরাট কোহলিও তাই বিশ্বকাপের জন্য এখন থেকেই সজাগ। আর তাই এবার তিনি বোর্ডের সিওএ কমিটির কাছে নতুন প্রস্তাব পেশ করেছেন। ভারতীয় পেসারদের উদ্দেশে তিনি আর্জি জানিয়েছেন, এ বারের আইপিএল থেকে তাঁরা যেন নিজেদের সরিয়ে রাখেন। কারণ, সামনেই বিশ্বকাপ। তার আগে পেসারদের যথাযথ বিশ্রাম প্রয়োজন। না হলে ফিটনেসে সমস্যা হতে পারে। 

আরও পড়ুন-  আর কোনও ছবিতেই সই করছেন না অনুষ্কা! গুঞ্জন, বাবা হচ্ছেন বিরাট

৩০ মে থেকে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে শুরু হবে বিশ্বকাপ। ফাইনাল ১৪ জুলাই। ১২তম আইপিএল শেষ হওয়ার ১০ দিনের মধ্যেই শুরু হয়ে যাবে বিশ্বকাপ। অর্থাত্, যশপ্রীত বুমরা, ভুবনেশ্বর কুমারসহ বাকি পেসাররা আইপিএলে খেলার প্রায় সঙ্গে সঙ্গে বিশ্বকাপে নেমে পড়বেন। সেক্ষেত্রে ঠিকঠাক বিশ্রাম তাঁরা পাবেন না। আর এমন হলে পেসারদের পারফরম্যান্সে প্রভাব পড়তে পারে। বিরাট তাই কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স-এর সঙ্গে এক আলোচনায় নিজের এই প্রস্তাব পেশ করেছেন। যদিও বিরাট এমন কথা বলার পর থেকেই চারিদিকে শোরগোল পড়েছে। বিশেষত, আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজির কর্তারা বিরাটের এই প্রস্তাবে সায় দিচ্ছেন না। বিরাট অবশ্য আরও একটি প্রস্তাব রেখেছেন কমিটির সামনে। আইপিএল না খেললে ভারতীয় ক্রিকেটারদের যে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে তা যেন মিটিয়ে দেয় বোর্ড। কোহলির এমন প্রস্তাব মেনে নেওয়া হলে সব থেকে সমস্যা হবে মুম্বইয়ের। কারণ, যশপ্রীত বুমরা ও হার্দিক পাণ্ডিয়ার মতো দুই ভারতীয় পেসার রয়েছে তাদের দলে।

আরও পড়ুন-  ‘বিরাট ফেডেরারের ফ্যান, তাঁরও উচিত দেশ ছেড়ে চলে যাওয়া’

আইপিএল-এর চিফ অপারেটিং অফিসার হেমাঙ্গ আমিনের সঙ্গে ইতিমধ্যে আলোচনা সেরেছে সিওএ। হেমাঙ্গ জানিয়েছেন, এরকম সিদ্ধান্ত হলে প্লেয়ার ট্রান্সফার উইন্ডো শুরু হওয়ার আগে তা ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোকে জানাতে হবে। ১৫ নভেম্বর শেষ হয়ে যাবে ১২তম আইপিএল-এর প্লেয়ার ট্রান্সফার। ভারতীয় ক্রিকেট মহলের অনেকে পরামর্শ দিয়েছেন, আইপিএলের যে কোনও এক অর্ধে পেসারদের খেলতে দেওয়া হলে তাদের ক্লান্তির আশঙ্কা কমবে। অনেকে আবার ভারতীয় ব্যাটসম্যানদেরও এবারের আইপিএলে না খেলা নিয়ে সওয়াল তুলেছেন। ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা যেমন ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত আইপিএলে খেলার ছাড়পত্র পেয়েছেন। তার পর তাদের বিশ্বকাপ শিবিরে যোগ দিতে হবে। এমনই নির্দেশ দিয়েছে তাদের ক্রিকেট বোর্ড।