অলিম্পিকে সবথেকে কম বয়সে পদক জেতা মানুষটার বয়স জানেন?

Updated By: Jul 18, 2016, 07:16 PM IST
অলিম্পিকে সবথেকে কম বয়সে পদক জেতা মানুষটার বয়স জানেন?

স্বরূপ দত্ত

অলিম্পিক। দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ। এই বিশেষণটা বিশ্বজুড়ে চালু। কিন্তু এরকম একটা ক্লিশে বিশেষণ দিয়ে কি আর অলিম্পিককে এক বাক্যে প্রকাশ করা যায়? অলিম্পিক মানে আরও এনেক কিছু। অলিম্পিক বহু মানুষের জীবনের বেঁচে থাকার কারণ। একটা অলিম্পিকের জন্য চারটে বছরের, প্রতিটা মাস, প্রতিটা দিন, প্রতিটা ঘণ্টা, প্রতিটা মিনিট তো বটেই প্রতিটা সেকেণ্ড নিজেকে নিংড়ে দেন বিশ্বের কত কত খেলোয়াড়। খেলোয়াড়রা স্বপ্ন আঁকেন চোখে। আর সেই স্বপ্নপূরণ করে অলিম্পিকের আসরে গিয়ে। স্বপ্ন, বাস্তব করতে পারলে, গর্বের শিখরে। স্বপ্ন ভেঙে খানখান হয়ে গেলে, হতাশার আক্ষেপ সাগরে ডুবে যাওয়া। একটু দম নিয়ে ফের নিজেকে তৈরি করতে শেখা পরের চার বছরের অলিম্পিকটা স্মরণীয় করে রাখার জন্য।

আরও পড়ুন জানেন অলিম্পিকের প্রতীকে রিংগুলোর রঙ কেন ওই পাঁচটা হয়?

আর তো মাত্র কয়েকটা দিন। তারপরেই শুরু অলিম্পিক। তখন তো কত খবর পাবেন। তার আগে ছোট ছোট করে অলিম্পিকের কয়েকটা গল্প শুনেই নিন না। গল্পগুলো যদি আপনার জানা হয়, তাতে না হয় আরেকবার শুনলেন। এই গল্পগুলোই তো জীবনকে প্রেরণা দেয়। আর যাঁদের জানা নেই, তাঁরা ভাবুন, মানুষ সত্যিই চেষ্টা করলে কত কী পারে। তাহলে আপনিও কেন পারবেন না? নিজের জীবনের হতাশা কাটিয়ে সেরা হয়ে বাঁচতে গেলে, যদি কটা গল্প 'কিক'-এর কাজ করে, তাহলে আর মন্দ কোথায়?

প্রত্যেকটা প্রতিযোগিতা নিয়ে কথা বলতে গেলেই এমন একটা সময় আসে, যেখানে জিজ্ঞেস করা হয়, সবথেকে কম বয়সী কে? আসলে কম বয়স চিরকাল অন্যের ভালোবাসা পাওয়ার। তা সেই প্রেক্ষিতেই জিজ্ঞাসা করা, জানেন কি, অলিম্পিকের ইতিহাসে সবথেকে কম বয়সে পদক জেতার রেকর্ড কাঁর দখলে? পদক জেতার সময় তাঁর বয়সই বা কত ছিল? বলেই দিই। তাঁর বয়স পড়লে, একবার চোখ তুলে আপনাকে ভাবতেই হবে। অলিম্পিকে সবথেকে কম বয়সে পদক জেতার রেকর্ড দিমিত্রিওস লাউন্ড্রাসের। দিমিত্রিওস একজন গ্রিক জিমন্যাস্ট। তিনি যখন অলিম্পিকের মঞ্চ থেকে ব্রোঞ্জ পদক জিতছেন, তখন তাঁর বয়স ছিল, ১০ বছর ২১৮ দিন! হ্যাঁ, কোনও ভুল হয়নি লেখার সময়। আপনি ঠিকই পড়েছেন। ১০ বছর ২১৮ দিন! এই বয়সের কাউকে 'বালক' বলাটাই শ্রেয়।

বিশ্বের সবথেকে সম্মানজনক, কঠিন প্রতিযোগিতায় বাজিমাত করছে এক ১০ বছরের বালক! এমনটা অলিম্পিকের মঞ্চে ঘটে বলেই তো অলিম্পিক গ্রেটেস্ট শো অন দ্য আর্থ! দিমিত্রিওসের ঘটনাটা ঘটেছিল। ১৮৯৬ সালের এথেন্স অলিম্পিকের আসরে। পরবর্তীকালে দিমিত্রিওস গ্রিক নৌবাহিনীর বড় পদে কাজ করেছিলেন। আর দিমিত্রিওস ছিলেন তাঁর দেশের দলগত প্যারালাল বার ইভেন্টের প্রতিযোগী। ওই বয়সের কেউ একসঙ্গে এক জায়গায় এত মানুষকে জমায়েতে দেখারই সুযোগ পায় না। সেখানে সেই ১০ বছরের বালক, দুনিয়াকে থ করে দিয়েছিলেন! এবং, কী আশ্চর্য, ১২০ বছরের ইতিহাসে তাঁর এই রেকর্ড ভাঙতে পারল না কেউ! অবশ্য ১৯০০ সালের অলিম্পিকে দিমিত্রিওসের রেকর্ড ভাঙার সুযোগ এসেছিল আর এক বালকের সামনে। কারণ, সেবারের অলিম্পিকে ফরাসি রোয়িং দলে ছিলেন এক সাত বছরের বালক! যদিও দিমিত্রিওসের রেকর্ড ভাঙার সুযোগ থাকলেও, ব্যর্থ হয়েছিল সে। তাই ১৮৯৬ সালে এক এমন অসাধ্য সাধন করেছিলে সেই ছেলেটি, পরের ১২০ বছরে এই পৃথিবীর আর কেউ কাজটা করতে পারল না!

আরও পড়ুন বিশ্বজুড়ে পাড়ায় পাড়ায় জঙ্গিদাদের কোচিং সেন্টার চলছে!