Canning Domestic Violence: মহিলাদের সঙ্গে 'ঘনিষ্ঠতা'; কুপিয়ে, পুড়িয়ে, জলে ডুবিয়ে স্ত্রীকে 'খুন'-এর চেষ্টা স্বামীর

গোটা ঘটনায় স্তম্ভিত ধর্মতলার বাসিন্দারা

Updated By: Apr 14, 2022, 04:34 PM IST
Canning Domestic Violence: মহিলাদের সঙ্গে 'ঘনিষ্ঠতা'; কুপিয়ে, পুড়িয়ে, জলে ডুবিয়ে স্ত্রীকে 'খুন'-এর চেষ্টা স্বামীর

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের (Extra Marital Affairs) জেরে গৃহবধূকে ধারালো অস্ত্রের 'কোপ'। তাতেও মনের জ্বালা না মেটায়! আগুনে পুড়িয়ে এবং জলে চুবিয়ে মহিলাকে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল স্বামীর বিরুদ্ধে। গোটা ঘটনায় স্তম্ভিত ক্যানিং থানার অন্তর্গত গোপালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের আমতলা গ্রাম (Canning Domestic Violence)। 

ইতিমধ্যে ওই গৃহবধুর পরিবারের লোকজন ক্যানিং থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে ক্যানিং থানার পুলিস। স্থানীয় সূত্রে খবর, প্রায় পাঁচ বছর আগে ক্যানিংয়ের দাঁড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতে রোনিয়া গ্রামের বাসিন্দা হালিমা শেখের সঙ্গে, গোপালপুর পঞ্চায়েতের ধর্মতলার বাসিন্দা সাহাজামাল লস্করের বিয়ে হয়। দম্পতির একটা ছেলে ও একটা মেয়ে রয়েছে। অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই হালিমার উপর যৌতুকের জন্য চাপ দিত শ্বশুর বাড়ির লোকজন। দিনদিন সেই অত্যাচারের মাত্রা বাড়তে থাকে। এরমধ্যে বেশ কয়েকজন মহিলার সঙ্গে সাহাজামালের বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক (Extra Marital Affairs) গড়ে ওঠে। সেটা জেনে ফেলেন হালিমা। এই নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রতিনিয়ত অশান্তি হত।

এদিন তা মাত্রা ছাড়িয়ে যায়। অভিযোগ, প্রথমে হালিমাকে বেধড়ক মারধর করে তার স্বামী সাহাজামাল। পরে তাঁকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলায় ও মাথায় আঘাত করে। তাতেও স্বাদ না মেটায়, কেরোসিন তেল ঢেলে হালিমার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয় অভিযুক্ত। প্রাণ বাঁচানোর জন্য কোন ভাবে পালিয়ে ওই গৃহবধু পুকুরে ঝাঁপ দেন। অভিযোগ, এরপর হালিমাকে পুকুরের জলে চেুবিয়ে মারার চেষ্টা করে সাহাজামাল। প্রতিবেশীরা ঘটনাটি দেখতে পেলে সে পালিয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে গৃহবধুর বাপের বাড়িতে খবর দেওয়া হয়। 

এরপর মহিলা সমিতির সদস্যরা এবং আক্রান্ত গৃহবধুর বাপের বাড়ির লোকজন, তাঁকে নিয়ে তড়িঘড়ি ধর্মতলা গ্রামে হাজির হয়। ততক্ষণে ওই গৃহবধূর স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির লোকজন বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে গিয়েছে। মহিলা সমিতির সদস্যরা গৃহবধূকে নিয়ে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে যান। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন ওই গৃহবধূ। দোষীদের চরম শাস্তির দাবি জানিয়েছে গৃহবধূর বাপের বাড়ির লোকজন।

আরও পড়ুন: Diamond Harbour: হোটেলের ঘরে ঠাকুমা-নাতনি, বহু ডাকাডাকিতেও মেলেনি সাড়া, দরজা ভাঙতেই 'হাড়হিম' দৃশ্য

আরও পড়ুন: Hanskhali Rape Case: 'কোনও পুরোহিত মেলেনি', হাঁসখালির নির্যাতিতার পারলৌকিক ক্রিয়া হল না

(Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App)