একের পর এক বিতর্কিত মন্তব্য, গুলি নিদানে দিলীপের বিরুদ্ধে FIR দায়ের তৃণমূলের

তাঁর গুলি করে মারার নিদানের পরেই দলের অন্দরেও সমালোচনা শুরু হয়েছে। বাবুল সুপ্রিয় নিন্দা করেছেন। যদিও তাতেও দমবার পাত্র নন তিনি। ঘটনার ২৪ ঘণ্টা পেরোনোর আগেই আবারও বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন খড়্গপুরের বিজেপি সাংসদ।

Updated By: Jan 14, 2020, 04:06 PM IST
একের পর এক বিতর্কিত মন্তব্য, গুলি নিদানে দিলীপের বিরুদ্ধে FIR দায়ের তৃণমূলের

নিজস্ব প্রতিবেদন: গুলি নিদানে দিলীপের বিরুদ্ধে FIR দায়ের করল তৃণমূল। তাঁর বিতর্কিত মন্তব্যে ইতিমধ্যেই ঘরে বাইরে নিন্দার ঝড় উঠেছে। তবুও টনক নড়েনি তাঁর। বঙ্গবিজেপিতে সভাপতি বদলের আবহেই ফের বেলাগাম দিলীপ। একের পর এক মন্তব্যে ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য। 

আরও পড়ুন: আত্মপ্রকাশ করল 'উপাচার্য পরিষদ', সংগঠন গড়েই রাজ্যপালকে বিঁধলেন পদাধিকারিরা

রবিবার রানাঘাটে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ)-র সমর্থনে প্রচারে গিয়েছিলেন দিলীপ ঘোষ। সেই জনসভার মঞ্চ থেকেই হুঁশিয়ারি দেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, বলেন "সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করলে গুলি করে মারা উচিত। অসম -উত্তরপ্রদেশ-কনার্টকে করে দেখিয়েছে বিজেপি শাসিত সরকার। এখানেও সেটাই হওয়া উচিত।" 

তাঁর মন্তব্য, নাগরিকত্ব আইন বিরোধী আন্দোলনে পাঁচশো-ছয়শো কোটি টাকার সরকারি সম্পত্তির ক্ষতি করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই অসম, কর্নাটক, উত্তরপ্রদেশে যাঁরা এই কাজ করেছে তাদের গুলি করা হয়েছে। জেলে ভরা হয়েছে। এই রাজ্যে কাউকে গ্রেফতার পর্যন্ত করা হয়নি।" এরপরে ফের প্রকাশ্যে তাঁর হুমকি, আমরা এলে লাঠি মারব, গুলি করব, জেলে পাঠাব। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোনও ক্ষমতা নেই।" আর এতেই ক্ষুব্ধ ঘাসফুলের দল। 

আরও পড়ুন: সল্টলেকের বাড়িতে চিকিৎসকের রহস্য মৃত্যু, উদ্ধার দেহ

তাঁর গুলি করে মারার নিদানের পরেই দলের অন্দরেও সমালোচনা শুরু হয়েছে। বাবুল সুপ্রিয় নিন্দা করেছেন। যদিও তাতেও দমবার পাত্র নন তিনি। ঘটনার ২৪ ঘণ্টা পেরোনোর আগেই আবারও বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন খড়্গপুরের বিজেপি সাংসদ। "সব থেকে বড় দেশদ্রোহীদের গড় বাংলা"। গুলি করে মারার নিদানের পর ফের বিস্ফোরক মন্তব্য রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের। খড়্গপুরের CAA সমর্থনে বৈঠকে হাজির হয়ে এই মন্তব্য করেন তিনি। দিলীপ ঘোষের একের পর এক বিতর্কিত মন্তব্যে রীতিমতো জোর বিতর্ক তৈরি হয়ে রাজ্য রাজনীতিতে।