Puja 2021: নারায়ণগড়ের প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে ব্রোঞ্জের দুর্গা প্রতিমা যাচ্ছে হাওড়ায়, হবে না বিসর্জনও

এবারে প্রতিমার উচ্চতা হতে চলেছে প্রায় ১২ ফুট।

Edited By: সৌমিত্র সেন | Updated By: Sep 7, 2021, 05:45 PM IST
Puja 2021: নারায়ণগড়ের প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে ব্রোঞ্জের দুর্গা প্রতিমা যাচ্ছে হাওড়ায়, হবে না বিসর্জনও

ই গোপী

নারায়ণগড় ব্লকের প্রত্যন্ত বেনাডিহা গ্রাম থেকে ব্রোঞ্জের প্রতিমা যাচ্ছে হাওড়া শহরের রামকৃষ্ণ স্বামীজি স্মৃতিসঙ্ঘ ক্লাবে। প্রতিমা নির্মাণে নারায়ণগড় ব্লকেরই বেনাডিহা গ্রামের শিল্পী সুধীর মাইতি।

সুধীর মাইতি কর্মসূত্রে কলকাতায় থাকেন। কলকাতাতেই প্রতিমার কাজ করেন। কিন্তু এবার যেহেতু প্রতিমার আকৃতি তুলনামূলক ভাবে বড়, কাজ করতে গিয়ে স্থানসঙ্কট হতে পারে ভেবে শিল্পী তাঁর নিজের জন্মভিটেতেই তৈরি করছেন প্রতিমা। এবারে প্রতিমার উচ্চতা  হতে চলেছে প্রায় ১২ ফুট।

আরও পড়ুন: Puja 2021: মল্লরাজাদের সহায়তায় ভাগ্য ফিরল মুচিরামের; শুরু করলেন দুর্গাপুজো

প্রতিমাশিল্পী হিসেবে সুধীরের তৈরি দুর্গা জেলা থেকে শহর-- সমাদৃত সব জায়গাতেই। অতিমারীর কারণে শিল্পীরা সঙ্কটে পড়েছিলেন গতবার। তবে এবছর শিল্পীরা প্রতিমা গড়ার কাজ পাচ্ছেন। বিগত বছরগুলির তুলনায় এবছর অনেক বেশি প্রতিমা গড়ার বরাদ্দ পেয়েছেন শিল্পী। তাই প্রায় দু'মাস আগেই মূর্তি গড়ার কাজ শুরু করে দিয়েছেন সুধীরও।

প্রথাগত মেটিরিয়াল দিয়েই সচরাচর প্রতিমা তৈরি করেন সুধীর। তবে এবার একটু সরে এসেছেন তিনি। এবার প্রতিমার গায়ে ব্রোঞ্জের প্রলেপ দিচ্ছেন। গত পাঁচ বছরে তিনি যেসব প্রতিমা তৈরি করেছেন তার বেশিরভাগই সাবেকিয়ানার। এবারও এক কাঠামোয় থাকছে ব্রোঞ্জের দুর্গাপ্রতিমা-সহ ব্রোঞ্জেরই লক্ষ্মী, গণেশ, কার্তিক, সরস্বতী।

সুধীর জানান, তাঁর কাছে দুর্গা প্রতিমা বানানোর প্রস্তাব এলে উদ্যোক্তাদের তিনি জানিয়ে দেন, তাঁর বানানো প্রতিমার ভাসান দেওয়া যাবে না। ভাসান হলে তিনি প্রতিমা বানাবেন না। তাঁর প্রতিমা যাতে সংরক্ষণ করা হয় কর্তৃপক্ষকে সেই অনুরোধ জানান তিনি। তাঁরা এতে সম্মতও হন। গত ৫ বছর ধরেই তিনি যে দুর্গাপ্রতিমাগুলি বানাচ্ছেন সেগুলি সংরক্ষণ করা হচ্ছে।

(Zee 24 Ghanta App : দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App)

আরও পড়ুন: Puja 2021: দত্ত-মুন্সিদের এই পুজো দেখতে আসতেন কথাশিল্পী শরৎচন্দ্রও!