পশ্চিমবঙ্গে প্রতিটি বুথে ভোটগ্রহণ হবে সশস্ত্র বাহিনীর পাহারায়, জানাল নির্বাচন কমিশন

লাগাতার আন্দোলনের মুখে সোমবার অবশেষে মুখ খুলল কমিশন। কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, ভোটগ্রহণের দিন ভোটকর্মীদের নিরাপত্তাকে সব থেকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে কমিশন। লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে প্রতিটি বুথে থাকবে সশস্ত্র বাহিনী। 

Updated By: Apr 8, 2019, 06:18 PM IST
পশ্চিমবঙ্গে প্রতিটি বুথে ভোটগ্রহণ হবে সশস্ত্র বাহিনীর পাহারায়, জানাল নির্বাচন কমিশন

নিজস্ব প্রতিবেদন: লোকসভা নির্বাচনে প্রতি বুথে থাকবে সশস্ত্র বাহিনী। ভোটকর্মীদের আশ্বস্ত করে সোমবার একথা ঘোষণা করল নির্বাচন কমিশন। তবে প্রতি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকবে কি না তা নিয়ে এদিনও কোনও প্রতিশ্রুতি দেয়নি তারা। কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, ভোটকর্মীদের নিরাপত্তার জন্য যাবতীয় ব্যবস্থা করবে কমিশন। 

 

লোকসভা নির্বাচন ২০১৯-এ প্রতি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবিতে প্রশিক্ষণ বয়কট করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন সরকারি কর্মচারীরা। কেন্দ্রীয় বাহিনীর নিরাপত্তা না পেলে ভোটকেন্দ্রে তাঁদের প্রাণের ঝুঁকি হতে পারে বলে আশঙ্কা তাদের। গত কয়েকদিন ধরে উত্তরবঙ্গের একাধিক প্রশিক্ষাণ কেন্দ্রে প্রশিক্ষণ বয়কট করেছেন ভোটকর্মীরা। 

ভোটকর্মীদের তরফে জানানো হয়েছে, পঞ্চায়েত নির্বাচনের ভোটগ্রহণের দিন উত্তর দিনাজপুরের ইটাহারে প্রাণ গিয়েছিল শিক্ষক রাজকুমার রায়ের। অভিযোগ, তাঁকে তুলে নিয়ে গিয়ে খুন করেছিল তৃণমূল। তাই কেন্দ্রীয় বাহিনীর নিরাপত্তা ছাড়া ভোট নয়।'

লাগাতার আন্দোলনের মুখে সোমবার অবশেষে মুখ খুলল কমিশন। কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, ভোটগ্রহণের দিন ভোটকর্মীদের নিরাপত্তাকে সব থেকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে কমিশন। লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে প্রতিটি বুথে থাকবে সশস্ত্র বাহিনী। তবে প্রতি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকবে কি না সেব্যাপারে কিছু জানায়নি তারা। 

শুল্ক দফতরে অভিষেকের স্ত্রীর হাজিরায় স্থগিতাদেশ কলকাতা হাইকোর্টের

ওদিকে সোমবার জলপাইগুড়িতে বিক্ষোভরত ভোটকর্মীদের সঙ্গে দেখা করেন পুলিস সুপার অমিতাভ মাইতি। ভোটকর্মীদের প্রশিক্ষণে যোগ দিতে অনুরোধ করেন তিনি। জেলাশাসক শিল্পা গৌরিসারিয়া জানিয়েছেন, ভোটকর্মীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সাধ্যমতো চেষ্টা চলছে। 

কমিশন সূত্রের খবর, প্রথম দফায় পশ্চিমবঙ্গে ২ কেন্দ্রের ভোটগ্রহণে নামানো হবে ১০৪ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। যা ওই ২ কেন্দ্রের বুথের সংখ্যার প্রায় ৩ গুণ। ফলে প্রতি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করতে সমস্যা হওয়ার কথা নয় কমিশনের।