রাজ্যজুড়ে কনটেইন্টমেন জোনে জারি লকডাউন, সব জায়গায় তৎপর প্রশাসন

রাজ্যে করোনা সংক্রমণ রুখতে কলকাতা সহ রাজ্যের প্রতি জেলার কনটেইন্টমেন্ট জোনগুলিতে বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টা থেকে শুরু হল কঠোর লকডাউন। এক ঝলকে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গার লকডাউনের ছবিটা-

Edited By: অধীর রায় | Updated By: Jul 9, 2020, 11:07 PM IST
রাজ্যজুড়ে কনটেইন্টমেন জোনে জারি লকডাউন, সব জায়গায় তৎপর প্রশাসন
নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন : রাজ্যে করোনা সংক্রমণ রুখতে কলকাতা সহ রাজ্যের প্রতি জেলার কনটেইন্টমেন্ট জোনগুলিতে বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টা থেকে শুরু হল কঠোর লকডাউন। এক ঝলকে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গার লকডাউনের ছবিটা-
** হাবড়া--
হাবরা পৌরসভার চারটি ওয়ার্ড কনটেইন্টমেন্ট  জোন ঘোষনা করা হয়েছে । এই এলাকার ৬০ মিটার দূর থেকে বাঁশের দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছে । পুলিস ওই এলাকায় মাইকিং করে সরকারি নির্দেশিকা জানিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি মাস্ক এবং স্যানেটাইজার ব্যবহার করতে  বলছে ।
 **  অশোকনগর--
অশোকনগর পাঁচটি ওয়ার্ডে কনটেইন্টমেন্ট জোন করা হয়েছে । সেই এলাকায় জরুরি পরিষেবা ছাড়া সবকিছু বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে । এলাকা বাঁশ দিয়ে ঘিরে যাতায়াতে লাগাম টেনেছে । 
** ভাটপাড়া--
ভাটাপাড়া পুরসভার ৩৫টি ওয়ার্ডকে কনটেইন্টমেন্ট জোন ঘোষনা করা হয়েছে। ওষুধ এবং দুধের দোকান ছাড়া সব দোকানপাট বন্ধ । এলাকাগুলোতে বাঁশের ব্যারিকেড করে দেওয়া হয়েছে ।  সবজি বাজার সকালে ছয়টা থেকে দুপুর ২টা অবধি খোলা থাকবে। এরপরে বন্ধ থাকবে।খোলা থাকবে দুধের দোকান,ওষুধের দোকান।
** বারাকপুর--
বিকেল পাঁচটা বাজতেই লকডাউন মানাতে কড়া নজরদারি চালায় বারাকপুর সিটি পুলিস। বরানগর থেকে বারাকপুর গোটা এলাকা জুড়ে পুলিস, কনটেইন্টমেন্ট জোনের সব দোকান বন্ধ করে দেয় পুলিস।
** উত্তর দিনাজপুর--
 উত্তর দিনাজপুরের চাকুলিয়া থানা এলাকায় কনটেইন্টমেন্ট  জোনে সক্রিয় ভুমিকায় দেখা গেল পুলিসকে। কনটেইন্টমেন্ট  জোনে দোকান, অফিস বন্ধ করিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে যাওয়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে পুলিস । 

** বারাসত--
পাঁচটা বাজতেই বারাসতের বিভিন্ন এলাকা আটকে দেয় পুলিস। উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার বারাসাতের বিভিন্ন অঞ্চলে লকডাউন ঘোষণা আগেই করা হয়েছিল। জেলা স্বাস্থ্য দফতর থেকে নির্দেশিকা পাওয়ার পর থেকে বারাসাত পৌরসভার ১০ টি করোনাভাইরাস সংক্রামিত অঞ্চলে বাঁশ দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে বারাসত পৌরসভার ৫,৭,৯,১৩,১৪,১৬,২৩,২৪,২৫,৩০ নম্বর ওয়ার্ডগুলিতে এই বাঁশের খুঁটি পুঁতে ব্যারিকেড তৈরি করে দেওয়া হয়। 
** হুগলি--
বেলা পাঁচটা বাজতেই সক্রিয় হুগলির পুলিস প্রশাসন। হুগলিতে ২১টি কন্টেইনমেন্ট জোন করা হয়েছে ।এই জেলার মীর্জাপুর-বাঁকিপুরে কয়েকটি গ্রামকে এই তালিকায় আনা  হয়েছে। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে দোকান ও বাজার। পুলিস গার্ডওয়াল দিয়ে এলাকা সিল করে দিয়েছে। শ্রীরামপুর পুরসভার তিন নং ওয়ার্ড গোয়ালাপাড়া কনটেইন্টমেন্ট জোনে লকডাউন কেমন চলছে দেখতে আসেন চন্দননগর পুলিশ কমিশনার হুমায়ুন কবীর। লকডাউন শুরু হতেই পুরোপুরি বন্ধের চেহারা নেয় কনটেইন্টমেন্ট জোনগুলি।
**  বসিরহাট ও টাকি--
বসিরহাট ও টাকি পুরসভার তিনটি করে ওয়ার্ড ,বসিরহাট ১এবং২ নম্বর  ব্লক ,হাসনাবাদ, মিনাখার বামনপুকুর  সহ কয়েকটি জায়গায় কনটেইন্টমেন্ট জোন চিহ্নিত করে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। এলাকায় ব্যারিকেড করে দেওয়া হয়েছে । চলছে পুলিসের টহল ।
** উত্তর দিনাজপুর--
উত্তর দিনাজপুর জেলার ২৮টি কনটেইন্টমেন্ট জোনের ১৫টাই ডালখোলা পুরসভা এলাকায়। বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে এই এলাকাগুলোকে ঘিরে দেওয়া হয় । ডালখোলা শহরের ওপর দিয়ে ৩৪ নং জাতীয় সড়ক চলে গেছে। সেই জাতীয় সড়ককে ছাড় দেওয়া হয়েছে । তবে দোকানপাট বন্ধ । মানুষও কাজ সেরে বিকেল পাঁচটার আগেই ঘরে ঢুকে গেছে । 
**  চন্দননগর--
নতুন করে যে কনটেইন্টমেন্ট  এলাকা ঘোষণা করা হয়েছে তার মধ্যে চন্দননগর কর্পোরেশন এর চারটি ওয়ার্ড । বিকেল পাঁচটা থেকে এই এলাকা গুলি সম্পূর্ণরূপে সিল করে দেয়া হবে। ওই এলাকার মানুষদের যা যা প্রয়োজন হবে পুরসভা ও প্রশাসনের তরফ থেকে বাড়িতে পৌঁছে দেয়া হবে।এবার  লকডাউন এলাকায় কড়া পুলিসি নজরদারি রাখা হয়েছে ।

** শিলিগুড়ি--
শিলিগুড়ি কর্পোরেশনের ৯টি ওয়ার্ডে লকডাউন ।কনটেইন্টমেন্ট জোনে সম্পূর্ণভাবে বন্ধ সরকারি , বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং সমস্ত দোকানপাট । লকডাউন এলাকায় প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি পৌঁছে দেবে স্থানীয় প্রশাসন ।
** হাওড়া--
নতুন করে লকডাউনে হাওড়া জেলার ৫৬ টি এলাকা কনটেইন্টমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।সকাল থেকে রাস্তায় নেমেছে পুলিস ।কয়েকটি জায়গা ব্যারিকেড করা হয়েছে।বাইরের লোকজনকে ভিতরে প্রবেশ করতে দেওয়া হয় নি।  মাস্ক পরার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 
** মুর্শিদাবাদ--
মুর্শিদাবাদ জেলায় চারটি কনটেইন্টমেন্ট জোন । এলাকায় ব্যারিকে়ড । সবকিছু বন্ধ ।সব জায়গায় চলছে পুলিসের টহলদারি.। 
**  নদীয়া--
নদীয়ার কল্যাণী পৌরসভার ৭ এবং ১৭ নম্বর ওয়ার্ডকে কনটেইন্টমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।  সকাল থেকেই ওই দুটি ওয়ার্ডে একেবারেই লোক চলাচল প্রায় বন্ধ করে দিয়েছিল । বাইরের যাতে কেউ ঢুকতে না পারে তারজন্য চলছে পুলিসের টহলদারি ।
**  মালদা--
মালদা জেলায় ৭১টি কনটেইন্টমেন্ট এলাকা করা হয়েছে। এর মধ্যে ইংরেজবাজার পুর এলাকার সাতটি ও পুরাতন মালদার পাঁচটি পুর এলাকা তালিকায় রয়েছে। পুলিসের নজরদারিতে চলছে সবকিছু । বিকেল থেকে এলাকায় যেন শ্মশানের নিস্তব্ধতা । 

সব মিলিয়ে শক্ত হাতে  এবারের লকডাউন সফল করতে নেমেছে রাজ্য প্রশাসন । আরও পড়ুন, একদিনে হাজার! রাজ্যে রেকর্ড সংখ্যক সংক্রমণ, ২৪ ঘণ্টায় মৃত ২৭