ফাঁকা কামরায় অভিনেত্রীকে জড়িয়ে ধরে আরপিএফ কনস্টেবল! রাতের নামখানা লোকালে বিভীষিকাময় অভিজ্ঞতা

তাঁকে জোর করে মদ ও সিগারেট খাওয়ানোর চেষ্টা করেন অভিযুক্ত। কুপ্রস্তাবও দেন।

Updated By: Sep 6, 2019, 12:35 PM IST
ফাঁকা কামরায় অভিনেত্রীকে জড়িয়ে ধরে আরপিএফ কনস্টেবল! রাতের নামখানা লোকালে বিভীষিকাময় অভিজ্ঞতা

নিজস্ব প্রতিবেদন : রক্ষকই ভক্ষক। ট্রেনের মধ্যে উঠতি অভিনেত্রীর শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ উঠল আরপিএফের কনস্টেবলের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, ওই কনস্টেবল মত্ত অবস্থায় ছিলেন। নির্যাতিতার অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযুক্ত কনস্টেবলকে। ধৃতের নাম সমরেশ মণ্ডল।

জানা গিয়েছে, শুক্রবার রাতে নামখানা থেকে ট্রেন ধরে বাড়ি ফিরছিলেন ওই যুবতী। সোনারপুরে তাঁর বাড়ি। নামখানা থেকে রাত ৮টা ৪৬ মিনিটে ট্রেনে চাপেন তিনি। সেটাই ছিল শেষ নামখানা লোকাল। জেনারেল কামরাতেই উঠেছিলেন ওই যুবতী। এরপর ট্রেনটি লক্ষ্মীকান্তপুর ঢুকলে, অভিযুক্ত আরপিএফের কনস্টেবল তাঁকে মহিলা কামরায় যেতে বলেন বলে অভিযোগ। নিরাপত্তার নামে তাঁকে মহিলা কামরায় যাওয়ার কথা বলেন ধৃত নাম সমরেশ মণ্ডল।

অভিযোগ, তিনি মহিলা কামরায় যাওয়ার পর তাঁর পিছু পিছু ওই কনস্টেবলও যান। এদিকে রাত হয়ে যাওয়ায় মহিলা কামরা ফাঁকা ছিল। আর সেই ফাঁকা কামরাতেই অভিযুক্ত সমরেশ মণ্ডল তাঁর শ্লীলতাহানি করেন। ফাঁকা কামরায় ওই যুবতীকে জড়িয়ে ধরেন অভিযুক্ত কনস্টেবল। তাঁকে জোর করে মদ ও সিগারেট খাওয়ানোর চেষ্টা করেন। কুপ্রস্তাবও দেন তাঁকে। অভিযুক্ত সমরেশ মণ্ডল নিজেও মত্ত অবস্থায় ছিলেন বলে অভিযোগ নির্যাতিতার।

আরও পড়ুন, ছাত্রীদের আপত্তিকরভাবে স্পর্শের অভিযোগ! বেত নেই তাই হাত দিয়েই মারধর, দাবি শিক্ষকের

আরও অভিযোগ, গোটা রাস্তাটা অভিযুক্ত কনস্টেবল তাঁকে উত্যক্ত করতে থাকে। বারুইপুর পর্যন্ত ওই যুবতীকে উত্যক্ত করে যায় অভিযুক্ত। এরপর রাত্রি প্রায় সাড়ে ১১টা নাগাদ সোনারপুরে নামেন নির্যাতিতা। সেখানে নেমে সোনারপুর জিআরপিতে অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। ঘটনার তদন্তে নেমে আরপিএফ কনস্টেবল সমরেশ মন্ডলকে গ্রেফতার করে সোনারপুর জিআরপি।