close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

আজ কৃষ্ণনগরে অভিষেক, মতুয়া সংঘের প্রতিনিধি দল, বিধায়ক খুনে এখনও সূত্র অধরা

বিধায়ক খুনের প্রতিবাদে  সোমবার সকালে  রানাঘাট গেঁদে শাখায় রেল অবরোধ করে তৃণমূল। অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তির দাবিতে ভায়না স্টেশনে অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা।

Updated: Feb 11, 2019, 10:59 AM IST
আজ কৃষ্ণনগরে অভিষেক, মতুয়া সংঘের প্রতিনিধি দল,   বিধায়ক খুনে এখনও সূত্র অধরা

নিজস্ব প্রতিবেদন: কেটে গিয়েছে দুদিন।  বিধায়ক খুনে এখনও থমথমে কৃষ্ণগঞ্জের হাঁসখালি। বিধায়ক সত্যজিত্‍ বিশ্বাসের বাড়িতে কান্নার রোল। স্বামীকে এভাবে চলে যেতে হবে, কিছুতেই মানতে পারছেন না বিধায়কের স্ত্রী রূপালী। খুনের জন্য সরাসরি বিজেপির দিকেই আঙুল।

বিধায়ক খুনে অভিযুক্তদের কড়া শাস্তির দাবিতে আন্দোলন আরও জোরালো করতে চায় তৃণমূল। সোমবার হাঁসখালি যাচ্ছেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। হাঁসখালি যাচ্ছে মতুয়া সংঘের প্রতিনিধি দলও।

আরও পড়ুন: বিধায়ক খুনে ওসি ও দেহরক্ষীর বিরুদ্ধে বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ

বিধায়ক খুনের প্রতিবাদে  সোমবার সকালে  রানাঘাট গেঁদে শাখায় রেল অবরোধ করে তৃণমূল। অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তির দাবিতে ভায়না স্টেশনে অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা। প্রায় ৪৫ মিনিট ধরে চলে বিক্ষোভ, অবরোধ। রানাঘাট গেঁদে শাখার একাধিক ট্রেন দাঁড়িয়ে যায়। পরে পুলিসি প্রতিশ্রুতিতে অবরোধ ওঠে।

এদিকে, বিধায়ক খুনে পুলিসের ভূমিকা নিয়ে উঠে আসছে একাধিক প্রশ্ন। ফুলবাড়ির ফুটবল ময়দানে সরস্বতী পুজোর আয়োজন করেছিল ‘আমরা সবাই’ ক্লাব। সেখানে বিধায়ক নিজে উপস্থিত ছিলেন ‘পাড়ার দাদা’ হিসাবে। উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী রত্না কর ঘোষও। মন্ত্রী যে অনুষ্ঠানে উপস্থিত, সেখানে কীভাবে নিরাপত্তা ব্যবস্থা এত হালকা ছিল, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

আরও পড়ুন, ফুচকা নিয়ে আর বাড়ি ফেরেনি স্বামী! বিধায়ক খুনে বিজেপির দিকেই অভিযোগের আঙুল স্ত্রীর

জানা গিয়েছে, সত্যজিতের দেহরক্ষী তাঁর ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে সেদিন ছুটি নিয়েছিলেন। তাঁর কোনও এক আত্মীয়ের মৃত্যু হয়েছে বলে নিজের বাড়িতে গিয়েছিলেন দেহরক্ষী। এক্ষেত্রে বিধায়কের দেহরক্ষী ছুটি নিলে, তা আগে থেকেই থানায় জানাতে হয়। কিন্তু তিনি তেমনটা করেননি। তা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে।

হাঁসথালি থানার ওসি অনিন্দ্য বোসের বিরুদ্ধে বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হল। পাশাপাশি বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বিধায়ক সত্যজিত বিশ্বাসের দেহরক্ষী প্রভাস মণ্ডলের বিরুদ্ধেও।