হাওড়া স্টেশনের কাছে গঙ্গার পাড় ঘেঁসা হোটেলগুলির জল খেলে জীবন বিপন্ন হতে পারে

জলের আরেক নাম জীবন।  কিন্তু হাওড়া স্টেশনের কাছে গাঙ্গার পাড় ঘেঁসে যে হোটেলগুলি আছে সেখানে জল খেলে জীবন বিপন্ন হতে পারে। অভিযোগ, গঙ্গায় পাইপ ফেলে মেশিনে জল তুলে হোটেল গুলিতে পরিবেশন করা হয়।প্রতিদিন হাজারে হাজারে মানুষ ট্রেন থেকে নামেন। স্টেশনের পাশেই গঙ্গার পার ঘেঁসে একের পর এক হোটেল। দিন-রাত হাঁকডাক। যেন অন্নপূর্ণার অপার ভাণ্ডার। আপনিও--নিশ্চই এই হোটেলেগুলিতে খেয়েছেন বা খান। সর্বনাশ। খাবারের মান নিয়ে প্রশ্ন দূরে থাক।  যে জল দেওয়া হয় তাও ভয়াবহ। অভিযোগ গঙ্গার থেকে পাইপে করে জল তুলে সেই জলই পরিবেশন করা হয়।হোটেলের জল খাননি , আলাদা করে সিল্ড বোতল কিনেছেন? সেখানেও যে জালিয়াতি নেই তাও বুক ঠুকে বলে কে। তবে সিল্ড বোতল আর কটা লোক কেনেন। বেশির ভাগই প্রায় খেতে বসে গ্লাসে দেওয়া জল খান। আর সবক্ষেত্রেই ভরসা সেই  গঙ্গা। ঘিনঘিনে নোংরা পাঁকের ওপর পাইপ ফেলে গঙ্গার তীর থেকে মোটরে করে জল তোলা হচ্ছে। জল চলে যাচ্ছে হোটেলের রান্নাঘরে। সেই জলেই রান্না, বাসন ধোয়া। হ্যাঁ এই জলই অনেক হোটেলে পানীয় জল। তবে কেউ কেউ  জলের দূষণ নষ্ট করতে ফিটকারি মেশান ড্রামে। তাও মাঝে মধ্যে।

Updated By: May 7, 2017, 10:11 PM IST
হাওড়া স্টেশনের কাছে গঙ্গার পাড় ঘেঁসা হোটেলগুলির জল খেলে জীবন বিপন্ন হতে পারে

ওয়েব ডেস্ক: জলের আরেক নাম জীবন।  কিন্তু হাওড়া স্টেশনের কাছে গাঙ্গার পাড় ঘেঁসে যে হোটেলগুলি আছে সেখানে জল খেলে জীবন বিপন্ন হতে পারে। অভিযোগ, গঙ্গায় পাইপ ফেলে মেশিনে জল তুলে হোটেল গুলিতে পরিবেশন করা হয়।প্রতিদিন হাজারে হাজারে মানুষ ট্রেন থেকে নামেন। স্টেশনের পাশেই গঙ্গার পার ঘেঁসে একের পর এক হোটেল। দিন-রাত হাঁকডাক। যেন অন্নপূর্ণার অপার ভাণ্ডার। আপনিও--নিশ্চই এই হোটেলেগুলিতে খেয়েছেন বা খান। সর্বনাশ। খাবারের মান নিয়ে প্রশ্ন দূরে থাক।  যে জল দেওয়া হয় তাও ভয়াবহ। অভিযোগ গঙ্গার থেকে পাইপে করে জল তুলে সেই জলই পরিবেশন করা হয়।হোটেলের জল খাননি , আলাদা করে সিল্ড বোতল কিনেছেন? সেখানেও যে জালিয়াতি নেই তাও বুক ঠুকে বলে কে। তবে সিল্ড বোতল আর কটা লোক কেনেন। বেশির ভাগই প্রায় খেতে বসে গ্লাসে দেওয়া জল খান। আর সবক্ষেত্রেই ভরসা সেই  গঙ্গা। ঘিনঘিনে নোংরা পাঁকের ওপর পাইপ ফেলে গঙ্গার তীর থেকে মোটরে করে জল তোলা হচ্ছে। জল চলে যাচ্ছে হোটেলের রান্নাঘরে। সেই জলেই রান্না, বাসন ধোয়া। হ্যাঁ এই জলই অনেক হোটেলে পানীয় জল। তবে কেউ কেউ  জলের দূষণ নষ্ট করতে ফিটকারি মেশান ড্রামে। তাও মাঝে মধ্যে।

আরও পড়ুন ১৪ মে আসছে দিন, পুরসভার ভোট দিন

হোটেলের মালিক কর্মীরা অবশ্য বলছেন, তাদের জল বেশ ভাল। গঙ্গার জল নয় জলের অন্য ব্যবস্থা আছে। নড়েচড়ে বসেছে হাওড়া পুরসভা। পুরসভার তরফে হোটেলগুলি থেকে জলের নমুনা নেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে অবিলম্বে বিশুদ্ধ পানীয় জলের ব্যবস্থা করতে, এখন দেখার অবস্থা কবে পাল্টায়।

আরও পড়ুন  অবশেষে ধরা পড়ল বিশ্বভারতীর ভূত, পুলিস নয়, ভূত ধরে দিলেন এলাকাবাসী