বাংলাদেশে বন্ধ হচ্ছে একের পর এক যৌনপল্লী

  বাংলাদেশের প্রাচীনতম যৌনপল্লী- কান্দাপারা ব্রথেল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বছর দুয়েক আগেই। স্থানীয় সুশীল সমাজ ও মুসলিম ধর্মগুরুদের প্রতিবাদের মুখে টাঙ্গাইল শহরের ২০০ বছরের পুরানো ৭৫০ যৌনকর্মীর এই যৌনপল্লীকে গুটিয়ে নিতে হয়েছে তার ব্যবসা। যৌনপল্লীটি যে বাড়িতে চলত তার মালিক রাতারাতি নোটিশ জারি করে উত্খাত করে দেয় সকলকে।

Updated By: Sep 4, 2016, 02:26 PM IST
বাংলাদেশে বন্ধ হচ্ছে একের পর এক যৌনপল্লী

ওয়েব ডেস্ক:  বাংলাদেশের প্রাচীনতম যৌনপল্লী- কান্দাপারা ব্রথেল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বছর দুয়েক আগেই। স্থানীয় সুশীল সমাজ ও মুসলিম ধর্মগুরুদের প্রতিবাদের মুখে টাঙ্গাইল শহরের ২০০ বছরের পুরানো ৭৫০ যৌনকর্মীর এই যৌনপল্লীকে গুটিয়ে নিতে হয়েছে তার ব্যবসা। যৌনপল্লীটি যে বাড়িতে চলত তার মালিক রাতারাতি নোটিশ জারি করে উত্খাত করে দেয় সকলকে।

কান্দাপারা যৌনপল্লীর যৌন কর্মীদের একটি দলের প্রধান মনোয়ারা বেগম অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয় মেয়র ও ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধে। মনোয়ারার কথায়, তাঁদের কার্যত হুমকি দিয়ে পেশা ছেড়ে রাস্তায় দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেছেন যে, অনেক যৌনকর্মীরই সম্পত্তি (টিভি, ফ্রিজ, আসবাবপত্র) লুঠ করে নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন- ফাঁসি হয়ে গেল জামাত নেতা মীর কাসেমের

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে দেহব্যবসা বেআইনি হলেও বহুকাল ধরেই সেদেশের সরকার বেশ কিছু যৌনপল্লীকে রেয়াত করে গিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। সাম্প্রতিক কালে সামাজিক আন্দলনের ফলে দেশ জুড়ে বেশ কিছু যৌনপল্লী বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে যার মধ্যে অন্যতম সেদেশের বৃহত্তম যৌনপল্লী - 'টানবাজার'।

আরও পড়ুন- কাসেমের সম্পদের পরিমাণ ১২ হাজার কোটি টাকা