রুশ ভ্যাকসিনের ট্রায়ালের ভিডিয়োয় পুতিনের মেয়ে? জানুন আসল সত্যিটা

জনসাধারণের মধ্যে ভ্যাকসিনের বিষয়ে ভয় কাটাতে প্রথম ডোজ দেওয়া হয় পুতিন কন্যাকেই। পুতিন জানান, ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসাবে সামান্য জ্বর এলেও সঙ্গে সঙ্গে তা সেরে গিয়েছে। যদিও বড় না ছোট মেয়ে- তা তিনি উল্লেখ করেননি।

Updated By: Aug 12, 2020, 11:35 AM IST
রুশ ভ্যাকসিনের ট্রায়ালের ভিডিয়োয় পুতিনের মেয়ে? জানুন আসল সত্যিটা
ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন : মঙ্গলবার বিশ্বের প্রথম রেজিস্টার্ড করোনা ভ্যাকসিন ঘোষণা করল রাশিয়া। আর তার প্রথম ডোজ দেওয়া তাঁর মেয়েকেই দেওয়া হয়েছে বলে জানান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। আর সেই ঘোষণা কেন্দ্র করেই আরও একবার গুজবের ঝড় উঠল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

পুতিনের ঘোষণার সামান্য পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে একটি ভিডিয়ো। ভিডিয়োটি পোস্টকারীরা দাবি করেন, মাস্ক পরে টিকা নেওয়া মহিলা আসলে পুতিন-কন্যা। 

নিমেষে ভাইরাল হয়ে যায় এই ভিডিয়ো। আর সোশ্যাল মিডিয়ায় বিশেষত ভারতে, যাচাই না করে রিপোস্ট ও শেয়ারের হিড়িক খুবই সাধারণ বিষয়। আর তার জেরেই ছড়াতে থাকে এই ভিডিয়ো। 

কিন্তু সত্যিই কি ভিডিয়োর মেয়েটি ভ্লাদিমির পুতিনের কন্যা? না জানা থাকলে কিন্তু খুব সহজেই গুগলে "Vladimir Putin's Daughter" লিখে সার্চ করুন। ঠিক এভাবেই কিন্তু জানা গেল ভ্লাদিমির পুতিনের দুই কন্যা। একজন মারিয়া ভরোন্তস্ভা। অপরজন ক্যাটেরিনা টিখোনোভা। দুজনেই ব্লন্ড। চুলের স্টাইলও ভিডিয়োর মহিলার থেকে অনেকটাই আলাদা।
ভ্লাদিমির পুতিনের দুই কন্যা

আরও যাচাইয়ের জন্য ইউটিউবে "Russian Coronavirus Vaccine Trial" লিখে সার্চ করা হল। সঙ্গে সঙ্গে আরও কনফার্ম হওয়া গেল। জানা গেল ভিডিয়োর মেয়েটি আসলে রাশিয়ার এক মেডিক্যাল ছাত্রী। রুশ করোনা ভ্যাকসিনের ট্রায়ালে তিনি অংশগ্রহণ করেন। ভিডিয়োটি পোস্ট করা হয় গত ২৬ জুনে। সেখান থেকেই ভিডিয়োটি কেউ ডাউনলোড করে কেটে পোস্ট করেন। হয় তো প্রোফাইলের রিচ বাড়াতেই এমন দুষ্কর্ম করেছিলেন!
 

মঙ্গলবার বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাকসিনের ঘোষণা করেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। প্রথম মহাকাশযান স্পুটনিক-এর নাম অনুসারে ভ্যাকসিনের নামকরণ করা হয় Sputnik v। জনসাধারণের মধ্যে ভ্যাকসিনের বিষয়ে ভয় কাটাতে প্রথম ডোজ দেওয়া হয় পুতিন কন্যাকেই। পুতিন জানান, ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসাবে সামান্য জ্বর এলেও সঙ্গে সঙ্গে তা সেরে গিয়েছে। যদিও বড় না ছোট মেয়ে- তা তিনি উল্লেখ করেননি।

তাই এবার থেকে ফেসবুকে যাই দেখছেন ভাল লাগছে বলে শেয়ারের আগে একটু গুগল সার্চ করে ক্রসচেক করে নিন। ভুয়ো ভিডিয়ো ধরা পড়লেই কমেন্টে লিখে জানিয়ে দিন ও রিপোর্ট করুন। গুজবে কান দেবেন না ও ছড়াবেন না।
আরও পড়ুন : সাত ঘণ্টা ঠায় দাঁড়িয়ে খোলা ম্যানহল পাহারা দিলেন, সেই কান্তার সঙ্গেও ভালই হল