মার্কিন বাজারে চাপের মুখে ভারতীয় তথ্য প্রযুক্তি সংস্থাগুলি

মার্কিন বাজারে চাপের মুখে ভারতীয় তথ্য প্রযুক্তি সংস্থাগুলি। আউটসোর্সিং নিয়ন্ত্রণে মার্কিন প্রতিনিধি সভায় নতুন বিল এনেছেন দুই প্রতিনিধি। এর ফলে কোনও মার্কিন সংস্থা পঞ্চাশ শতাংশের বেশি H-1B এবং L-1 ভিসা হোল্ডারদের নিয়োগ করতে পারবে না। প্রাথমিকভাবে আশঙ্কার হলেও, দ্রুত এই জট কেটে যাবে বলে মনে করছেন তথ্য-প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা।

Updated By: Jul 9, 2016, 08:35 PM IST
মার্কিন বাজারে চাপের মুখে ভারতীয় তথ্য প্রযুক্তি সংস্থাগুলি

ওয়েব ডেস্ক: মার্কিন বাজারে চাপের মুখে ভারতীয় তথ্য প্রযুক্তি সংস্থাগুলি। আউটসোর্সিং নিয়ন্ত্রণে মার্কিন প্রতিনিধি সভায় নতুন বিল এনেছেন দুই প্রতিনিধি। এর ফলে কোনও মার্কিন সংস্থা পঞ্চাশ শতাংশের বেশি H-1B এবং L-1 ভিসা হোল্ডারদের নিয়োগ করতে পারবে না। প্রাথমিকভাবে আশঙ্কার হলেও, দ্রুত এই জট কেটে যাবে বলে মনে করছেন তথ্য-প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা।

মার্কিন মুলুকে ভারতীয় তথ্য প্রযুক্তি সংস্থাগুলির জন্য দুঃসংবাদ। আউসোর্সিং ঠেকাতে এবার নয়া বিল পেশ হল মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি সভায়। HOUSE OF REPRESENTATIVES-এ এই বিল এনেছেন ডেমোক্র্যাট প্রতিনিধি বিল পালক্রেল এবং রিপাবলিকান প্রতিনিধি ডানা রোহরাবাখার। নতুন বিলের প্রস্তাব অনুযায়ী

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কোনও সংস্থা তাদের মোট কর্মীর সর্বাধিক ৫০%-র বেশি H-1B এবং L-1 ভিসা হোল্ডার রাখতে পারবে না। অর্থাত্‍ মোট কর্মীদের কমপক্ষে ৫০% কর্মীকে মার্কিন নাগরিক বা গ্রিন কার্ড হোল্ডার হতে হবে। দুই মার্কিন প্রতিনিধির দাবি, H-1B এবং L-1 ভিসা ব্যবস্থায় সংস্কার হলে  মার্কিন নাগরিকদের কর্মসংস্থানের সুযোগ বাড়বে। অন্যদিকে বিদেশি কর্মীদের নিয়োগ এবং বেতন কাঠামোতেও স্বচ্ছতা আনা যাবে।

এই বিল পাস হলে জোর ধাক্কা খাবেভারতীয় তথ্য প্রযুক্তি সংস্থাগুলি। কারণ H-1B এবং L-1 ভিসা হোল্ডারদের সব চেয়ে বেশি নিয়োগ করে ভারতীয় তথ্য প্রযুক্তি সংস্থাগুলিই। অনেক বেশি টাকা খরচ করে তাদের মার্কিন কর্মী নিয়োগ করতে হবে। কাজ হারাবেন বহু ভারতীয় তথ্য প্রযুক্তিবিদ। যদিও এনিয়ে এখনই বড়সড় আশঙ্কার কারণ দেখছেন না বিশেষজ্ঞরা।

প্রতিনিধি সভায় বিল পাস হলে তা যাবে সেনেটে। সেনেটে বিল পাস হলে, তা কার্যকর করতে প্রয়োজন হবে মার্কিন প্রেসিডেন্টের অনুমোদন। ভারতীয় সংস্থাগুলির আশা, এতগুলি ধাপ পার হওয়ার আগেই নয়া প্রস্তাব নিয়ে সমঝোতায় পৌছনো যাবে।