৯০০ কোটি আছে? ইসরোকে খোঁচা দিতে গিয়ে নিজেই চাপে পড়লেন পাকিস্তানের মন্ত্রী

ফাওয়াদ হুসেন টুইট করেছেন, উপগ্রহ যোগাযোগ ব্যবস্থা নিয়ে ভাষণ দিচ্ছেন মোদীজি।

Updated By: Sep 7, 2019, 11:14 PM IST
৯০০ কোটি আছে? ইসরোকে খোঁচা দিতে গিয়ে নিজেই চাপে পড়লেন পাকিস্তানের মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন: চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে মাত্র ২.১ কিলোমিটার আগে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে ল্যান্ডার বিক্রমের। কিন্তু অরবিটার আগামী ৭ বছর চাঁদের কক্ষপথে থাকবে। পাঠাবে ছবি। গোটা বিশ্ব ভারতকে কুর্নিশ করছেন, কিন্তু পড়শির উন্নতিতে ঈর্ষাণ্বিত হয়ে পড়েছে পাকিস্তান। ভারতের চন্দ্রযান ২-কে কটাক্ষ করেছেন পাক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী। তাঁর উপযুক্ত জবাব দিয়েছেন ভারতীয় নেটিজেনরা। এমনকি পাকিস্তানিরাও সমালোচনা করেছেন ফাওয়াদকে।

ফাওয়াদ হুসেন টুইট করেছেন, উপগ্রহ যোগাযোগ ব্যবস্থা নিয়ে ভাষণ দিচ্ছেন মোদীজি। মনে হচ্ছে রাজনীতিক নন, উনি মহাকাশচারী। গরিব দেশে ৯০০ কোটি টাকার অযথা খরচ নিয়ে ওনাকে প্রশ্ন করা উচিত লোকসভায়। তার আগে ফাওয়াদ টুইট করেন, যা আসে না তা করতে যান কেন।          

ফাওয়াদকে পাল্টা দিয়েছেন ভারতীয় নেটিজেনরা। কেউ লিখেছেন, মজার ব্যাপার চন্দ্রযান ২ পাকিস্তানিদেরও জাগিয়ে রেখেছিল।  

কেউ লিখেছেন, আপনাদের ৯০০ কোটি আছে? 

কারও কটাক্ষ, আগে উপগ্রহ বানানটা ঠিক করুন। 

এদিন আশার কথা শুনিয়েছেন ইসরোর চেয়ারম্যান কে শিবন। বলেছেন,''ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে। আগামী ১৪ দিনে বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের চেষ্টা করব। শেষ ধাপ ঠিকঠাকভাবে সম্পন্ন হয়নি। ওই পর্বেই ল্যান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগ কেটে যায়। পরে আর সংযোগ করা সম্ভব হয়নি।''

এদিন ইসরো বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, চন্দ্রযান ২ অত্যন্ত জটিল অভিযান। বিগত অভিযানের চেয়ে প্রযুক্তিগতভাবে অনেকখানি এগিয়ে। চাঁদের দক্ষিণ মেরুর অভিযানে কাজে লাগানো হয়েছিল অরবিটার, ল্যান্ডার ও রোভার। অরবিটার ক্যামেরাটি হাই রেজোলুশনের (০.৩এম)। চন্দ্র অভিযানে এর আগে কেউ এমন শক্তিশালী ক্যামেরা ব্যবহার করেনি। অরবিটারের আয়ু ১ বছরের পরিকল্পনা করা হয়েছিল। কিন্তু সেটা পরে বাড়িয়ে করা হয়েছে ৭ বছর। ল্যান্ডার বিক্রমের অবতরণে আধুনিক প্রযুক্তি ও সেন্সরের সাহায্য নেওয়া হয়েছে। অভিযানের প্রতিটি ধাপের পর্যালোচনা করেছে ইসরো। কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যের ৯০ থেকে ৯৫ শতাংশ সম্পূর্ণ হয়েছে।

আরও পড়ুন- কলেজে ভর্তির আগে পর্যন্ত জুতো ছিল না, কঠোর পরিশ্রমে আজ তিনিই ইসরোর প্রধান