close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

বিকিনি পরা ছবি ফেসবুকে পোস্ট করায় কেড়ে নেওয়া হল চিকিত্সকের লাইসেন্স!

ওই চিকিত্সকের মতে, তিনি যখন রোগী দেখেন, তখন মোটেই খোলামেলা পোশাক পরেন না। তাঁর মতে, তাঁর ব্যক্তিগত স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে।

Sudip Dey | Updated: Jun 16, 2019, 11:51 AM IST
বিকিনি পরা ছবি ফেসবুকে পোস্ট করায় কেড়ে নেওয়া হল চিকিত্সকের লাইসেন্স!
—প্রতীকী ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদন: নিজের বিকিনি পরা ছবি ফেসবুকে পোস্ট করার ‘অপরাধে’ এক চিকিত্সকের লাইসেন্স কেড়ে নেওয়া হল! ভারতে নয়, ঘটনাটি ঘটেছে মায়ানমারে।

মায়ানমারের বছর উনত্রিশের সুন্দরী তরুণী ন্যাং মে স্যান পাঁচ বছর ধরে সে দেশে ডাক্তারি করছেন। পেশায় চিকিত্সক হলেও ফেসবুক-সহ সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে নিজের নানা রকমের ছবি পোস্ট করতে ভালবাসেন ন্যাং স্যান। আর না বললেই নয়, তাঁর ছবিগুলি বেশ সাহসী বা বোল্ড। কখনও স্বচ্ছ পোশাকে, তো কখনও সুইমিং কস্টিউমে বা অন্তর্বাসে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেকে সামনে এনেছেন তিনি। এ বারও তেমন ভাবেই নিজের বিকিনি পরা ছবি ফেসবুকে পোস্ট ন্যাং স্যান। আর তাতেই চটেছে সে দেশের সরকার। শাস্তি হিসেবে কেড়ে নেওয়া হয়েছে তাঁর লাইসেন্স।

Nang Mwe San

আরও পড়ুন: এটি বিশ্বের সবচেয়ে ছোট দেশ, জনসংখ্যা মাত্র ৫৬!

জানা গিয়েছে, ৩ জুন মায়ানমার মেডিক্যাল কাউন্সিলের পক্ষ থেকে চিঠি দিয়ে ন্যাং স্যানকে জানানো হয়, তাঁর পোশাক দেশের সংস্কৃতি আর ঐতিহ্যের বিরোধী। তাই তাঁর লাইসেন্স বাতিল করা হল। তবে দেশের মেডিক্যাল কাউন্সিলের এই সিদ্ধান্তে একটুও বিচলিত নন এই তরুণী। উল্টে মেডিক্যাল কাউন্সিলের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আদালতের দ্বারস্থ হচ্ছেন তিনি। ন্যাং স্যানের মতে, তিনি যখন রোগী দেখেন, তখন মোটেই খোলামেলা পোশাক পরেন না। তাই পেশার বাইরে ব্যক্তিগত জীবনে তাঁর পছন্দের পোশাকের জন্য কেন তাঁর লাইসেন্স কেড়ে নেওয়া হবে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। ন্যাং স্যানের মতে, তাঁর ব্যক্তিগত স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে।