জম্মু-কাশ্মীরে ঘুরতে যেতে পর্যটকদের সতর্ক করল ব্রিটেন, জার্মানি

অন্য দিকে জার্মানির বিদেশ মন্ত্রক থেকেও একই বার্তা দেওয়া হয়েছে তাদের নাগরিকের জন্য। পহলগাম, গুলমার্গ, সোনমার্গ-সহ সীমান্তবর্তী এলাকায় পর্যটকদের যেতে নিষেধ করা হয়েছে

Updated By: Aug 3, 2019, 07:39 PM IST
জম্মু-কাশ্মীরে ঘুরতে যেতে পর্যটকদের সতর্ক করল ব্রিটেন, জার্মানি
ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন: জম্মু-কাশ্মীরে অমরনাথ যাত্রী এবং পর্যটকদের ফিরিয়ে আনছে প্রশাসন। নতুন করে সেখানে পর্যটক না যাওয়ার জন্য ‘অ্যাডভাইজ়রি’ জারি করেছে জম্মু-কাশ্মীর সরকার। এবার জার্মানি, ব্রিটেনও জম্মু-কাশ্মীরে যেতে নিষেধ করল তাদের নাগরিককে। জানা যাচ্ছে ব্রিটেনের বিদেশ দফতর তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, জম্মু-কাশ্মীরে বোমা বর্ষণ, গোলাগুলি কিংবা অপহরণের মতো দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা প্রবল। লাদাখ এবং জম্মু থেকে ফেরার জন্য স্থানীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পর্যটকদের।

অন্য দিকে জার্মানির বিদেশ মন্ত্রক থেকেও একই বার্তা দেওয়া হয়েছে তাদের নাগরিকের জন্য। পহলগাম, গুলমার্গ, সোনমার্গ-সহ সীমান্তবর্তী এলাকায় পর্যটকদের যেতে নিষেধ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে সরকারের সতর্কবার্তা জারির পরই পর্যটক, শ্রমিক এবং অমরনাথ যাত্রীরা ফিরে আসছেন। তাঁদের নিরাপদে পৌঁছে দিতে সব রকমের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে দাবি প্রশাসনের।

আরও পড়ুন- শোপিয়ানে জঙ্গি-নিরাপত্তারক্ষীর গুলির লড়াইয়ে নিকেশ ৩ জঙ্গির, শহিদ এক জওয়ান

গতকাল সেনা ও জম্মু-কাশ্মীর পুলিস যৌথ সাংবাদিক বৈঠক করে জানায়, বড়সড় হামলার ছক কষছে জঙ্গিরা। এর পিছনে প্রত্যক্ষ মদত রয়েছে পাক সেনার। অমরনাথ যাত্রা রুটে পাওয়া গিয়েছে ল্যান্ডমাইন এবং পাক সেনার ব্যবহৃত টেলিস্কোপ যুক্ত এম-২৪ স্নাইপার রাইফেল। এর পরই তড়িঘড়ি পুণ্যার্থী এবং পর্যটকদের ফিরে আসার জন্য ‘অ্যাডভাইজ়রি’ জারি করা হয় রাজ্য প্রশাসনের তরফে। আগামী ১৫ অগস্ট শেষ হচ্ছে অমরনাথ যাত্রা। কিন্তু তার আগেই এভাবে তড়িঘড়ি উপত্যাকা খালি করার নির্দেশে আতঙ্ক তৈরি হয় স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে।

উল্লেখ্য, শোপিয়ানে গতকাল থেকে চলছে জঙ্গি ও নিরাপত্তারক্ষীর গুলির লড়াই। মৃত্যু হয়েছে ৩ জঙ্গির। শুক্রবার সংঘর্ষে ২ এবং আজ এক জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। এর মধ্যে জ়িনাত উল ইসলাম নায়কু নামে এক জঙ্গির দেহ শুক্রবার রাতেই তার পরিবারের কাছে তুলে দেওয়া হয়। এই সংঘর্ষে সেনার ৩৪ রাষ্ট্রীয় রাইফেলের এক জওয়ান শহিদ হন।