সৃজিতের ছবিতে 'গুমনামী বাবা' হচ্ছেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়?

 এবার সেই গুমনামী বাবার রহস্য নিয়েই সিনেমা বানাতে চলেছেন সৃজিত মুখোপাধ্যায়। 

Updated By: Aug 21, 2018, 06:35 PM IST
সৃজিতের ছবিতে 'গুমনামী বাবা' হচ্ছেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়?

নিজস্ব প্রতিবেদন: ১৯৭০ সালে উত্তরপ্রদেশের ফৈজাবাদে 'গুমনামী বাবা'র আবির্ভাব নিয়ে দেশে বেশ শোরগোল পড়েছিল। অনেকেই মনে করেন এই গুমনামী বাবাই নাকি ছিলেন নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসু। যদিও এবিষয়ে সঠিক তথ্য কারোরই ঠিক জানা নেই। এবার ফের একবার সেই গুমনামী বাবাই নতুন করে আলোচনা উঠে আসছেন। সৌজন্যে পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। এবার সেই গুমনামী বাবার রহস্য নিয়েই সিনেমা বানাতে চলেছেন সৃজিত মুখোপাধ্যায়। 

১৮ অগস্ট প্রথম 'গুমনামী বাবা'কে নিয়ে তৈরি হতে চলা তাঁরা আাগামী ছবির কথা জনান পরিচালক। কারণ, ১৯৪৫ সালে এই ১৮ অগস্টই তাইওয়ান থেকে বিমানে চড়েছিলেন নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসু। তারপর আর তাঁর খোঁজ পাওয়া যায়নি। যদিও ওই বিমান দুর্ঘটনাতেই নেতাজীর মৃত্যু হয়েছিল কিনা তাঁর কোনও প্রমাণ নেই। এই বিমান দুর্ঘটনার পরও তিনি নেতাজী বেঁচেছিলেন বলেই সকলের বিশ্বাস। সে যাই হোক। ৭৩ বছর  গত ১৮ অগস্টই তাঁর আগামী ছবি 'গুমনামী বাবা'র কথা প্রকাশ্যে এনেছেন পরিচালক সৃজিত। 

আরও পড়ুন-এবার সকলের সঙ্গে এভাবেই 'পাঙ্গা' নিতে চলেছেন কঙ্গনা!

পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের কথায়, '' ২০১৬ সালে সংবাদমাধ্যমে গুমনামী বাবাকে নিয়ে একট প্রতিবেদন পড়েছিলাম। তখন থেকেই গুমনামী বাবাকে নিয়ে সিনেমা বানানোর কথা ভেবেছিলাম। আমি এখনও এটার উপর গবেষণা করছি। আশা রাখছি আগামী বছর এই ছবির কাজ শুরু করতে পারব। ''

শোনা যাচ্ছে এই 'গুমনামী বাবা'র চরিত্রে দেখা যাবে অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে। প্রসঙ্গ, সম্প্রতি পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় তাঁর ছবি 'শাহজাহান'-এক কাজ শেষ করেছেন। সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের এই ছবির প্রযোজনা করতে চলেছে ভেঙ্কেটেশ ফিল্মস। 

তবে উত্তরপ্রদেশের ফৈজাবাদে এই গুমনামী বাবার রহস্য নিয়ে কিন্তু আগ্রহ রয়েছে অনেক ভারতবাসীরই। নেতাজী মারা গেছেন কিনা বেঁচে আছেন তা নিয়ে সকলে যখন ধন্দে, ঠিক তখন ১৯৭০ সালে উত্তর প্রদেশের এই গুমনামী বাবার আর্বিভাব সকলকেই চমকে দিয়েছিল। শুধু সাধারণ মানুষ নন, গুমনামী বাবাই আসল নেতাজী কিনা তা নিয়ে সন্দেহ ছিল অনেক বড় বড় রাজনীতিবিদদেরও। জানা যায় এই গুমনামী বাবার মুখের আদল নাকি এক্কেবারে নেতাজীর মুখের আদল বসানো। গুমনামী বাবার কাছে নাকি এমন তথ্য ছিল তা নাকি একমাত্র নেতাজীর কাছেই থাকা সম্ভব। শোনা যায়, গুমনামী বাবার বাক্সে নাকি আজাদহিন্দের বেশকিছু চিঠিপত্র পাওয়া গিয়েছিল। গুমনামী বাবা নাকি এমন অনেক কিছুই ব্যবহার করতে যা নেতাজীও ব্যবহার করতেন। তবে গুমনামী বাবা নিজে কখনও বলেননি যে তিনিই নেতাজী। ১৯৮৫ সালে মৃত্যু হয় এই গুমনামী বাবার। 

আরও পড়ুন-ফাঁস হল পরিণীতির হবু জামাইবাবু নিকের জুতো চুরির পরিকল্পনা!

সে যাই হোক এখন পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় তাঁর ছবিতে এই গুমনামী বাবাকে কীভাবে তুলে ধরেন এখন সেটাই দেখার।