নমুনা পরীক্ষা কমতেই এক ধাক্কায় নামল দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা, সংক্রমণ হার উর্ধ্বমুখীই

সংক্রমণ কমলেও এখনই নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না। নমুনা পরীক্ষা (Positivity Rate) এক ধাক্কায় নেমে গিয়েছে ষাট হাজারের নীচে। 

Updated By: May 27, 2021, 10:50 PM IST
নমুনা পরীক্ষা কমতেই এক ধাক্কায় নামল দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা, সংক্রমণ হার উর্ধ্বমুখীই

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাজ্যে করোনা (COVID-19) সংক্রমণ নেমে গেল ১৪ হাজারের নীচে। তবে এখনই আশ্বস্ত হওয়া যাচ্ছে না। কারণ নমুনা পরীক্ষাও এক ধাক্কায় কমে গিয়েছে অনেকটাই। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৩ হাজার ৪৬ জন। গতকাল সংক্রামিতের সংখ্যা ছিল ১৬,২২৫। মৃতের সংখ্যা টানা দেড়শোর উপরে থাকছিল। তা সামান্য কমল। কোভিডে প্রাণ হারিয়েছেন ১৪৮ জন। ১৯ হাজার ১২১ জন সুস্থ হয়েছেন। 

 

রাজ্যে বিধিনিষেধ ১৫ জুন পর্যন্ত বাড়ানোর কথা ঘোষণা করে এ দিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,'কোভিড কিছুটা হলেও কমেছে। মানুষ সহযোগিতা করছে। তাই আমরা আর একটু সময় নিচ্ছি।' বস্তুত বিধিনিষেধ ঘোষণার সময় অর্থাৎ ১৫ মে থেকে দৈনিক কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে। ওই দিন কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১৯,৫১১। বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী যখন বিধিনিষেধ বাড়ানোর ঘোষণা করলেন, সেদিন স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন (Heath Department) অনুযায়ী, ২৪ ঘণ্টায় সংক্রামিত হয়েছেন ১৩ হাজার ৪৬ জন। গতকাল আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১৬,২২৫।

সংক্রমণ কমলেও এখনই নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না। নমুনা পরীক্ষা এক ধাক্কায় নেমে গিয়েছে ষাট হাজারের নীচে। সম্ভবত ইয়াস বিপর্যয়ের জেরে পরীক্ষা কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৫৭ হাজার ১৬৫ জনের নমুনা যাচাই করা হয়েছে। দৈনিক আক্রান্ত কমলেও সংক্রমণের হার ঊর্ধ্বমুখীই। তা বেড়ে হল ১০.৯৩%। কলকাতায় সংক্রমিতের সংখ্যা ১,৪৮৯। ২  হাজার ৯৭৫ জন সংক্রামিত উত্তর ২৪ পরগনায়। হাওড়া, হুগলি এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনায় আক্রান্তের সংখ্য যথাক্রমে ১০৪৯, ৫৯৬ ও ১০৯৪।

        
গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিডে মারা গিয়েছেন (COVID Death in West Bengal) ১৪৮ জন। গতকাল সংখ্যাটা ছিল ১৫৩। কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগনায় মৃতের সংখ্যা যথাক্রমে  ৩২ ও ৪২। ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে হাওড়ায়। ১২ জন মারা গিয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনায়। হুগলিতে মৃত্যু হয়েছে ৭ জনের।   

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনামুক্ত (Coronavirus) হয়েছেন ১৯ হাজার ১২১ জন। এখনও পর্যন্ত সুস্থতার হার ৯০.০৭%। বর্তমানে সক্রিয় করোনা আক্রান্ত ১ লক্ষ ১৭ হাজার ১৫৪ জন।

আরও পড়ুন- এবার চিত্তরঞ্জনে Black Fungus! জেলা হাসপাতাল থেকে রোগীকে রেফার বাঁকুড়া মেডিক্যালে