শুধু ক্যান্সার নয়, বন্ধ্যাত্ব, শুক্রানুশূন্যতার ঝুঁকিও বাড়িয়ে দেয় ধূমপানের অভ্যাস!

আজ ধূমপান বিরোধী দিবস। পরিসংখ্যান গবেষণা সংক্রান্ত সংস্থা ‘ওয়ার্ল্ডোমিটার’-এর সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, আমাদের দেশের ৮০ শতাংশ মানুষই সিগারেটের জন্য প্রতিমাসে অন্তত ৫০০ টাকা খরচ করেন।

Edited By: সুদীপ দে | Updated By: Mar 11, 2020, 07:31 PM IST
শুধু ক্যান্সার নয়, বন্ধ্যাত্ব, শুক্রানুশূন্যতার ঝুঁকিও বাড়িয়ে দেয় ধূমপানের অভ্যাস!

নিজস্ব প্রতিবেদন: আজ ধূমপান বিরোধী দিবস। সারা বিশ্বে প্রতিনিয়তই এই নিয়ে বিভিন্ন ভাবে চর্চা হয়ে। প্রতি বছর মার্চ মাসের দ্বিতীয় বুধবার পালন করা ধূমপান বিরোধী দিবস। পরিসংখ্যান গবেষণা সংক্রান্ত সংস্থা ‘ওয়ার্ল্ডোমিটার’-এর সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, আমাদের দেশের ৮০ শতাংশ মানুষই সিগারেটের জন্য প্রতিমাসে অন্তত ৫০০ টাকা খরচ করেন। কিন্তু কম করার কথা কেউই ভাবেন না। প্রধাণত, ১২-১৭ বছর বয়স থেকেই শুরু হয়ে ধূমপান করা।

ধূমপানের ফলে শরীরে যে মারাত্মক রকমের ক্ষতি হয়ে তা আমরা সবাই জানি। প্রতিনিয়ত ধূমপানের ফলে শ্বাস-প্রশ্বাসের কষ্ট থেকে ক্যান্সারের মতো মারাত্মক রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছে বহু মানুষ।

সারা বিশ্বে কয়েকটি দেশ আছে যারা সিগারেটের পিছনে কয়েক বিলিয়ান খরচ করে ফেলেছে। তার মধ্যে চিন সবার প্রথমে। এর পরেই আছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, রাশিয়া ও ইন্দোনেশিয়া।

অতিরিক্ত ধূমপানের ফলে ফুসফুসের ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি প্রায় ৯০ শতাংশ বেড়ে যায়। বেশির ভাগ মহিলাই প্রতি বছর ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে থাকে। এছাড়াও ধূমপানের ফলে COPD (Chronic Obstrctive plumonary disease)-এর সমস্যায় ৮০ শতাংশ মানুষ আক্রান্ত হয়ে থাকেন।

মাত্রাতিরিক্ত ধূমপানের ফলে হৃদরোগের সমস্যা, স্ট্রোক হওয়ার ঝুঁকি, ফুসফুসের ক্যান্সারের সমস্যা বাড়িয়ে তোলে। এছাড়াও আরও অন্য়ান্য় শারিরীক সমস্যার ঝুঁকি বাড়িয়ে তোলে।

দিনে ৫টি করে সিগারেট খেলে খুব তাড়াতাড়ি আপনি কার্ডিওভাসকুলার রোগে আক্রান্ত হবেন। এর ফলে হার্টের রক্তনালীগুলি সংকীর্ণ হয়ে যায়। যার জন্য হার্টবিট বেড়ে যায় ও ব্লাড প্রেসারও বেড়ে যায়। অতিরিক্ত ধূমপানের ফলে হাপানির সমস্যা অতিরিক্ত পরিমাণে বেড়ে যায়।

ধূমপানের ফলে শুধু যে ফুসফুসের ক্যান্সাসার হয়ে তা নয়, শরীরের বিভিন্ন জায়গায় হতে পারে ক্যান্সার। লিভার, রক্ত, গলদেশ, খাদ্যনালী, কিডনি, স্বরনালী, পেট, ফুসফুস, ব্রঙ্কাস ইত্যাদি জায়গায় হতে পারে ক্যান্সার।

আরও পড়ুন: মদ্যপান করলে কি ঠেকানো যাবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ? জেনে নিন কী বলছে WHO

গর্ভবতী মহিলাদের কখনওই ধূমপান করা উচিত না। কারণ এর ফলে সন্তান প্রসবের সময় নানান সমস্যা দেখা দেয়। এছাড়াও সন্তান মৃত অবস্থায় জন্ম নিতে পারে।  অতিরিক্ত ধূমপানের ফলে ছেলেদের শুক্রানুতে দেখা যায় নানান সমস্যা যার ফলে গর্ভধারনের সমস্যা বেড়ে যায়। এছাড়াও দাঁতে দেখা যায় বিভিন্ন সমস্যা। আর ডায়বেটিস-এর সমস্যা দেখা যায়।