যুদ্ধে নামার আগে সংগঠন গুছিয়ে নিতে চাইছেন দিলীপ ঘোষরা, হতে চলেছে বড় রদবদল

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ও সংগঠন সাধারণ সম্পাদত সুব্রত চট্টোপাধ্যায় একটি তালিকা তৈরি করেছেন।

Updated By: Nov 16, 2019, 12:03 AM IST
যুদ্ধে নামার আগে সংগঠন গুছিয়ে নিতে চাইছেন দিলীপ ঘোষরা, হতে চলেছে বড় রদবদল

অঞ্জন রায়: ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটের দিকে তাকিয়ে সংগঠনে বড়সড় রদবদল করতে চলেছে রাজ্য বিজেপি। বেশ কয়েকটি পদে পুরনোদের সরিয়ে আনা হচ্ছে নতুনদের। বদল হবে জেলার সভাপতি পদেও। রদবদল নিয়ে একটি সুপারিশ দিল্লিতে পাঠিয়েছেন দিলীপ ঘোষরা। তা এখন মঞ্জুরের অপেক্ষায়। 

২০১৮ সালে জয়ের পর এখন বিজেপির লক্ষ্য ২০২১। বিধানসভা ভোটে রাজ্যে ২০০টি আসন জয়ের লক্ষ্য নিয়েছে পদ্মশিবির। বিজেপি নেতারা মনে করছেন, ১৮০টি আসন পাওয়া অসম্ভব নয়। এহেন পরিস্থিতিতে বিধানসভা ভোটের দেড় বছর আগে শেষবার সংগঠন ঝালিয়ে নিতে চাইছেন নেতারা। কারণ, নতুনদের দায়িত্ব বুঝে নেওয়ার জন্য সময় প্রয়োজন। এমনিতেই লোকসভা ভোটের কারণে নিয়ম অনুযায়ী বিজেপির সাংগঠনিক রদবদল হয়নি। তবে চলতি বছরের আগেই সংগঠন গুছিয়ে নিতে চাইছে দল। 
   
সূত্রের খবর, যুব-মহিলা মোর্চা থেকে সরছেন দেবজিত্ সরকার ও লকেট চট্টোপাধ্যায়। যুব সভাপতি ও মহিলা মোর্চায় আসতে চলেছেন নতুন মুখ। লকেট চট্টোপাধ্যায় হুগলির সাংসদ। ফলে তাঁর পক্ষে এখন মহিলা মোর্চার সভানেত্রীর অতিরিক্ত দায়িত্ব দিতে চাইছে না দল।                 

১০ থেকে ১২টি সাংগঠনিক জেলার সভাপতি পদেও বদল হতে চলেছে। রাজ্য কমিটিতে আসছে নতুন মুখ। সম্পাদক, সাধারণ সম্পাদক ও সহ-সভাপতিও হতে চলেছে একাধিক বদল। ইতিমধ্যেই মণ্ডল ও জেলাস্তরে পরিবর্তন হচ্ছে। 

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ও সংগঠন সাধারণ সম্পাদত সুব্রত চট্টোপাধ্যায় একটি তালিকা তৈরি করেছেন। ওই তালিকা পাঠানো হয়েছে দিল্লিতে। এখনও দিল্লি নেতৃত্বের অনুমোদনের অপেক্ষায়। তবে আরএসএসের মতামত থাকবে নিশ্চিত। সেক্ষেত্রে তারাও কয়েকজনের নাম সুপারিশ করতে পারে বলে খবর।     

আরও পড়ুন- জয়ের পরেরদিন প্রেসিতে দিন লাল আবির মেখে এসএফআই সদস্যদের গলায় বেলা বোস...