বড় মুখে দিলীপ বলেছিলেন, আমরা তৈরি, এখন পুরভোট পিছোতে যেতে হচ্ছে কমিশনে

গতবছর থেকে  রাজ্য়ের পুরসভাগুলিতে ভোট ঝুলে রয়েছে। 

Reported By: অঞ্জন রায় | Updated By: Feb 20, 2020, 06:49 PM IST
বড় মুখে দিলীপ বলেছিলেন, আমরা তৈরি, এখন পুরভোট পিছোতে যেতে হচ্ছে কমিশনে

নিজস্ব প্রতিবেদন: যখন পুরভোট হোক, বিজেপি তৈরি। এমনটাই দাবি করেছিলেন দিলীপ ঘোষ থেকে সায়ন্তন বসু। কিন্তু রাজ্য এপ্রিলে পুরভোট করার উদ্যম নিতেই বেঁকে বসেছে রাজ্য বিজেপি। তারা চাইছে, ভোট পিছিয়ে দেওয়া হোক। গেরুয়া শিবিরের যুক্তি, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকের সময় প্রচারে সমস্য়া হবে। এই যুক্তিতেই বৃহস্পতিবার বেলা দেড়টায় নির্বাচন কমিশনে যেতে চলেছে রাজ্য় নেতৃত্ব। 

রাজ্য সরকার চায়, এপ্রিলের দ্বিতীয় সপ্তাহেই পুরভোট করতে। কিন্তু  এপ্রিলে ভোট নিয়ে আপত্তি রয়েছে বিজেপির। নালিশ জানাতে বৃহস্পতিবার রাজ্য় নির্বাচন কমিশনে যাচ্ছেন মুকুল-দিলীপরা। বিজেপি নেতৃত্বের ব্যাখ্যা, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার জন্য এখন ভোটপ্রচারে মাইক ব্যবহার নিষিদ্ধ। পরীক্ষা শেষ হলে তবেই মাইক বাজিয়ে প্রচার করা যাবে। এপ্রিলে ভোট হলে প্রচারের সুযোগ মিলবে না। সে জন্য কমিশনের কাছে ভোট পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন করতে চলেছে তারা। 

গতবছর থেকে  রাজ্য়ের পুরসভাগুলিতে ভোট ঝুলে রয়েছে। শাসক দল ভয় পেয়ে গিয়েছে বলে দাবি করে আসছিল বিজেপি। এখন এপ্রিলে ভোট করাতে চাইছে রাজ্য়। সায়ন্তন বসু মঙ্গলবার জানিয়েছিলেন, বিজেপির প্রার্থী তালিকা তৈরি। নির্বাচন নির্ঘণ্ট ঘোষণার পর প্রকাশ করা হবে। দিলীপ ঘোষও বড় মুখে দাবি করেছিলেন, লড়াই হবে সেয়ানে সেয়ানে। তৃণমূলকে ছাড়া হবে না। কিন্তু তাহলে ভোট পিছানোর আবদার কেন? কারণ মাইকে প্রচার করা যাবে না, এই যুক্তি তো খাটছে না। তৃণমূল কংগ্রেসও তো মাইকে প্রচার করতে পারবে না! স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে, তাহলে কি বিজেপির প্রস্তুতি নেই?            

আরও পড়ুন- বামে উত্সাহ হারাচ্ছেন মহিলারা, গোপন চিঠিতে স্বীকারোক্তি সিপিএমের