রাস্তা সারাইয়ের দাবিতে সাংসদ মিমির চিঠিতে তেলে বেগুনে জ্বলে উঠলেন ববি, বললেন..

শনিবারের চিঠিতে কামালগাজি থেকে বারুইপুর পর্যন্ত বাইপাস সংস্কারে অবিলম্বে পুরমন্ত্রীকে তত্পর হতে অনুরোধ করেন তিনি। রবিবার এই নিয়ে ফিরহাদ হাকিমকে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, 'একটা চিঠি দিয়ে সাংসদ নিজের দায়িত্ব এড়িয়ে যেতে পারেন না।....

Updated: Nov 17, 2019, 08:15 PM IST
রাস্তা সারাইয়ের দাবিতে সাংসদ মিমির চিঠিতে তেলে বেগুনে জ্বলে উঠলেন ববি, বললেন..

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাস্তা মেরামতির আবেদন জানিয়ে চিঠি লিখে কলকাতার মেয়র তথা পুরমন্ত্রী ফিরাদ হাকিমের কটাক্ষের মুখে তৃণমূলেরই সাংসদ মিমি চক্রবর্তী। রবিবার এক কর্মসূচিতে যোগ দিয়ে ফিরহাদ স্পষ্ট করে দেন, যাদবপুরের সাংসদের চিঠি মোটেও ভালভাবে নেননি তিনি। তবে ওই রাস্তা মেরামতির উদ্যোগ আগেই শুরু হয়েছে বলে স্পষ্ট করেছেন মেয়র। 

দক্ষিণ ২৪ পরগনার কামালগাজি থেকে বারুইপুর পর্যন্ত ইস্টার্ন মেট্রোপলিটন বাইপাসের বেহাল দশার কথা তুলে ধরে শনিবারই ফিরহাদ হাকিমকে চিঠি দিয়েছিলেন স্থানীয় সাংসদ মিমি চক্রবর্তী। গত লোকসভা নির্বাচনে যাদবপুর কেন্দ্রে সিপিএম প্রার্থী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যকে বিপুল ভোটে হারিয়ে সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন এই তৃণমূল প্রার্থী। তার পর বারবারই দক্ষিণ ২৪ পরগনার রাস্তাঘাটের হাল নিয়ে প্রকাশ্যে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন তিনি। 

শনিবারের চিঠিতে কামালগাজি থেকে বারুইপুর পর্যন্ত বাইপাস সংস্কারে অবিলম্বে পুরমন্ত্রীকে তত্পর হতে অনুরোধ করেন তিনি। রবিবার এই নিয়ে ফিরহাদ হাকিমকে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, 'একটা চিঠি দিয়ে সাংসদ নিজের দায়িত্ব এড়িয়ে যেতে পারেন না। যাদবপুরের সাংসদকে বলব সাংসদ তহবিলের টাকা রাস্তা সারাইয়ের জন্য বরাদ্দ করুন।' 

বিনামূল্যে আপনাকে দার্জিলিং নিয়ে যাচ্ছেন মদন মিত্র!

সঙ্গে ফিরহাদ এ-ও বলেন, বাইপাসের ওই অংশ মেরামতির জন্য ইতিমধ্যে ডিপিআর তৈরি হয়ে গিয়েছে। যাদবপুরের সাংসদ নয়, বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরামর্শে রাস্তা মেরামতির প্রস্তুতি হয়েছে। অর্থ দফতরের মঞ্জুরি মিললেই কাজ শুরু হবে। 

মিমির চিঠিতে ফিরহাদের এহেন প্রতিক্রিয়ায় স্পষ্ট, শুধু নিচুতলায় নয়, তৃণমূলে কোন্দল পৌঁছেছে শীর্ষস্তরেও। তাই মিমির চিঠিতে তেলে বেগুনে জ্বলে উঠেছেন পুরমন্ত্রী। সদ্য নির্বাচিত সাংসদের তত্পরতা তাই ভাল লাগেনি তাঁর।