রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে রাজ্যকে চিঠি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের

কোনও আইপিএস অফিসার কোনও রাজনৈতিক দলের কর্মসূচিতে উপস্থিত থাকতে পারেন না। সেই কারণ উল্লেখ করেই বিভাগীয় তদন্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে খবর।

Updated By: Feb 5, 2019, 05:22 PM IST
রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে রাজ্যকে চিঠি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাজীব-কাণ্ডে নয়া মোড়। এবার তাঁর বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হল। নির্দেশ দিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। রাজ্যের মুখ্যসচিবকে চিঠি দিয়ে রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে।

আরও পড়ুন: এটা আমাদের নৈতিক জয়, জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী

কেন নির্দেশ দেওয়া হল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে, সেই ব্যাখ্যাও ওই চিঠিতে রয়েছে বলে প্রশাসনিক সূত্র মারফত জানা গিয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, কলকাতার মেয়ো রোডে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ধরনা মঞ্চে উপস্থিত থেকে সার্ভিস রুল ভেঙেছেন রাজীব কুমার।

কোনও আইপিএস অফিসার কোনও রাজনৈতিক দলের কর্মসূচিতে উপস্থিত থাকতে পারেন না। সেই কারণ উল্লেখ করেই বিভাগীয় তদন্ত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে খবর।

আরও পড়ুন: রাজ্যের আবেদনে হাইকোর্টে পিছিয়ে গেল শুনানি, সুপ্রিম কোর্টের ফল দেখেই পদক্ষেপ রাজ্যের

রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক ব্যবস্থা নিতে পারে, তার ইঙ্গিত মিলেছিল সোমবারই। কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ এই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। তিনি বিজেপির সদর দফতর থেকে সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়েছিলেন, কোনও আইপিএস অফিসার যখন কোনও রাজ্যের প্রশাসনের অধীনে কাজ করেন, তখন তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার এক্তিয়ার সংশ্লিষ্ট রাজ্যের থাকে। কেন্দ্র বড়জোর ওই রাজ্যকে নির্দেশ দিতে পারেন।

মঙ্গলবার দেখা গেল সেই নির্দেশই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে রাজ্যকে দেওয়া হল। এখন দেখার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের চিঠির প্রেক্ষিতে রাজ্য প্রশাসন কী পদক্ষেপ গ্রহণ করে?

আরও পড়ুন: ‘পুলিস অফিসারকে বাঁচানো আদৌ লক্ষ্য নয় মমতার, বরং স্বার্থ নিজের’, বিস্ফোরক টুইট জেটলির

যদিও রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, কলকাতার পুলিশ কমিশনার যে রাজনৈতিক মঞ্চে উপস্থিত থেকেছেন, তা প্রমাণ করা বেশ কঠিন। কারণ, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ধরনা মঞ্চে কোনও তৃণমূল কংগ্রেসের কোনও পতাকা নেই। তাছাড়া ওই মঞ্চের পাশ থেকেই মুখ্যমন্ত্রী সোমবার একাধিক সরকারি কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন। সেক্ষেত্রে মুখ্যমন্ত্রী নিরাপত্তার স্বার্থে পুলিশ কমিশনার হিসেবে রাজীব কুমার সেখানে থাকতেই পারেন।