মমতার ইচ্ছাকে মর্যাদা দিয়ে ক'দিন জেলে কাটিয়ে আসব, রক্ষী-মৃত্যু FIR নিয়ে Suvendu

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তিনি নন্দীগ্রামে পরাজিত করায়, হারের জ্বালা মেটাচ্ছেন বলেও দাবি করেন শুভেন্দু।

Updated By: Jul 9, 2021, 07:56 PM IST
মমতার ইচ্ছাকে মর্যাদা দিয়ে ক'দিন জেলে কাটিয়ে আসব, রক্ষী-মৃত্যু FIR নিয়ে Suvendu

নিজস্ব প্রতিবেদন: সেই ২০১৮ সালে ১৩ অক্টোবর শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari) দেহরক্ষীর মৃত্যুর ঘটনায় কাঁথি থানায় নতুন করে দায়ের হয়েছে এফআইআর। আড়াই বছর পর কেন অভিযোগ করা হয়েছে, সেই প্রশ্ন তুললেন বিরোধী দলনেতা। শুভেন্দুর বক্তব্য,'সেই সময় এফআইআর হয়েছিল। তার ভিত্তিতে তৈরি হয়েছে চূড়ান্ত চার্জশিট। আজ ২ বছর ৮ মাস পরে কেন এফআইআর হল? কারণটা রাজনৈতিক। ওই পরিবারের সদস্য তৃণমূল বিধায়ক।' 

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তিনি নন্দীগ্রামে পরাজিত করায়, মুখ্যমন্ত্রী হারের জ্বালা মেটাচ্ছেন বলেও দাবি করেন শুভেন্দু (Suvendu Adhikari)। তিনি বলেন,'শুভেন্দু অধিকারীকে ভয় দেখিয়ে এসব হবে না। সোজাসুজি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলুন, শুভেন্দু অধিকারী তুমি আমাকে নন্দীগ্রামে হারিয়ে দিয়েছো। তাই ৩ মাস বা ৬ মাস জেলে থাকতে হবে। তিনি বয়সে বড়। যেদিন বলবেন তাঁর ইচ্ছাকে মর্যাদা দিয়ে ক'দিন জেলে কাটিয়ে আসব।'

তাঁর হুঁশিয়ারি,'এসব ভয় দেখিয়ে পুলিস দেখিয়ে লাভ নেই। নন্দীগ্রামের হারের যন্ত্রণা থেকে করছেন এসব। যা করবেন তাতে আমার রাজনৈতিক লাভ বই ক্ষতি হবে না। মাথানত করার লোক আমি নই। আমার বাড়িতে থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে স্বাধীনতা সংগ্রামী বীরেন শাসমলের গ্রাম। তাঁকে দাঁড় করিয়ে পোড়ানো হয়েছিল।' 

২০১৮ সালের ১৩ অক্টোবর কাঁথির পুলিস বারাকে মাথায় গুলি লেগে গুরুতর জখম হন তৎকালীন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর দেহরক্ষী শুভব্রত চক্রবর্তী। পরে মৃত্যু হয় তাঁর। বুধবার রাতে কাঁথি থানায় নতুন করে এফআইআর করেন তাঁর স্ত্রী সুপর্ণা কাঞ্জিলাল চক্রবর্তী। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ পত্রে একাধিক প্রশ্ন তুলেছেন মৃতের স্ত্রী। তিনি জানতে চান, তৎকালীন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari) নিরাপত্তায় থাকাকালীন কীভাবে গুলিবিদ্ধ হলেন শুভব্রত চক্রবর্তী (Suvabrata Chakraborty)? কেন তাঁকে দেরি করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হল? সূপর্ণার অভিযোগপত্রের প্রতিলিপি টুইট করে তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষ বলেন, দিলীপ ঘোষ, আপনি বা আপনার কেন্দ্রীয় দল এই পরিবার বা মহিলাকে চেনেন? দয়া করে তাঁর আপিল পড়ুন। এখানে দেখুন রাখাল বেরার নাম রয়েছে। এই বিধবার প্রশ্ন এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টাই করবেন আপনার বিরোধী দলনেতা।    

ঘটনার আড়াই বছর পর কেন এফআইআর? সূপর্ণা জানান, এতদিন আতঙ্কে মুখ বন্ধ করেছিলেন। এখন সুবিচার চাইছেন।

আরও পড়ুন- 'আপনি এত আম পাঠিয়েছেন, দু'হাত ভরে বিলিয়েছি,' Hasina-কে ধন্যবাদ-চিঠি Mamata-র

 

(Zee 24 Ghanta App দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির লেটেস্ট খবর পড়তে ডাউনলোড করুন Zee 24 Ghanta App)