স্ত্রী TMC; স্বামী BJP-র মণ্ডল সভাপতি, গৃহবধূর মৃত্যুতে চাঞ্চল্য হরিদেবপুরে

রাজনৈতিক মতপার্থক্য কি প্রভাব ফেলেছিল দাম্পত্যেও?

Updated By: Jan 27, 2021, 09:47 PM IST
স্ত্রী TMC; স্বামী BJP-র মণ্ডল সভাপতি, গৃহবধূর মৃত্যুতে চাঞ্চল্য হরিদেবপুরে

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাজনৈতিক মতপার্থক্য কি প্রভাব ফেলেছিল দাম্পত্যেও? গৃহবধূর অস্বাভাবিক মৃত্যুতে চাঞ্চল্য ছড়াল হরিদেবপুরে (Haridevpur)। 'তৃণমূলকর্মী' স্ত্রীকে খুনের অভিযোগ উঠল 'বিজেপি কর্মী' স্বামীর বিরুদ্ধে। এলাকায় তুমুল উত্তেজনা। ঘটনাস্থলে কলকাতা পুলিসের হোমিসাইড শাখার আধিকারিকরা। 

মৃতার নাম বিউটি বিশ্বাস। বাড়ি, হরিদেবপুরের পূর্বপাড়া এলাকায়। বড় মেয়ের শ্বশুরবাড়ির কাছেই, আর ছোট মেয়ের এখনও বিয়ে হয়নি। অবিবাহিত ওই তরুণী পেশায় আইনজীবী। দুই বোনের দাবি, এদিন সন্ধ্যায় বাড়ির বাইরে থেকে ডাকাডাকি করেও মা-র সাড়া পাননি। এরপর বাড়ির ভিতরে ঢোকে দেখেন, ঘরের মেঝে পড়ে রয়েছেন বিউটি। মুখে দিয়ে গ্যাঁজলা বেরোচ্ছে। তাঁদের চিৎকারে ততক্ষণে বাড়ির সামনে চলে আসেন প্রতিবেশীরাও। তাঁদের মধ্যে একজন আবার বাড়িতেও ঢুকেছিলেন। ওই মহিলার দাবি, মৃতের শরীরে কোনও জামা-কাপড় ছিল না। তুলো গোঁজা ছিল মুখে। ঘটনাটি জানাজানি হতেই তুমুল উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় হরিদেবপুর থানার পুলিস। কিছুক্ষণ পর হাজির হন কলকাতা পুলিসের হোমিসাইড বিভাগের আধিকারিকরাও। 

আরও পড়ুন: ২৬ ঘণ্টা পার, গুরুতর আহত রোগীকে ভর্তি নিল না তিন সরকারি হাসপাতাল

প্রতিবেশীদের দাবি, মৃত বিউটি বিশ্বাস তৃণমূলের (TMC) সক্রিয় কর্মী ছিলেন। কিন্তু তাঁর স্বামী মন্মথ বিজেপির (BJP) মণ্ডল সভাপতি। ভিন্ন রাজনৈতিক দল করা নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্য়ে অশান্তি চলছিল। তাঁদের অভিযোগ, স্রেফ তৃণমূল কর্মী হওয়ার জন্য স্ত্রীর উপর রীতিমতো অত্যাচার করতেন মনমতো। তিনিই বিউটিকে খুন করেছেন। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিস।