নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে কী থাকছে? কোন কোন রাজ্যে খাটবে না?

অসমে নাগরিকপঞ্জি থেকে প্রায় ১২ লক্ষ হিন্দুর নাম বাদ যাওয়ায় চাপে বিজেপি। 

Updated By: Dec 4, 2019, 11:36 PM IST
নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে কী থাকছে? কোন কোন রাজ্যে খাটবে না?

নিজস্ব প্রতিবেদন: এনআরসি থেকে নাম বাদ পড়া আটকাতে হিন্দু উদ্বাস্তুদের জন্য সুরক্ষা কবচ। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে ছাড়পত্র দিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। চলতি সপ্তাহেই সংসদে পেশ হতে পারে বিল। উত্তর-পূর্বে প্রবল ক্ষোভের জেরে নয়া আইনের আওতা থেকে এই অঞ্চলের নানা রাজ্য ও স্বশাসিত পরিষদগুলিকে বাদ রাখা হতে পারে।

অসমে নাগরিকপঞ্জি থেকে প্রায় ১২ লক্ষ হিন্দুর নাম বাদ যাওয়ায় চাপে বিজেপি। নেতারা এখন বলছেন, আগে সিএবি পরে এনআরসি। মোদীর প্রথম ইনিংসে, লোকসভায় পাশ হলেও রাজ্যসভায় আটকে যায় নাগরিকত্ব বিল।  দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতেই সংসদের শীতকালীন অধিবেশনে ফের এই বিল নিয়ে আসছে সরকার। বিল পাস হলে, এই নিয়ে ছ-বার ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইনে সংশোধন করা হবে। গতবার সংসদে বেশ হওয়া বিলটিতে বলা হয়, 

২০১৪ সালের ৩১শে ডিসেম্বরের আগে প্রতিবেশী দেশ থেকে আসা ধর্মীয় সংখ্যালঘুরা এ দেশে ৬ বছর থাকার পর ভারতীয় নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতে পারবেন। 

বাংলাদেশ, পাকিস্তান, আফগানিস্তান থেকে আসা হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, খ্রিস্টান, পার্সি ও শিখরা এই সুবিধা পাবেন। 

নাগরিকত্বের আবেদন পেলে সরকার কেস টু কেস বিবেচনা করবে। 

অসম-সহ সারা দেশেই প্রযোজ্য হবে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন। 

উত্তর-পূর্বের আট রাজ্যেই এখন বিজেপি বা তার শরিকরা ক্ষমতায়। কিন্তু নাগরিকত্ব বিল নিয়ে সেখানে প্রতিবাদ তুঙ্গে। জোট শরিকরাও বিল মানতে নারাজ। অসম চুক্তি অনুযায়ী, নাগরিক পঞ্জিতে নাম তুলতে ১৯৭১ সালের ২৪শে মার্চের আগে ভারতে প্রবেশ করতে হবে। কিন্তু, নাগরিকত্ব বিল পাস হলে সেই তারিখ ৪৩ বছর পিছিয়ে যাবে। ফলে, অসমে চলছে প্রতিবাদ। উত্তর-পূর্বের অন্যান্য রাজ্যও আশঙ্কা করছে, এই বিল পাস হলে তাদের জনসংখ্যার বিন্যাস বদলে যাবে। এনিয়ে, আট রাজ্যের বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক সংগঠন ও একাধিক মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন অমিত শাহ। সূত্রের খবর, বুধবার মন্ত্রি সভার ছাড়পত্র পাওয়া বিলটিতে বলা হচ্ছে, বেঙ্গল ফ্রন্টিয়ার অ্যাক্টের আওতায়, ইনারলাইন পারমিট চালু থাকায় অরুণাচল প্রদেশ এবং নাগাল্যান্ড ও মিজোরামে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন কার্যকর হবে না। সংবিধানের ষষ্ঠ তফসিলের আওতায় থাকা অসম, মেঘালয়, ত্রিপুরার জনজাতি অধ্যুষিত স্বশাসিত অঞ্চলগুলিকেও নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বাইরে রাখা হবে। নাগরিকত্ব বিলে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা ছাড়পত্র দেওয়ার পরই, অসম-সহ উত্তর-পূর্বাঞ্চলের নানা জায়গায় নতুন করে শুরু হয়েছে বিক্ষোভ। 

আরও পড়ুন- নতুন রিচার্জ প্ল্যান ঘোষণা Jio-র, ৩ মাসের রিচার্জের দাম একধাক্কায় বাড়ল ১৫৬ টাকা