পরিবারতন্ত্র নিয়ে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ব্লগ লিখলেন মোদী

প্রধানমন্ত্রীর অভিযোগ, যে দলে পরিবারতন্ত্র প্রাধান্য পায়, সেই দল ক্ষমতায় থাকলে দেশে মত প্রকাশের স্বাধীনতা খর্ব হয়।

Updated By: Mar 20, 2019, 01:37 PM IST
পরিবারতন্ত্র নিয়ে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ব্লগ লিখলেন মোদী

নিজস্ব প্রতিবেদন: এবারের লোকসভা নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নতুন হাতিয়ার ব্লগ। গত কয়েকদিন ধরে তিনি ব্লগ লিখেছেন। বুধবার আবারও ব্লগ লিখলেন তিনি। আর এবার ব্লগে তাঁর নিশানায় কংগ্রেসের পরিবারতন্ত্র।

১১৬৫ শব্দের ওই ব্লগে ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের স্মৃতিকথা লিখেছেন মোদী। জানিয়েছেন, ওই বছর দেশের মানুষ কংগ্রেসের পরিবারতন্ত্রকে হারিয়ে বিকাশের পক্ষেই ভোট দিয়েছেন।

একই সঙ্গে তিনি কংগ্রেস নেতৃ্ত্বাধীন ইউপিএ সরকারের সঙ্গে এনডিএ সরকারের তুলনাও টেনেছেন প্রধানমন্ত্রী। লিখেছেন, ''নিকাশি ব্যবস্থায় অভূতপূর্ব উন্নতি হয়েছে দেশের। ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থার সঙ্গে অনেকে যুক্ত হয়েছেন। অনেকে আর্থিক সাহায্য পেয়েছেন। ভবিষ্যতের জন্য পরিকাঠামোর উন্নয়ন হয়েছে। গৃহহীনরা ঘর পেয়েছেন। গরিবদের স্বাস্থ্যের হাল ফেরাতে বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। যুবদের শিক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে।''

তাই দেশের মানুষকে ভোটদানের আগে এই বিষয়গুলিকে মাথায় রাখতে বলা হয়েছে। সংবিধানের সম্মান রেখে ভারতকে আরও শক্তিশালী করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

মোদীর অভিযোগ, এতদিন ভারতের দুর্নীতি, পরিবারতন্ত্রই সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছে। সামনে আসার মতো কোনও ইতিবাচক দিকই ছিল না। সেই কারণেই ২০১৪ সালে দেশের মানুষ ইতিহাস তৈরি করেছিল।

আরও পড়ুন: হাতে আর মাত্র ৫ দিন, কবে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করবে বিজেপি?

পরিবারন্ত্রের পার্টিকে সংখ্যাগরিষ্ঠ হতে না দিয়ে ওই ইতিহাস তৈরি করেছিল তারা। দেশের ভবিষ্যত্ সুরক্ষিত করতে সেবার দেশবাসী ভোট দিয়েছিল বলে দাবি করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

মোদীর দাবি, যখন কোনও সরকার কোনও পরিবারের জন্য নয় শুধু দেশের জন্য কাজ করে, তখন দেশের অগ্রগতি হয় দ্রুতগতিতে। গত পাঁচ বছরে সেটাই হয়েছে। ভারতীয় অর্থনীতি বিশ্বের নিরিখে দাগ কাটতে সক্ষম হয়েছে।

আরও পড়ুন: ভোটের ফায়দা লুটতে পাকিস্তান সীমান্তে উত্তেজনা জিইয়ে রাখছে বিজেপি, বিতর্কিত অভিযোগ মেহবুবা

ওই ব্লগে লোকসভা ও রাজ্যসভার কাজের তুলনাও টেনেছে মোদী। সেখানেও সমালোচনায় বিদ্ধ করেছেন কংগ্রেস-সহ বিরোধীদের। তাঁর দাবি, ২০১৪ থেকে ২০১৯ সালে লোকসভার কার্যকরী ভূমিকা ছিল ৮৫ শতাংশ। যা ২০০৯ থেকে ২০১৪ সালের তুলনায় অনেকটাই বেশি।

তাঁর সরকারের শেষ বাজেট অধিবেশনেও লোকসভায় ভালো কাজ হয়েছে বলে তাঁর দাবি। ৮৯ শতাংশ কাজ হয়েছে বলে তিনি ওই ব্লগে লিখেছেন।

আরও পড়ুন: আজ ২৫ লক্ষ চৌকিদারের সঙ্গে কথা বলবেন নরেন্দ্র মোদী

২০১৪-২০১৯, এই পাঁচ বছরে রাজ্যসভার কার্যকারিতা এই পাঁচ বছরে ছিল ৬৮ শতাংশ। গত বাজেট অধিবেশনে যা ছিল মাত্র ৮ শতাংশ। এই পরিসংখ্যান নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। তাঁর দাবি, এ নিয়ে ভারতবাসীর প্রশ্ন তোলা উচিক যে লোকসভায় এত ভালো কাজ হলেও রাজ্যসভায় কেন হল না?

প্রসঙ্গত, লোকসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকলেও রাজ্যসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা ছিল না মোদী সরকারের। ফলে একাধিক বিল লোকসভায় পাস হলেও রাজ্যসভায় আটকে গিয়েছে। বিরোধীদের হইহট্টগোল রাজ্যসভাতেই সবচেয়ে বেশি হয়েছে। সেই বিষয়টিই এদিন নিজের ব্লগে উসকে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আরও পড়ুন: সোশ্যাল মিডিয়াতে 'কোড অফ কন্ডাক্ট' চালু করার প্রস্তাব নির্বাচন কমিশনের!

প্রধানমন্ত্রীর অভিযোগ, যে দলে পরিবারতন্ত্র প্রাধান্য পায়, সেই দল ক্ষমতায় থাকলে দেশে মত প্রকাশের স্বাধীনতা খর্ব হয়। ফের জরুরি অবস্থার প্রসঙ্গও টেনে এনেছেন তিনি। এ নিয়ে কংগ্রেস ও কংগ্রেসের পরিবারতন্ত্রের সমালোচনা করেছেন তিনি।