আমি নিতান্তই সাধারণ এবং বোকা, প্রজ্ঞার সঙ্গে তুলনা করবেন না: উমা ভারতী

প্রজ্ঞার মতো উমার বিরুদ্ধেও হিংসা ছড়ানোর অভিযোগ রয়েছে। বেশ কিছুদিন সাইডলাইনে থাকার পর উমাকে ফের রাজনৈতিক ময়দানে নামায় বিজেপি। মন্ত্রিত্ব দেওয়া হয় তাঁকে

Updated By: Apr 28, 2019, 01:43 PM IST
আমি নিতান্তই সাধারণ এবং বোকা, প্রজ্ঞার সঙ্গে তুলনা করবেন না: উমা ভারতী
ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন: নিজেকে সাধারণ এবং বোকা বলে উল্লেখ করে ভোপাল কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরের ‘গুণগান’ গাইলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী উমা ভারতী। প্রজ্ঞাকে বড়মাপের সাধিকা বলেও উল্লেখ করেন তিনি। বলেন, “তাঁর সঙ্গে আমায় তুলনা করবেন না।” তবে তাঁর মন্তব্যে ‘গুণগান’ না কি ‘কটাক্ষ’, তা বুঝতে রীতিমতো ধন্দে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। মালেগাঁও বিস্ফোরণ মামলায় অভিযুক্ত প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরের সঙ্গে উমার তুলনা প্রায়শই এখন উঠে আসছে রাজনৈতিক চর্চায়।

প্রজ্ঞার মতো উমার বিরুদ্ধেও হিংসা ছড়ানোর অভিযোগ রয়েছে। বেশ কিছুদিন সাইডলাইনে থাকার পর উমাকে ফের রাজনৈতিক ময়দানে নামায় বিজেপি। মন্ত্রিত্ব দেওয়া হয় তাঁকে। ঠিক একই কায়দায় এ বারের নির্বাচনে তুলে ধরা হয়েছে প্রজ্ঞাকে। মধ্য প্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী উমার মতোই প্রজ্ঞাকে হিন্দুত্বের প্রচার সঁপে দেওয়া হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। পাশাপাশি, ভোপাল কেন্দ্র থেকে ১৯৯৯ সালে বিপুল ভোটে জিতে সাংসদ হয়েছিলেন উমা ভারতী। সেই কেন্দ্রেরই প্রার্থী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর। কট্টর হিন্দুপন্থী হওয়ায় জনপ্রিয়তারও খামতি নেই। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ মনে করছেন, উমার সঙ্গে মালেগাঁও মামলার অভিযুক্ত প্রজ্ঞার তুলনা ওঠায় ক্ষুন্ন তিনি। কার্যত কটাক্ষ সুরেই কেন্দ্রীয় জলসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী উমা ভারতী এ কথা বলেছেন বলে মত তাঁদের। যদিও, প্রজ্ঞা প্রত্যুত্তরে বলেন, “আমার থেকে বড় উমা দিদি। আমাকে যথেষ্ট সম্মান করেন। বড় মনের মানুষ তিনি।”

আরও পড়ুন- কারখানা গুটিয়ে চিন থেকে ভারতে আসতে উদ্যোগী ২০০ মার্কিন কোম্পানি!

চলতি মাসেই বিজেপিতে যোগ দেন মালেগাঁও মামলায় অভিযুক্ত প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর। ভোপাল কেন্দ্র থেকে টিকিট পেয়েই একের পর এক বিতর্কিত মন্তব্য করে খবরের শিরোনামে চলে আসেন প্রজ্ঞা। ২৬/১১ হামলায় শহিদ মুম্বইয়ের এটিএস প্রধান হেমান্ত কারকারেকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন তিনি। বলেন, “আমার অভিশাপেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে।” ২০০৬ সালে মালেগাঁও বিস্ফোরণ অভিযুক্ত হন বিশ্বহিন্দু পরিষদের দুর্গাবাহিনী নেত্রী প্রজ্ঞা। বেশ কয়েক বছর জেলে কাটান তিনি। এই মুহূর্তে জামিনে রয়েছেন প্রজ্ঞা।