দার্জিলিং থেকে পুরোপুরি আধা সেনা সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট

কেন্দ্রীয় বাহিনী প্রত্যাহার নিয়ে রাজ্যের সঙ্গে সংঘাতে ইতি। পাহাড় মোতায়েন বাকি ৪ কোম্পানি আধা সেনা প্রত্যাহারের নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। ৮ মার্চের মধ্যেই পাহাড়ে মোতায়েন সেনা প্রত্যাহার করে নিতে হবে। 

Updated: Feb 21, 2018, 04:28 PM IST
দার্জিলিং থেকে পুরোপুরি আধা সেনা সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদন: কেন্দ্রীয় বাহিনী প্রত্যাহার নিয়ে রাজ্যের সঙ্গে সংঘাতে ইতি। পাহাড় মোতায়েন বাকি ৪ কোম্পানি আধা সেনা প্রত্যাহারের নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। ৮ মার্চের মধ্যেই পাহাড়ে মোতায়েন সেনা প্রত্যাহার করে নিতে হবে। 

মেঘালয়ে ভোটগ্রহণের জন্য দরকার আধা সেনা। এই যুক্তিতে সম্প্রতি দার্জিলিং থেকে আধাসামরিক বাহিনী প্রত্যাহারের অনুমতি চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয় কেন্দ্র। কেন্দ্রের দাবি মেনে বুধবার রায় দেয় সর্বোচ্চ আদালত। গতবছর পাহাড় পরিস্থিতি উত্তপ্ত হওয়ার পর থেকে দফায় দফায় ১৫ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করে নয়া দিল্লি।

আরও পড়ুন - ভাষাদিবসে মমতার উপহার, দক্ষিণ দিনাজপুরে হবে নতুন বিশ্ববিদ্যালয়

হিমাচল, গুজরাটে ভোটের কারণ দেখিয়ে গত অক্টোবরের শুরুতে পাহাড় থেকে সেনা সরানোর নির্দেশ দেয় কেন্দ্র। তার বিরোধিতায় হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয় রাজ্য সরকার। হাইকোর্ট কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের ওপর স্থগিতাদেশ জারি করলে সর্বোচ্চ আদালতে যায় কেন্দ্র। দু'পক্ষের যুক্তি শুনে ২৭ অক্টোবর পাহাড় থেকে ৭ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী প্রত্যাহারের নির্দেশ দেয় সর্বোচ্চ আদালত। থেকে যায় ৮ কোম্পানি। এর পর আদালতের নির্দেশে আরও ৪ কোম্পানি বাহিনী প্রত্যাহার করে কেন্দ্র। এদিন অবশিষ্ট ৪ কোম্পানি আধা সেনাও প্রত্যাহার করে নেওয়ার নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। 

এদিন আদালতে কেন্দ্রের তরফে সওয়ালে বলা হয়, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য রাজ্যের কাছে পর্যাপ্ত সশস্ত্র বাহিনী রয়েছে। তার পরও কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন রাখা অযৌক্তিক। 

পালটা সওয়ালে রাজ্যের তরফে জানানো হয়, কেন্দ্রের সঙ্গে বাহিনী মোতায়েন নিয়ে বৈঠকের নির্যাস হলফনামা আকারে আদালতে পেশ করেছে রাজ্য। কিন্তু তাতেও চিঁড়ে ভেজেনি। শেষ পর্যন্ত পাহাড়ের ভার গেল রাজ্য পুলিসের হাতে।