'ডাক্তাররা কিচ্ছু জানে না, ওদের থেকে কম্পাউন্ডাররা ভালো', বিতর্কিত মন্তব্য শিবসেনা নেতার

সঞ্জয় রাউতের ওই মন্তব্যের পরই সরব হয়েছে ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন। রাউতের বিরু্দ্ধে রাজ্যসভায় চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইড়ুর কাছে দরবার করছে চিকিত্সকদের সংগঠন

Edited By: সিকান্দর আবু জ়াফর | Updated By: Aug 18, 2020, 04:46 PM IST
'ডাক্তাররা কিচ্ছু জানে না, ওদের থেকে কম্পাউন্ডাররা ভালো', বিতর্কিত মন্তব্য শিবসেনা নেতার
ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদন: বেলাগাম মন্তব্য করে রাজ্যের চিকিত্সকের কোপে মহারাষ্ট্রের শিবসেনা নেতা ও রাজ্যসভার সাংসদ সঞ্জয় রাউত। ওই মন্তব্যের জন্য রাজ্যসভার চেয়ারম্যানকে চিঠি লিখল ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন।

কী বলেছেন রাউত?

মহারাষ্ট্রে ভয়ঙ্কর করোনা সংক্রমণের মধ্যে রাজ্যের চিকিত্সকরা দিনরাত এক করে চিকিত্সা করে চলেছেন। তাদেরই নিশানা করেছেন রাউত।  সম্প্রতি, এক মারাঠি টিভি চ্যানলকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, 'ডাক্তাররা কিচ্ছু জানে না। ওদের থেকে কমপাউন্ডারা ভালো। আমিতো সবসময় কমপাউন্ডারকে দেখিয়েই ওষুধ খাই। ভুলেও ডাক্তারের কাছে যাই না। ' এখানেই থেমে থাকেননি শিবসেনা নেতা। বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থাকেও আক্রমণ করেছেন রাউত। বলেছেন, WHO একেবারে অপদার্থ সংস্থা। এই WHO-র জন্যই করোনা ভাইরাস অতিমারীর আকার নিয়েছে।

আরও পড়ুন-NRS-এর চেস্ট ওয়ার্ডের ১১০টি শয্যাকে কোভিড ইউনিটে রূপান্তর

কী বলেছেন রাউত?

মহারাষ্ট্রে ভয়ঙ্কর করোনা সংক্রমণের মধ্যে রাজ্যের চিকিত্সকরা দিনরাত এক করে চিকিত্সা করে চলেছেন। তাদেরই নিশানা করেছেন রাউত।  সম্প্রতি, এক মারাঠি টিভি চ্যানলকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, 'ডাক্তাররা কিচ্ছু জানে না। ওদের থেকে কমপাউন্ডারা ভালো। আমিতো সবসময় কমপাউন্ডারকে দেখিয়েই ওষুধ খাই। ভুলেও ডাক্তারের কাছে যাই না। ' এখানেই থেমে থাকেননি শিবসেনা নেতা। বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থাকেও আক্রমণ করেছেন রাউত। বলেছেন, WHO একেবারে অপদার্থ সংস্থা। এই WHO-র জন্যই করোনা ভাইরাস অতিমারীর আকার নিয়েছে।

আরও পড়ুন-মেয়াদ শেষের আগেই নির্বাচন কমিশনারের পদ ছাড়লেন অশোক লাভাসা

এদিকে, সঞ্জয় রাউতের ওই মন্তব্যের পরই সরব হয়েছে ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন। রাউতের বিরু্দ্ধে রাজ্যসভায় চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইড়ুর কাছে দরবার করছে চিকিত্সকদের সংগঠন। সংগঠনের তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে. একজন দায়িত্ববান নেতা-সাংসদের এই ধরনের মন্তব্য মহারাষ্ট্রের চিকিত্সকদের অপমান। টানা ৪ মাস ধরে যারা করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করে চলেছেন তাদের মনবল ভেঙে দেবে রাউতের ওই মন্তব্য। এনিয়ে মুখ্যমন্ত্রী, রাজ্যপালকে জানানো হয়েছে। ওই মন্তব্যর জন্য তাঁর ক্ষমা চাওয়া উচিত।