বিশ্বকাপ বিক্রি! হঠাত্ করেই তদন্ত বন্ধ করে দিল শ্রীলঙ্কা পুলিস

২০১১ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার সহ-অধিনায়ক মাহেলা জয়বর্ধনেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা সত্ত্বেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি।

Edited By: সুখেন্দু সরকার | Updated By: Jul 3, 2020, 07:12 PM IST
বিশ্বকাপ বিক্রি! হঠাত্ করেই তদন্ত বন্ধ করে দিল শ্রীলঙ্কা পুলিস
ছবি: সংগৃহীত

নিজস্ব প্রতিবেদন: শ্রীলঙ্কার প্রাক্তন ক্রীড়ামন্ত্রী মহিন্দানন্দ আলুথাগমাগে অভিযোগ করেছিলেন, ২০১১ বিশ্বকাপ বিক্রি করেছিলেন তাঁর দেশের ক্রিকেটাররা। কোনও প্রমাণ তিনি হাতেনাতে দিতে পারেননি। তবে তাঁর সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার ফৌজদারি তদন্তের নির্দেশ দেয় শ্রীলঙ্কা সরকার। তদন্ত শুরু করে লঙ্কান পুলিস ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্পোশাল ইনভেস্টিগেশন ইউনিট।

২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালের ফৌজদারি তদন্তে নেমে একের পর এক প্রাক্তন ক্রিকেটারকে তলব করা শুরু হয়। অরবিন্দা ডি সিলভা, উপুল থারাঙ্গা, কুমার সাঙ্গাকারার এবং মাহেলা জয়বর্ধনকে ডাকা হয়। তত্কালীন নির্বাচক প্রধান ডি সিলভাকে ছয় ঘণ্টা, ওপেনার থারাঙ্গাকে ২ ঘণ্টা আর ২০১১ বিশ্বকাপে লঙ্কা অধিনায়ক সাঙ্গাকারাকে ১০ ঘণ্টা জেরা করে। ২০১১ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার সহ-অধিনায়ক মাহেলা জয়বর্ধনেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা সত্ত্বেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি।

এদিকে তদন্ত শুরুর চার দিনের মধ্যেই দাড়ি টেনে দিল লঙ্কান পুলিস ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্পোশাল ইনভেস্টিগেশন ইউনিট। সূত্রের খবর, লঙ্কান পুলিসের গোয়েন্দা বিভাগ জিজ্ঞাসাবাদে সন্তুষ্ট। কোনও ধরণের গড়াপেটার ইঙ্গিত তারা পায়নি। তাই তদন্ত বন্ধ করে দেওয়া হল।

প্রসঙ্গত ১০ ঘণ্টা ধরে সঙ্গাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর থেকেই গোটা শ্রীলঙ্কাজুড়ে সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনা শুরু হয়েছে। বহু মানুষ দেশের প্রথম সারির তারকাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সরকারের তুলোধনা করেছেন।

আরও পড়ুন - একা চ্যাপেল নন, আর এক অজি কোচ সৌরভকে নেতৃত্ব থেকে সরাতে চেয়েছিলেন