ভূরি ভূরি দুর্নীতির অভিযোগ, বীরভূম জেলা সভাধিপতিকে 'সাসপেন্ড' অনুব্রত মণ্ডলের

কর্মীসভাতেই বিকাশ রায়চৌধুরীর বিরুদ্ধে তাঁর কাছে অভিযোগ জমা পড়ে।

Updated By: Dec 2, 2019, 07:34 PM IST
ভূরি ভূরি দুর্নীতির অভিযোগ, বীরভূম জেলা সভাধিপতিকে 'সাসপেন্ড' অনুব্রত মণ্ডলের

নিজস্ব প্রতিবেদন : দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল বীরভূম জেলা পরিষদের সভাধিপতির বিরুদ্ধে। সেই অভিযোগে দল থেকে সাসপেন্ড করা হল বীরভূম জেলা পরিষদের সভাধিপতি বিকাশ রায়চৌধুরীকে। ৬ মাসের জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে তাঁকে। তৃণমূল সূত্রে এমনই খবর জানা গিয়েছে। জানা গিয়েছে, তাঁকে দল থেকে সাসপেন্ডের সিদ্ধান্ত নেন খোদ তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

প্রসঙ্গত, বিগত কয়েকদিন ধরে ব্লকে ব্লকে কর্মী সম্মেলন করছেন অনুব্রত মণ্ডল। সেই কর্মীসভাতেই বিকাশ রায়চৌধুরীর বিরুদ্ধে তাঁর কাছে অভিযোগ জমা পড়ে। জেলা সভাধিপতি বিকাশ রায়চৌধুরীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে সরব হন তৃণমূল নেতা, কর্মীরা। এরপরই রবিবার সন্ধ্যায় বোলপুরে জেলা কার্যালয়ে দলীয় বৈঠক বসে বলে তৃণমূল সূত্রে খবর। সেখানেই বিকাশ রায়চৌধুরীকে দল থেকে সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত নেন অনুব্রত মণ্ডল।

আরও পড়ুন, ক্লাসরুমে ঢুকে পড়ল বিশাল সাপ, পড়িমড়ি করে ছুট পড়ুয়াদের

আরও পড়ুন, কথা-সুর বদলে নন্দন মেলায় 'বিকৃত রবীন্দ্রসঙ্গীত' পরিবেশন বিশ্বভারতীর পড়ুয়াদের

এখন দলীয় তরফে জেলা পরিষদের সভাধিপতিকে সাসপেন্ড করা যায় না। এক্ষেত্রে জানা গিয়েছে, আজ জেলাশাসক ও অতিরিক্ত জেলাশাসক জেলা পরিষদ- এই দুজনের কাছে স্ত্রীর শারীরিক অসুস্থতা ও ছেলের বিয়ের কারণ দেখিয়ে ৬ মাসের জন্য নিজেকে জেলা সভাধিপতির পদ থেকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য আবেদন করেছেন বিকাশ রায়।