BJP দশটা মারলে আমরা বিশটা মারব : আব্বাস সিদ্দিকী

"বিজেপি যদি যদি দশটা মারে, আমরাও হাতে চুড়ি পরে নেই, বিশটা মারব।" পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর (Abbas Siddiqui) এই মন্তব্যের পরই হইচই পড়ে গিয়েছে রাজ্য-রাজনীতিতে।

Updated By: Jan 26, 2021, 08:07 PM IST
BJP দশটা মারলে আমরা বিশটা মারব : আব্বাস সিদ্দিকী
নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন : "বিজেপি দশটা মারলে আমরা বিশটা মারব।" মালদার বামনগ্রামে এক জলসায় এমনই বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন ফুরফুরা শরীফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী। এদিন মালদার কালিয়াচকের সুজাপুর বিধানসভা কেন্দ্রের বামনগ্রামে এক জলসার আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে উপস্থিত ছিলেন আব্বাস সিদ্দিকী (Abbas Siddiqui)। তিনি স্পষ্ট জানান, আসন্ন বিধানসভা ভোটে (Assembly Election) মালদা জেলায় ৬টি আসনে প্রার্থী দেওয়া হবে। তবে যদি অন্য দলের সাথে সমঝোতা হয়, সেক্ষেত্রে সমঝোতার সূত্রে আসন সংখ্যা কমতে পারে। যদিও কোন কোন বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থী দেওয়া হবে তা, এদিন স্পষ্ট করেননি আব্বাস সিদ্দিকী।

একইসঙ্গে এদিনের জলসায় তিনি আরও বলেন, "বিজেপি (BJP) দশটা মারলে আমরা বিশটা  মারব।" একযোগে আক্রমণ করেন তৃণমূল কংগ্রেসকেও (TMC)। তোপ দাগেন, "আমি বলেছিলাম আসুন, ৪৪টা আসন আমাকে দিন, ২৫০টা আপনি নিন। কিন্তু দেখছি প্রশাসন দিয়ে জুলুম করছে, গায়ের জোর দেখাচ্ছে। মিথ্যে মামলা দিচ্ছে। আর বলছে, বিজেপি চলে আসবে। ওদিকে বিজেপিও আবার বলছে, মারব। উনি দরজা খুলে বলছেন, চলে এসো চলে এসো। যেই হুড়মুড় করে ঢুকেছি, অমনি তালা মেরে দিয়েছে। আর বেরনোর কথা বললেই বলছে, বিজেপি আছে। এক, দুই, তিন বছর ধরে ওইভাবেই ফেলে রেখে দিচ্ছে। আসলে বিজেপির জুজু দেখিয়ে জেলে ভরছে প্রশাসন।" এরপরই তাঁর বিস্ফোরক দাবি, "বিজেপি যদি যদি দশটা মারে, আমরাও হাতে চুড়ি পরে নেই, বিশটা মারব।" পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর (Abbas Siddiqui) এই মন্তব্যের পরই হইচই পড়ে গিয়েছে রাজ্য-রাজনীতিতে।

এদিকে এদিন মালদার চাঁচোলে বইমেলার উদ্ধোধন করতে এসে রাজ্যের মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী আব্বাস সিদ্দিকীর (Abbas Siddiqui) সঙ্গে বামফন্ট্রের সমঝোতার বিষয়টিকে কটাক্ষ করেন। আরও দাবি করেন, "হায়দরাবাদের উড়ন্ত পাখি এই রাজ্যে ভোটে কোনও প্রভাব খাটাতে পারবে না। খেলার মাঠ অনেক বড়। ১১ জন খেলোয়াড় ছাড়া কোচ সহ অনেকের প্রয়োজন হয়।" (এই প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়া পর্যন্ত আব্বাস সিদ্দিকীর মন্তব্যের প্রেক্ষিতে বিজেপি ও তৃণমূল কোনও প্রতিক্রিয়া জানায়নি) 

আরও পড়ুন, Rajib-কে ফোন TMC শীর্ষ নেতার, সমস্যা সমাধানে চাইলেন ৩ মাস সময়

'দলের মধ্যে ব্রাত্য', TMC-র হুগলি জেলার কোর কমিটি থেকে ইস্তফা বিধায়ক Prabir Ghosal-র