'কোনও NRC হবে না', সংসদে অমিতের বিল পেশের দিনই কেন্দ্রকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ মমতার

"ভয় পাবেন না। ওয়াদা করছি আপনাদের পাশে আছি, থাকব। আসুন জোট বাঁধি। আমরা থাকতে কোনও এনআরসি (NRC), সিএবি (CAB) হবে না।"

Edited By: সুদেষ্ণা পাল | Updated By: Dec 9, 2019, 06:08 PM IST
'কোনও NRC হবে না', সংসদে অমিতের বিল পেশের দিনই কেন্দ্রকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ মমতার

নিজস্ব প্রতিবেদন : "রুটি, কাপড়া, মকান দিন। দেশে ভাগাভাগি করবেন না।" খড়্গপুরের জনসভা থেকে এনআরসি (NRC) নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশে কড়া বার্তা দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। খড়গপুর উপনির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ সরকারের বিপুল ভোটে জয়লাভের পর, এদিন মুখ্যমন্ত্রী প্রথমবার রেলশহরে আসেন। উপনির্বাচনে পাশে থাকার জন্য, তৃণমূলকে জয়ী করার জন্য খড়্গপুরবাসীকে কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন জানান তিনি।

এরপরই বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী (Mamata Banerjee) বলেন, "ভয় পাবেন না। ওয়াদা করছি আপনাদের পাশে আছি, থাকব। আসুন জোট বাঁধি। একটা লোককেও দেশ থেকে তাড়াতে দেব না। "কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের উদ্দেশে এরপরই তাঁর গলায় শোনা যায় হঁশিয়ারি। মমতা বলেন, "আগে রোটি, কাপড়া, মকান দিন। দেশে ভাগাভাগি করবেন না। যারা ফেট্টি বেঁধে রাজনীতি করছে, তাদের জায়গা বাংলা নয়। ফেট্টিবাজদের ভয় পাবেন না। আমরা থাকতে কোনও এনআরসি (NRC), সিএবি (CAB) হবে না।"

প্রসঙ্গত, বিরোধীদের প্রবল হই হট্টগোলের মধ্যেই আজ  লোকসভায় পেশ হয়েছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (Citizenship Amendment Bill)। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে এদিন সকাল থেকেই সরগরম ছিল সংসদ। এদিন সংসদে বিল পেশ করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)। তাঁর বক্তব্যের মধ্যেই তুমুল হইচই শুরু করে দেন বিরোধীরা। বিলের বিরোধিতা করে কংগ্রেস, তৃণমূল কংগ্রেস-সহ অন্যান্য বিরোধী দল। বিলের বিরোধিতা করতে গিয়ে সংসদে সংবিধানের ৫ ও ১৪ নম্বর ধারার কথা তোলেন বিরোধীরা।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে বিরোধীদের প্রতিবাদের জবাব দিতে গিয়ে কংগ্রেসকে নিশানা করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। লোকসভায় তিনি বলেন, ধর্মের ভিত্তিতে দেশভাগ করেছে কংগ্রেস। আমরা নই। বিদেশে অত্যাচারিত হচ্ছেন হিন্দু-সহ অন্যান্য ধর্মের মানুষ। ভারত সংখ্যালঘুরা নিরাপত্তা পেলেও, পাকিস্তান ও বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত হয়নি। তাই এই বিল আনতে হয়েছে। অমিত শাহ বলেন, ‘ওই দুই ধারা কোনওভাবেই ভঙ্গ হচ্ছে না। নতুন আইন তৈরিতে কোনও বাধা নেই ওই দুই ধারায়। এর আগেও বাংলাদেশ থেকে আগত হিন্দুদের এদেশে আশ্রয় দিয়েছেন ইন্দিরা গান্ধী।  উগান্ডার মানুষদের আশ্রয় দেওয়া হয়েছে। তাহলে এখন কেন নয়! দুনিয়ার বহু দেশের আইন নিয়ে আলোচনা করা যাতে পারে। সংবিধানের ১৪ ধারায় যেখানে সবার জন্য আইনের সমতার কথা বলা হয়েছে তা লঙ্ঘন হবে না।’

আরও পড়ুন, চুক্তিভিত্তিক পেঁয়াজ দেয়নি কেন্দ্র, দাম বৃদ্ধি নিয়ে তোপ মমতার

একদিকে লোকসভায় অমিত শাহ যখন নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে জোর সওয়াল করছেন, ঠিক তারপরই খড়গপুরের সভা থেকে ফের এনআরসি ইস্যুতে সুর চড়ান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।