close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

এ কেমন মা! প্রেমে বাধা, অষ্টম শ্রেণির ছাত্রকে প্রেমিককে দিয়ে খুন করালেন মহিলা

কুপুত্র যদ্যপি হয়, কুমাতা কদাপি নয়। এই প্রবাদকে মিথ্যে প্রমাণ করে দিলেন হাওড়ার কাকলি রায়।

Updated: Jun 21, 2019, 09:53 PM IST
এ কেমন মা! প্রেমে বাধা, অষ্টম শ্রেণির ছাত্রকে প্রেমিককে দিয়ে খুন করালেন মহিলা

নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রেমে বাধা। পথের কাঁটা সরাতে ছেলেকে খুনের ব্লুপ্রিন্ট করলেন মা-ই। সেই মতো হাওড়ার চ্যাটার্জিহাটের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র শুভম রায়কে কাঁকুড়গাছির স্টেশনের সামনে এনে খুন করল মায়ের প্রেমিক। পুলিসি জেরায় দোষ কবুল করেছেন দুজনেই। 

কুপুত্র যদ্যপি হয়, কুমাতা কদাপি নয়। এই প্রবাদকে মিথ্যে প্রমাণ করে দিলেন হাওড়ার কাকলি রায়। প্রেমের পথের কাঁটা সরাতে নৃশংসভাবে খুন করলেন নিজের পেটে ধরা সন্তানকে। হতবাক কাকলিদেবীর পরিবার। শোকে বাকরুদ্ধ ঠাকুমা। তাজ্জব পাড়া-প্রতিবেশিরা। 

অষ্টম শ্রেণিতে পড়াশুনো করে শুভম রায়। হাওড়ার চ্যাটার্জিহাট থানা এলাকার মান্নাপাড়ায় এমন কাণ্ড যে ঘটবে তা ঘুণাক্ষরেও বুঝতে পারেনি কেউ। কিন্তু তলে তলে চলছিল ষড়যন্ত্র, গভীর-নৃশংস চক্রান্ত। 
স্বামী মারা গিয়েছেন। ছেলে শুভমকে গড়ে তোলার দায়িত্ব ছিল মায়ের হাতেই। অথচ সেই হাতই কেড়ে নিল ছোট্ট ছেলেটার জীবন। প্রেমে বাধা হয়ে দাড়াচ্ছিল শুভম। তাই খতম করার নীল নকশা করেন কাকলি রায়। ঠাকুমা দাবি করেছেন, ছেলে এতটাই অসহ্য হয়ে উঠেছিলেন, যে দিনের পর দিন ধরে শুভমকে অত্যাচার করতেন মা।

এখান থেকেই প্রাথমিক সূত্র পায় পুলিস। কে ডেকে নিয়ে গেল শুভমকে? তখনই উঠে আসে মায়ের প্রেমিকের যোগসূত্র। শুক্রবার কাঁকুড়গাছি ট্রেন লাইনের ধার থেকে উদ্ধার হয় শুভমের দেহ। মায়ের কথাবার্তায় সন্দেহ জাগে তদন্তকারীদের। শুরু হয় সব তথ্য একসূত্রে বাঁধার কাজ। 

শুভমকে খুনে নীলনকশা

মা হাসপাতালে ভর্তি, স্কুল থেকে ফেরার পর শুভমকে জানায় মা কাকলির প্রেমিক রঞ্জিত ভর। এরপরই নিখোঁজ হয়ে যায় শুভম। রঞ্জিত শুভমকে নিয়ে রাতেই পৌছয় কাঁকুড়গাছিতে। সেখানেই ট্রেনের সামনে ধাক্কা দিয়ে ফেলে খুন করা হয় শুভমকে।

মা-ই প্রেমিককে দিয়ে খুন করিয়েছেন ছেলেকে। পুলিসের জেরায় ছেলেকে অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছেন কাকলিদেবী। এ কেমন মা!

আরও পড়ুন- ঊষসীকাণ্ড: শ্লীলতাহানির অভিযোগ, অথচ দু'দিনেই জামিনে মুক্ত অভিযুক্তরা