শুভেন্দু অনুগামী বলে পরিচিত পৌর প্রশাসককে সরাল তৃণমূল! ক্ষোভে, দুঃখে হাইকোর্টে মামলা

পৌর এলাকায় বহিরাগত তকমা এঁটে লাগানো হল পোস্টার। অস্বস্তিতে তৃণমূল শিবির। 

Updated By: Dec 11, 2020, 05:52 PM IST
শুভেন্দু অনুগামী বলে পরিচিত পৌর প্রশাসককে সরাল তৃণমূল! ক্ষোভে, দুঃখে হাইকোর্টে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদন-  ফের পৌরসভার প্রশাসক বদলিতে শুরু হয়েছে জোর রাজনৈতিক তরজা। পৌরপ্রশাসক বহিরাগত, এমন দাবি করে ময়দানে নেমেছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ঘাটাল মহকুমার খড়ার পৌরপ্রশাসক,  এক সময়ের দাপুটে তৃণমূল নেতা উত্তম মুখোপাধ্যায়কে সরানো হয়েছে। তাঁর বদলে ঘাটাল বিধানসভার তৃণমূল বিধায়ক শংকর দোলুইকে খড়ার পৌর প্রশাসকের দায়িত্ব দেওয়া হয়। এতেই শুরু হয়েছে জোর রাজনৈতিক তরজা। বহিরাগত তকমা এঁটে ময়দানে নেমেছে সিপিএম-বিজেপি দুপক্ষই।    

খড়ার পৌর এলাকায় বহিরাগত তকমা এঁটে লাগানো হল পোস্টার। অস্বস্তিতে তৃণমূল শিবির।  উত্তমকে কেন হঠাৎ করে সরিয়ে দেওয়া হল? তবে কি তিনি শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠ বলেই এমন পদক্ষেপ! অপরদিকে, বিধায়ক শংকর দোলুই বহিরাগত পৌর প্রশাসক হওয়ায় তাঁকে মানতে নারাজ বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। জানা যায়, উত্তম বাবুর শারীরিক অসুস্থতার কারণে ভর্তি আছেন কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে। তাই বর্তমান পৌর প্রশাসকের দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন অপর এক নেতা  অরূপ রায়। তিনি দীর্ঘদিনের সক্রিয় তৃণমূল কর্মী তথা এলাকার দাপুটে তৃণমূল নেতা। তার পরেও কেন সরিয়ে দেয়া হল উত্তম ও অরূপ কে! 

আরও পড়ুন-  ভারতীয় সীমান্তে ঢুকে তৃণমূলের বুথ সভাপতিকে কোপাল বাংলাদেশি দুষ্কৃতিরা

অরূপের দাবি শুভেন্দু বাবুর হাত ধরে রাজনীতিতে এসেছিলেন উত্তম বাবু, এমনকী খড়ার পৌরবোর্ড গঠন করেছেন। বর্তমানে দল যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে একেবারেই মেনে নেওয়া যায় না। পৌর নাগরিকরাও ঘাটালের তৃণমূল বিধায়ক শঙ্কর দোলুইকে পৌর প্রশাসক হিসেবে মানতে চাইছেন না বলে জানা যাচ্ছে। অরূপ বলেন, "আমরা দাদার সঙ্গে আছি এবং দাদার সঙ্গেই থাকব। অপরদিকে, সিপিএম-বিজেপির দাবি, বহিরাগত ব্যক্তিকে খড়ার পৌরসভার পৌর প্রশাসক হিসাবে মানা যাবে না। এই বিষয়ে ঘাটালের তৃণমূল বিধায়ক, তথা খড়ার পৌরসভা নবনিযুক্ত পৌর প্রশাসক শংকর দোলুইয়ের দাবি, "প্রথমত আমি বহিরাগত নই। খড়ার পৌরসভা আমার বিধানসভা এলাকার মধ্যে পড়ে। দল আমাকে দায়িত্ব দিয়েছে। সেই দায়িত্ব আমি পালন করছি। 

উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগে শুভেন্দু অনুগামী বলে পরিচিত প্রণব বসুকে মেদিনীপুর পৌরসভার পৌর প্রশাসক থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মেদিনীপুর সফরে এসে শুভেন্দু অনুগামী দুই জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষকে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়ে যান। এখন প্রশ্ন উঠছে জেলায় জেলায় কি ধীরে ধীরে এভাবেই শুভেন্দু অনুগামীদের পদ থেকে ছেঁটে ফেলার কাজ শুরু করল তৃণমূল!  এদিকে অবশ্য জানা গিয়েছে, পৌরসভার প্রশাসক পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ায় হাইকোর্টে মামলা করেছেন উত্তম মুখোপাধ্যায়।