মানুষের হাতে এবার সত্যিই উঠবে 'চাঁদের কণা', খরচ করতে হবে সামান্য টাকা

চাঁদ থেকে খসে পৃথিবীতে এসে পড়া পঞ্চম বৃহত্তম এই চাঁদের পাথরের নাম ছিল এনডব্লিউএ-১২৬৯১ (NWA-12691)

Updated By: Apr 30, 2020, 01:40 PM IST
মানুষের হাতে এবার সত্যিই উঠবে 'চাঁদের কণা', খরচ করতে হবে সামান্য টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদন— মানুষের হাতে সত্যিই এবার উঠবে চাঁদের কণা। তবে তার জন্য দাম দিতে হবে। গাঁটের কড়ি খসাতে পারলে চাঁদের কণা এবার হাতের মুঠোয়। হেঁয়ালি নয়। একেবারে সত্যি কথা। চাঁদের একটি প্রস্তরখণ্ড বৃহস্পতিবার নিলামে উঠেছে। দাম উঠেছে ২০ লক্ষ পাউন্ডের ঘরে। সম্ভবত কোনও গ্রহাণু বা ধুমকুতের সঙ্গে ধাক্বা খেয়ে সাহারা মরুভূমিতে এসে পড়েছিল এই সাড়ে ১৩ কেজির চাঁদের প্রস্তরখণ্ড। 

চাঁদ থেকে খসে পৃথিবীতে এসে পড়া পঞ্চম বৃহত্তম এই চাঁদের পাথরের নাম ছিল এনডব্লিউএ-১২৬৯১ (NWA-12691). পৃথিবীতে সব মিলিয়ে মাত্র ৬৫০ কেজি চাঁদের পাথর রয়েছে। বুঝতেই পারছেন, পৃথিবীতে এখন চাঁদের পাথর কতটা মূল্যবান! ক্রিস্টিসে হওয়া এই নিলামের সম্পর্কে সেখানকার বিজ্ঞানভিত্তিক কাজকর্ম দেখাশোনার প্রধান জেমস হিসলোপ বলেছেন, "অন্য গ্রহের পাথর নিজের হাতে ছুয়ে দেখার অভিজ্ঞতা কখনও ভোলার নয়। এই পাথর হাতে পেলে অন্যরকম একটা আনুভূতি হতে বাধ্য। পৃথিবীতে বসে চাঁদের পাথর আপনার হাতে। অন্যরকম আনন্দ হবে।" তিনি আরও জানিয়েছেন, এই চাঁদের খণ্ডটি একটি ফুটবলের মতো, মানুষের মাথার থেকেও আকারে বড় সেটি। 

আরও পড়ুন— ভি়ডিয়ো: স্বাস্থ্যকর্মীদের শ্রদ্ধা জানাতে বিমান প্রদর্শনী সেনার, দেখুন অভূতপূর্ব কিছু দৃশ্য

১৯৬০ ও ১৯৭০ সালের অ্যাপোলো অভিযানের সময় চাঁদ থেকে প্রায় ৪০০ কেজি পাথর নিয়ে আসা সম্ভব হয়েছিল। তার সঙ্গেই মিল পাওয়া গিয়েছে সাহারা মরুভূমিতে কুড়িয়ে পাওয়া এই পাথরের। এমনটাই জানিয়েছেন হিসলোপ। ক্রিস্টিস জানিয়েছেন, এই বছর এমন ধরনের আরও অনেক সামগ্রী নিলামে উঠবে। চাঁদের সঙ্গে মানুষের ভালবাসার সম্পর্ক মানব সভ্যতার শুরু থেকে। মা—বাবা তো হামেশাই সন্তানকে বলে থাকেন— চাঁদের কণা। আর এবার সেই চাঁদের কণা সত্যিই মানুষ হাতে পাবে। কটা টাকা খরচ করতে পারলেই হল!