"আমি তো দিল্লিও চাই ", পাকিস্তানের নতুন মানচিত্র নিয়ে কটাক্ষ ইমরানের প্রাক্তন স্ত্রীর

পুরো কাশ্মীর নিজেদের মানচিত্রে অন্তর্ভুক্ত করে এমনিতেই সমালোচনার মুখে ইমরান খান।

Updated By: Aug 6, 2020, 12:29 AM IST
"আমি তো দিল্লিও চাই ", পাকিস্তানের নতুন মানচিত্র নিয়ে কটাক্ষ ইমরানের প্রাক্তন স্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদন - জম্মু,কাশ্মীর, লাদাখ, গুজরাটের জুনাগর। পাকিস্তানের নতুন মানচিত্রে জায়গা পেয়েছে ভারতের এই তিনটি জায়গা। কেন হঠাৎ করে এমন শিশুসুলভ আচরণ করলেন ইমরান খান! তার উত্তর অবশ্য কারও কাছে নেই। হটাৎ করেই ইমরান খানের সরকারের প্রকাশিত মানচিত্রে এই চারটি জায়গা তাদের হয়ে গেল। অনেক টা নেপালের পথেই হাঁটছে পাকিস্তান। কিছুদিন আগে ভারতের কালাপানি, লেপুলেখসহ মোট তিনটি ভারতীয় ভূখণ্ডকে নিজেদের মানচিত্রে রেখেছিল নেপাল। কিন্তু শুধুমাত্র নিজেদের মানচিত্রে অন্য দেশের ভূখণ্ড ছেপে দিলেই কী হল! আন্তর্জাতিক অনুমোদন বলেও তো একটা ব্যাপার আছে। সেসব পাকিস্তান বুঝতে চাইছে না। তারা পুরো কাশ্মীর নিজেদের মানচিত্রে দেখিয়ে মানসিক শান্তি খুঁজে নিতে চাইছে। যদিও পাকিস্তানের শিক্ষিত সমাজ বলছে, এটা ইমরান খানের রাজনৈতিক চাল। আসলে ভোট চাওয়ার সময় প্রতিশ্রুতির তালিকায় কাশ্মীর সমস্যার সমাধান তালিকায় ছিল। ইমরান নিজেও জানেন, ভারতের থেকে কাশ্মীর ছিনিয়ে নেওয়া দিবাস্বপ্ন দেখার সমান। তাই এখন তিনি এসব করে পাকিস্তানের আওয়ামকে শান্ত রাখতে চাইছেন।

পুরো কাশ্মীর নিজেদের মানচিত্রে অন্তর্ভুক্ত করে এমনিতেই সমালোচনার মুখে ইমরান খান। ভারত জানিয়েছে, এমন কাণ্ড হাস্যকর। এই দাবি ও মানচিত্রের না আছে কোনো বাস্তব ভিত্তি, না আছে আন্তর্জাতিক অনুমোদন। আর এবার নিজের দেশেই কটাক্ষ হজম করতে হচ্ছে পাক প্রধানমন্ত্রীকে। ইমরান খানের প্রাক্তন স্ত্রী রেহাম খান ব্যঙ্গ করে বললেন, "শুধু কাশ্মীর কেন, আমি তো দিল্লিও চাই। পাকিস্তান মানচিত্রে শুধু কাশ্মীর, লাদাখ অন্তর্ভুক্ত করে থেমে গেল কেন! দিল্লিও দাবি করতে পারত।"  ইমরান খান জানিয়েছিলেন, নতুন ম্যাপ পাকিস্তানের জনগণের আশা পূরণ হয়েছে। তবে এই আশা যে একেবারে অলীক স্বপ্নের মতো সেটা তাঁকে কে বোঝাবে! 

আরও পড়ুন-  নেপালের রাস্তায় পাকিস্তান! পুরো কাশ্মীর দেখিয়ে দিল নিজেদের মানচিত্রে

২০১৫ সালে সাংবাদিক রেহাম খানের সঙ্গে নিকাহ্ হয়েছিল ইমরান খানের। কিন্তু বছর ঘোরার আগেই বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায়। বছর তিরিশের সুন্দরী রেহাম জানান, তাঁর সঙ্গে ইমরানের মতের মিল অনেক। দুজনে দুই মেরুর মানুষ। তাই সারাজীবন একসঙ্গে থাকা কার্যত অসম্ভব। তিনি আরও জানান, ইমরান খানের পরিবার রক্ষণশীল। ইমরানের পরিবারের লোকজন চায়, রেহাম যেন বাড়ীতে থেকে ঘর সংসার সামলান। চাকরি করতে যাওয়া চলবে না। রেহাম পথ শিশুদের নিয়ে কাজ করতেন। সেসব বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তাই তড়িঘড়ি ইমরানের সঙ্গে সম্পর্ক ভেঙে তিনি বেরিয়ে আসেন। বিয়ের পর একাধিক মঞ্চ থেকে ইমরানের সমালোচনা করেছেন তিনি।।এবারও সুযোগ পেয়ে ইমরান খানকে ছাড়লেন না তিনি।