বাঁকুড়া থেকে পূর্ব মেদিনীপুর, বীরভূম থেকে বর্ধমান, বন্যায় ভাসছে বাংলা

জেলায় জেলায় বন্যা পরিস্থিতি কোন জায়গায় এক নজরে দেখে নেওয়া যাক---

Updated By: Aug 2, 2015, 08:38 AM IST
বাঁকুড়া থেকে পূর্ব মেদিনীপুর, বীরভূম থেকে বর্ধমান, বন্যায় ভাসছে বাংলা
বন্যায় ভাসছে বাংলা। (ছবি-এএনআই)

ওয়েব ডেস্ক: জেলায় জেলায় বন্যা পরিস্থিতি কোন জায়গায় এক নজরে দেখে নেওয়া যাক---

বাঁকুড়া- শুক্রবার রাতে দুর্গাপুর ব্যারেজ থেকে বাহান্ন হাজার কিউসেক জল ছাড়া হয়। সঙ্গে তুমুল বৃষ্টি। প্লাবিত সোনামুখীর বিস্তীর্ণ এলাকা। বাকুঁড়ার কোতুলপুরে জলের তোড়ে ভেসে যায় বাস। গাছে আটকে যাওয়ায় রক্ষা পান বাসের যাত্রীরা। কোতুলপুর-জয়রামবাটি সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

বীরভূম- ঝাড়খণ্ড, বিহারে বৃষ্টি। সঙ্গে জলাধার থেকে ছাড়া জল। বিপর্যস্ত প্রায় গোটা বীরভূম। তিলপাড়া, বইধারা, মাসাঞ্জোর, হিংলো, দেউচা থেকে দফায় দফায় জল ছাড়া হয়েছে। তিলপাড়া ব্যারেজ থেকে আচমকা ছাড়া জলে সাঁইথিয়ায় উল্টে যায় ছটি ট্রাক। প্রশাসনের তরফে মিলেছে সাহায্যের আশ্বাস।

বর্ধমান- লাগাতার বৃষ্টিতে জলমগ্ন বর্ধমানের জামালপুরের কুড়িটি গ্রাম। মেমারির বিস্তীর্ণ এলাকা জলের তলায়। কালনার বন্যা পরিস্থিতিও জটিল । জল জমেছে ভাতারেও।  পূর্বস্থলী, কেতুগ্রামের অবস্থাও শোচনীয়। ভাগীরথীর সঙ্গে কুনুর এবং খড়ি নদীর জলও বাড়ছে।

পূর্ব মেদিনীপুর- পরিস্থিতির অবনতি হয়নি। তবে এখনও জলমগ্ন কোলাঘাট, তমলুক, ময়না, এগরা, ভগবানপুর সহ পূর্ব মেদিনীপুরের বিস্তীর্ণ এলাকা। ডিভিসির ছাড়া জলে ক্ষীরাইয়ের বাঁধ ভেঙেছে। প্লাবিত হয়েছে কুড়িটি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা। টিউবয়েলগুলি জলের তলায় চলে যাওয়ায় পানীয় জলের হাহাকার তীব্র আকার ধারণ করেছে দুর্গতদের মধ্যে।

দীর্ঘদিন সংস্কার হয়নি ঘিয়া ,কুন্তী, সরস্বতী, কানা নদীর। নদীনালার জলধারণ ক্ষমতা কমছে। সঙ্গে একটানা প্রবল বৃষ্টি আর ডিভিসির ছাড়া জল। প্লাবিত পাণ্ডুয়া, বলাগড়, পোলবা-দাদপুর, ধনেখালি, দশঘড়া, হরিপাল, জাঙ্গিপাড়া, চন্দনপুরের বিস্তীর্ণ এলাকা। পোলবা-দাদপুরে ভেঙে পড়ছে নির্মীণমাণ সেতু। চন্দনপুরের ঘিয়া নদীর বাঁধ ভেঙেছে। ধনেখালিতে মাটির দেওয়াল চাপা পড়ে মৃত্যু হয়েছে এক প্রৌঢ়ের।

বনগাঁ- বনগাঁ গাইঘাটার  জল নামছে নিচের দিকে।  উপচে পড়ছে যমুনা ও ইছামতী  নদী। প্লাবিত  হয়েছে স্বরূপনগরের বিস্তীর্ণ এলাকা। দুর্ভোগ বাড়ছে মানুষের। বৃষ্টি বাড়লে দুর্ভোগ আরও বাড়বে। তাই আগাম সতর্ক প্রশাসন।

নদিয়া- তিলপাড়া ব্যারেজের ছাড়া জলে বিপদসীমা ছাড়িয়েছে গঙ্গা। চাকদা ব্লকের বেশ কয়েকটি গ্রাম জলের তলায়। চরবীরপাড়ায় জলে ডুবে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। জল থইথই নবদ্বীপ। প্লাবিত নাকাশিপাড়ার বিস্তীর্ণ অঞ্চল।  জল জমে রয়েছে অগ্রদ্বীপঘাট, জগত্‍খালি, হাটচাপড়ায়।