পুরুলিয়ায় মুখ থুবড়ে পড়েছে মাতৃযান প্রকল্প

ঘোষণাই সার। পুরুলিয়ায় মুখ থুবড়ে পড়েছে রাজ্য সরকারের মাতৃযান প্রকল্প। অভিযোগ, গত আট মাস ধরে মাতৃযান চালকরা নিজেদের প্রাপ্য টাকা পাচ্ছেন না। এর জেরে বন্ধ হয়ে গিয়েছে এই সরকারি পরিষেবা। জেলা স্বাস্থ্য দফতরের দাবি, রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর থেকে বরাদ্দ টাকা না আসায় সমস্যা তৈরি হয়েছে। দুহাজার এগারোয় রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর জেলায় জেলায় চালু করেছিল মাতৃযান প্রকল্প। উদ্দেশ ছিল, প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসবাসকারী গরিব পরিবারের প্রসূতি ও এক বছর পর্যন্ত শিশুদের পরিচর্যা করা। সরকার ঘোষণা করে, প্রসবকালীন অবস্থায় প্রসূতিদের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে আসার জন্য নিখরচায় ওই যান ব্যবহার করা হবে। কিন্তু ব্যস, ওই পর্যন্তই।গত প্রায় আট মাস ধরে পুরুলিয়ায় বন্ধ মাতৃযান পরিষেবা। এর জেরে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে গরিব পরিবারগুলি।

Updated By: Jun 6, 2014, 05:39 PM IST

ঘোষণাই সার। পুরুলিয়ায় মুখ থুবড়ে পড়েছে রাজ্য সরকারের মাতৃযান প্রকল্প। অভিযোগ, গত আট মাস ধরে মাতৃযান চালকরা নিজেদের প্রাপ্য টাকা পাচ্ছেন না। এর জেরে বন্ধ হয়ে গিয়েছে এই সরকারি পরিষেবা। জেলা স্বাস্থ্য দফতরের দাবি, রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর থেকে বরাদ্দ টাকা না আসায় সমস্যা তৈরি হয়েছে। দুহাজার এগারোয় রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর জেলায় জেলায় চালু করেছিল মাতৃযান প্রকল্প। উদ্দেশ ছিল, প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসবাসকারী গরিব পরিবারের প্রসূতি ও এক বছর পর্যন্ত শিশুদের পরিচর্যা করা। সরকার ঘোষণা করে, প্রসবকালীন অবস্থায় প্রসূতিদের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে আসার জন্য নিখরচায় ওই যান ব্যবহার করা হবে। কিন্তু ব্যস, ওই পর্যন্তই।গত প্রায় আট মাস ধরে পুরুলিয়ায় বন্ধ মাতৃযান পরিষেবা। এর জেরে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে গরিব পরিবারগুলি।

প্রাপ্য টাকা পাওয়া যাচ্ছে না প্রশাসনের কাছ থেকে। তাই বাধ্য হয়েই এই পরিষেবা বন্ধ করে দিতে হয়েছে বলে দাবি জেলার বিরাশিটি মাতৃযানের মালিকদের।

পরিষেবা যে পাওয়া যাচ্ছে না, একথা স্বীকার করে নিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য দফতর।

এই প্রকল্পকে ঘিরে দুর্নীতি, টাকা নয়-ছয়ের অভিযোগও উঠেছে বিভিন্ন মহল থেকে। তার জেরেই প্রকল্পটি বন্ধ কিনা, এনিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।