মিলছে না মন্ত্রকের ছাড়পত্র, কাটোয়ায় এনটিপিসি বিদ্যুৎ প্রকল্প বিশ বাঁও জলে

কাটোয়ায় এনটিপিসির বিদ্যুত্‍ প্রকল্প ঘিরে নতুন করে অনিশ্চয়তার মেঘ। এবার ভিলেন কয়লা মন্ত্রক। প্রকল্পের কয়লা খনির ছাড়পত্র দিচ্ছে না পীয়ুষ গোয়েলের দফতর। ফলে আটকে প্রকল্পের সব কাজই। কাটোয়ায় তেরশো কুড়ি মেগাওয়াটের তাপবিদ্যুত্‍ কেন্দ্রের পরিকল্পনা এনটিপিসির। দুহাজার দশ সালে পাঁচশো ছাপ্পান্ন একর জমি তাদের হাতে তুলে দিয়েছিল আগের সরকার। কিন্তু পাঁচ বছরেও শুরু করা যায়নি প্রকল্পের কাজ। বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল রাজ্যের  জমি নীতি। 

Updated By: Sep 25, 2015, 08:55 PM IST
মিলছে না মন্ত্রকের ছাড়পত্র, কাটোয়ায় এনটিপিসি বিদ্যুৎ প্রকল্প বিশ বাঁও জলে

ব্যুরো: কাটোয়ায় এনটিপিসির বিদ্যুত্‍ প্রকল্প ঘিরে নতুন করে অনিশ্চয়তার মেঘ। এবার ভিলেন কয়লা মন্ত্রক। প্রকল্পের কয়লা খনির ছাড়পত্র দিচ্ছে না পীয়ুষ গোয়েলের দফতর। ফলে আটকে প্রকল্পের সব কাজই। কাটোয়ায় তেরশো কুড়ি মেগাওয়াটের তাপবিদ্যুত্‍ কেন্দ্রের পরিকল্পনা এনটিপিসির। দুহাজার দশ সালে পাঁচশো ছাপ্পান্ন একর জমি তাদের হাতে তুলে দিয়েছিল আগের সরকার। কিন্তু পাঁচ বছরেও শুরু করা যায়নি প্রকল্পের কাজ। বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল রাজ্যের  জমি নীতি। 

শেষপর্যন্ত ৮৫৬ একর জমিতে প্রকল্প করতে রাজি হয় এনটিপিসি। ঠিক হয়, কৃষকদের থেকে সরাসরি জমি কিনবে এই কেন্দ্রীয় সংস্থা। রাজ্য দেবে প্রায় একশো একর। 

মঙ্গলবারই জমি  হস্তান্তরের রাজ্যের বিজ্ঞপ্তি পৌছে গিয়েছে এনটিপিসির দফতরে। কিন্তু এখন নতুন সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে কয়লার জোগান। প্রকল্পের জন্য বছরে প্রায় চৌষট্টি লক্ষ টন কয়লার প্রয়োজন।বীরভূমের দেউচাপাচামি ব্লক থেকে কয়লা দেওয়া হোক, এই মর্মে কয়লার স্থায়ী জোগান চেয়ে কেন্দ্রকে চিঠি দিয়েছে রাজ্যও। কিন্তু দেড় বছর কেটে গেলেও ফাইল এখনও পড়ে রয়েছে কয়লা মন্ত্রকে। 

রাজ্যে বিদ্যুত্‍ উন্নয়ন পর্ষদের কাছে কয়লার জোগান রয়েছে ঠিকই, কিন্তু তা স্থায়ী জোগান নয়। যতক্ষণ না স্থায়ী জোগানের অনুমতি পাওয়া যাবে ততক্ষণ মিলবে না পরিবেশ সংক্রান্ত ছাড়পত্র। ফলে প্রকল্পের জন্য ব্যয়বরাদ্দ অনুমোদনও সম্ভব হচ্ছে না।