close

News WrapGet Handpicked Stories from our editors directly to your mailbox

'টাইগার শো রাহা থা', বাজপেয়ীর মৃত্যুতে শোকবার্তা জানিয়ে আক্রমণের মুখে সলমন

৫ দিন পর কেন শোকবার্তা জানানো হল, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে

Updated: Aug 24, 2018, 10:47 AM IST
'টাইগার শো রাহা থা', বাজপেয়ীর মৃত্যুতে শোকবার্তা জানিয়ে আক্রমণের মুখে সলমন

নিজস্ব প্রতিবেদন : অটল বিহারী বাজপেয়ীর মৃত্যুর ৫ দিন পর শোকবার্তা জানিয়ে নেটিজেনদের ক্ষোভের মুখে পড়লেন সলমন খান। ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর প্রয়াণের ৫ দিন পর কেন টুইট করলেন সলমন খান, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে।

 

সম্প্রতি 'টাইগার জিন্দা হ্যায়'-এর শুটিংয়ের জন্য মাল্টায় পাড়ি দেন সলমন খান। মা সালমা খান, বোন আলভিরা খান এবং ভগ্নিপতি অতুল অগ্নিহোত্রীকে নিয়েই বিদেশেপাড়ি দেন বলিউড 'ভাইজান'। সলমনের মাল্টায় থাকাকালীনই অর্থাত ১৬ অগাস্ট প্রয়াত হন অটল বিহারী বাজপেয়ী। কিন্তু, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী প্রয়াণের পর ৫ দিন পর সলমন একটি টুইট করেন। তিনি লেখেন, একজন সৎ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ছিলেন অটল বিহারী বাজপেয়ী। শুধু তাই নয়, অটল বিহারী বাজপেয়ী একজন বড় মনের মানুষ ছিলেন বলেও নিজের টুইটে লেখেন সলমন। বলিউড 'ভাইজান'-এর ওই টুইট সামনে আসার পরই জোর জল্পনা শুরু হয়।

আরও পড়ুন : নিক, প্রিয়াঙ্কার বাগদান নিয়ে কটাক্ষ, বিয়ে নিয়ে তামাশা?

শুধু তাই নয়, সলমনকে নিয়ে শুরু হয় কটাক্ষের বন্যা। কখনও সলমন খান-কে 'টিউবলাইট' বলে কটাক্ষ করা হয়। আবার কখনও 'স্যার আপনি টিউবলাইটের প্রমোশন এখন করছেন কেন?' বলেও আক্রমণ করা হয় বলিউড অভিনেতাকে। পাশপাশি সলমন খান কি টুইটারের পাসওয়ার্ড ভুলে গিয়েছিলেন বলেও কেউ কেউ প্রশ্ন করতে শুরু করেন। কেউ আবার 'টাইগার শো রাহা থা' বলেও কেউ কেউ কটাক্ষ করতে শুরু করেন সলমন খান-কে।

আরও পড়ুন : কেরলের জন্য নিজের রোজগার, পোশাক উজাড় করে দিলেন অমিতাভ

অটল বিহারী বাজপেয়ীর মৃত্যুর ৫ দিন পর টুইট করে যেমন নেটিজেনদের একাংশের কটাক্ষের মুখে পড়েন সলমন খান, তেমনি কেরলের বন্যা নিয়েও সমালোচনার মুখে পড়েন অভিনেতা। কেরলের বন্যা তাঁকে দুঃখ দিয়েছে। কেরলের বানভাসি মানুষের পাশে সবাই দাঁড়ান বলে যখন টুইট করেন সলমন, তখন প্রশ্ন তোলা হয়, ১০ দিন পর কেন সলমন খান বিষয়টি নিয়ে সজাগ হলেন। যদিও, নেটিজেনদের একের পর এক কটাক্ষের মুখে পড়েও এ বিষয়ে পাল্টা কোনও মন্তব্য করেননি সলমন খান।