লক্ষ্মীপুজো স্পেশাল: ক্ষীরকদম

লক্ষ্মীপুজো মানেই নাড়ু, মোয়া আর কদমা। রইল এমনই এক মিষ্টির রেসিপি লক্ষ্মীপুজোতে যা চাই-ই-চাই।

Updated: Oct 7, 2014, 10:33 AM IST
লক্ষ্মীপুজো স্পেশাল: ক্ষীরকদম

ওয়েব ডেস্ক: লক্ষ্মীপুজো মানেই নাড়ু, মোয়া আর কদমা। রইল এমনই এক মিষ্টির রেসিপি লক্ষ্মীপুজোতে যা চাই-ই-চাই।

কী কী লাগবে-

দুধ-১ লিটার
খোয়া ক্ষীর-৫০০ গ্রাম
চিনি-২ কাপ
গুঁড়ো চিনি-৩ টেবিল চামচ
গুঁড়ো দুধ-আন্দাজ মতো
ভিনিগার-২ টেবিল চামচ
লাল রঙ-সামান্য

রসগোল্লা কীভাবে বানাবেন-

ডেকচিতে দুধ কম আঁচে ঘন করতে থাকুন। ফুটে উঠলে ভিনিগার দিয়ে ছানা তৈরি করে নিন। ছানা একটা পাতলা সুতির কাপড়ে ঢেলে জল দিয়ে ভাল করে ধুয়ে ছেঁকে জল ঝরিয়ে নিন যেন ভিনিগারের গন্ধ না থাকে। জল ঝরে গেলে ছানার সঙ্গে অল্প লাল রঙ মিশিয়ে মিহি করে হাত দিয়ে মেখে নিন। মসৃণ হয়ে গেলে ছোট ছোট ছানার বল বানিয়ে নিন। এবার ডেকচিতে ৩ কাপ জলে ১ কাপ চিনি দিয়ে ফুটিয়ে পাতলা রস তৈরি করুন। ফুটন্ত রসের মধ্যে ছানার বল দিয়ে চাপা দিয়ে মাঝারি আঁচে ২০ থেকে ১৫ মিনিট রেখে দিন।

ক্ষীরকদম কীভাবে বানাবেন-

রসগোল্লা ২০ মিনিট পর রস থেকে তুলে নিয়ে ওর মধ্যে আরও ১ কাপ চিনি দিয়ে এবার রস ঘন করে নিন। ঘন রসে রসগোল্লা আবার দিয়ে ৫ মিনিট ফুটিয়ে আগুন থেকে নামিয়ে ঢাকা দিয়ে ঠান্ডা করে নিন। ঠান্ডা হয়ে গেলে রসগোল্লা রস থেকে তুলে চ্যাটানো প্লেটে কিছুক্ষণ রেখে দিন। এবারে খোয়া ক্ষীর গ্রেট করে নিন। গ্রেট করা ক্ষীরে গুঁড়ো চিনি মিশিয়ে নিন যাতে ক্ষিরে কোনও দলা না থাকে।

এবারে এই ক্ষীরে রসগোল্লা মাখিয়ে গোল করে গড়ে নিন। এরপর একই ভাবে গুঁড়ো দুধে ভাল করে মাখিয়ে নিয়ে ফ্রিজে রেখে দিন। ঠান্ডা ঠান্ডা খান ক্ষীরকদম।